বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

নিরপেক্ষ দর্শকদের কাছে ব্যাপারটা রোমাঞ্চকর হলেও গার্দিওলার অধীনে যাঁরা খেলেন, তাঁদের জন্য ব্যাপারটা একটু হলেও বিরক্তিরই বটে। দিনরাত ২৪ ঘণ্টা কি আর ফুটবলকৌশলের খটমটে দিকগুলো নিয়ে ‘ক্লাস’ করতে ইচ্ছা করে?

দানিলোরও করেনি। দুই বছর পেপ গার্দিওলার অধীনে ম্যানচেস্টার সিটিতে খেলেছেন ব্রাজিলিয়ান রাইটব্যাক দানিলো। গার্দিওলার অধীনে তাঁর অভিজ্ঞতাটা তেমন সুখকর নয়। এখন যদিও গার্দিওলার ‘কবল’ থেকে মুক্তি পেয়েছেন, যোগ দিয়েছেন জুভেন্টাসে। কিন্তু গার্দিওলার অধীনের সেসব দিনগুলো যেন এখনো ভুলতে পারেন না এই ডিফেন্ডার!

default-image

ইতালিয়ান সংবাদমাধ্যম ‘লা রিপাবলিকা’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ফুটবল নিয়ে গার্দিওলার নিরন্তর গবেষণার ব্যাপারটাই যেন আরও একটিবার তুলে ধরেছেন জুভেন্টাসের এই রাইটব্যাক, ‘গার্দিওলা আমার দৃষ্টিভঙ্গিই বদলে দিয়েছেন। তাঁর অধীনে বেশি খেলা হয়নি আমার। চোটে ছিলাম। কিন্তু তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক বজায় রাখা সহজ কিছু না। তিনি কখনোই স্থির থাকতে পারেন না।’


ফুটবলের কৌশলগত দিকগুলো নিয়ে গার্দিওলার আসক্তি এতটাই বেশি যে দানিলোর মনে হয়, ঘরের সবাইকেই ফুটবল হিসেবে মনে করেন এই স্প্যানিশ কোচ, ‘আমার মনে হয়, তিনি বাসায় থাকলে নিজের স্ত্রী ও বাসার সোফাকেও খেলোয়াড় বলে মনে করবেন।’

২০১৭ সালে রিয়াল মাদ্রিদ থেকে ২ কোটি ৬৫ লাখ পাউন্ডের বিনিময়ে ম্যানচেস্টার সিটিতে যোগ দিয়েছিলেন দানিলো। বছর দুয়েক থাকার পর যোগ দিয়েছেন জুভেন্টাসে। জুভেন্টাসে তিন বছর থাকা হয়ে গিয়েছে তাঁর। তিন বছরে তিন কোচের অধীনে খেলেছেন এই ব্রাজিলিয়ান। প্রথমে মরিজিও সারি, পরের বছরে আন্দ্রেয়া পিরলো, আর এখন মাসিমিলিয়ানো আলেগ্রি।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন