default-image
>নীলফামারীর শেখ কামাল স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে বসুন্ধরা কিংস ও আবাহনী লিমিটেড। বেলা ৩টায় শুরু হবে লিগের অন্যতম আকর্ষণীয় এই ম্যাচটি।

প্রিমিয়ার ফুটবল লিগে ভেন্যু হিসেবে অভিষেক হতে যাচ্ছে আজ নীলফামারীর শেখ কামাল স্টেডিয়াম। অভিষেকেই বারুদে উত্তাপ ম্যাচ আবাহনী লিমিটেড বনাম বসুন্ধরা কিংস। দুই দলের শক্তির বিচারের এটিই লিগের সবচেয়ে বড় ম্যাচ। বেলা ৩টায় শুরু হবে লিগের অন্যতম আকর্ষণীয় এই ম্যাচটি। আজ সকাল থেকে স্টেডিয়ামে বসানোর কথা রয়েছে ১০টি অস্থায়ী বুথ। টিকিট বিক্রি চলবে ম্যাচ শুরুর আগ পর্যন্ত। সাধারণ গ্যালারি ৩০ টাকা, ভিআইপি ৫০০ টাকা। 

গত বছর ২১ সেপ্টেম্বর এই মাঠেই খেলে গেছে প্রিমিয়ারে নবাগত বসুন্ধরা কিংস। প্রাক-মৌসুম প্রস্তুতিমূলক ওই ম্যাচে বসুন্ধরা কিংস ৪-১ গোলে হারিয়েছিল মালদ্বীপের চ্যাম্পিয়ন নিউ রেডিয়েন্টকে। সেদিন মাঠে উপচে পড়া দর্শক দেখেই ক্লাবটি এবারের মৌসুমে নিজেদের হোম ভেন্যু করার আগ্রহ দেখায়। তা স্বাগতিক হিসেবে বেশ সাড়াই পাচ্ছে বসুন্ধরা কিংস। ফুটবল ঘিরে যেন নতুন করে জেগে উঠেছে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের জনপদ।

মাঠ সংস্কার, ঝকঝকে ড্রেসিংরুম, স্টেডিয়ামের ছাদে নতুন প্রেসবক্স...কী করা হয়নি! নীলফামারী জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক আরিফ হোসেন মুন ভীষণ ব্যস্ত। স্টেডিয়ামে ঢোকার মুখেই পাওয়া গেল তাঁকে। ভেন্যু নিয়ে দারুণ আশাবাদী সাবেক এই ফুটবলার, ‘আমরা প্রস্তুত। আমি আশা করি জমজমাট এক ম্যাচ দিয়ে এখানে প্রিমিয়ার লিগের অভিষেক হবে। এমন ম্যাচ এবারই প্রথম আয়োজন করছি আমরা। বিশ্বকাপে খেলা তারকা ফুটবলার এই ম্যাচের বড় আকর্ষণ হতে পারে। ভালো ফুটবলার এলে এমনিতেই মাঠে দর্শক আসে। এটা আমাদের জন্য একটা বড় প্রাপ্তি।’

ফেডারেশন কাপে বসুন্ধরা কিংসকে হারিয়ে আবাহনী চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। কিন্তু স্বাধীনতা কাপের সেমিতে আকাশি-নীলদের হার বসুন্ধরার কাছে। তাই আজ জিততে মরিয়া আবাহনীর পর্তুগিজ কোচ মারিও লেমোস, ‘ছেলেরা স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে পারলে এবং সুযোগ কাজে লাগালে জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ব।’
নীলফামারীতে এখন কনকনে ঠান্ডা। কিন্তু শহরবাসী গায়ে কিনা লাগছে ফুটবলের গরম হাওয়া!

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন