নিষেধাজ্ঞা কমল নেইমারের

বিজ্ঞাপন
default-image

ম্যাচের শেষ মুহূর্তে গোল করেও সমর্থকদের মন জিততে পারছেন না নেইমার। এবার দলবদলের মৌসুমে পিএসজি ছাড়ার জন্য উঠে পড়ে লেগেছিলেন। ক্লাব সমর্থকেরা সে কারণেই ব্রাজিলীয় তারকার ওপর ত্যক্ত-বিরক্ত। বার্সেলোনায় শেষ অবধি যাওয়া হয়নি, এখন পিএসজির জার্সিতে খেলেও ‘দুয়ো’ শুনতে হচ্ছে। দিনকাল খুব খারাপ যাচ্ছে তাঁর। তবে এর মধ্যেই একটা সুখবর পেলেন, চ্যাম্পিয়নস লিগে খেলার নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ কমেছে তাঁর।

পিএসজির হয়ে খেলতে আর ভালো লাগছিল না নেইমারের। সে কথা মুখ ফুটে বলাতেই সমর্থকদের রোষের মুখে পড়েছেন। অথচ এই পিএসজির হয়ে আবেগ প্রকাশ করতে গিয়েই ইউরোপীয় প্রতিযোগিতায় নিষেধাজ্ঞা জুটেছিল নেইমারের। গত মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোর দ্বিতীয় লেগে শেষ মুহূর্তের পেনাল্টি গোলে হেরেছে পিএসজি। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে সে ম্যাচে মাঠেই ছিলেন না। চোটে পড়ায় গ্যালারিতে থেকে খেলা দেখেছিলেন নেইমার। পেনাল্টির সিদ্ধান্তে রেফারির উদ্দেশ্যে বেশ কিছু কটু মন্তব্য ছুড়ে দিয়েই তিন ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা জুটেছিল তাঁর।

আজ রাতেই এ মৌসুমের চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপপর্ব শুরু হচ্ছে। পিএসজির চ্যাম্পিয়নস লিগ শুরু হচ্ছে কাল। নিজেদের মাঠে রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে খেলবে তারা। সে ম্যাচে অবশ্য আক্রমণের ত্রিফলা এডিনসন কাভানি, কিলিয়ান এমবাপ্পে ও নেইমারকে পাচ্ছে না পিএসজি। প্রথম দুজন ছিটকে গেছেন চোটের কারণে। আর নেইমার খেলতে পারছেন না নিষেধাজ্ঞার কারণে। শুধু রিয়াল ম্যাচই নয়, আগামী ১ অক্টোবর গ্যালাতাসারায়ের বিপক্ষেও নামা হবে না নেইমারের। ২২ অক্টোবর ক্লাব ব্রাগার বিপক্ষেও দর্শক হিসেবে থাকার কথা ছিল। কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রীড়া আদালত (সিএএস) আজ জানিয়েছে আর্টিকেল ১৫ (১) অনুযায়ী ম্যাচ রেফারির সঙ্গে বাজে ব্যবহার করায় সর্বোচ্চ দুই ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা দেওয়া যায়।

নতুন এই খবরে খুশি হবেন নেইমার। তাঁকে ইউরোপের সেরা হওয়ার জন্যই দলে টেনেছিল পিএসজি। সমর্থকদের মন আবার জিততে চাইলে চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচই যে মূল ভরসা তাঁর।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন