নেইমার-এমবাপ্পের ফাঁকতালে চ্যাম্পিয়নস লিগ জিততে দেবেন না পেরেজ
নেইমার-এমবাপ্পের ফাঁকতালে চ্যাম্পিয়নস লিগ জিততে দেবেন না পেরেজফাইল ছবি: রয়টার্স

ইউরোপে নিজেদের পরাশক্তি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চায় পিএসজি। এক দশক ধরে কাতারের অর্থায়নে আর্থিকভাবে মহাপরিক্রমশালী হয়ে উঠলেও ইউরোপীয় মঞ্চে তেমন কোনো সাফল্য এখন পর্যন্ত নেই দলটির। গতবার চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে উঠে প্রথমবারের মতো ভাগ্য বদলানোর ইঙ্গিত দিয়েছে দলটি। এবার গতবারের চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখকে হারিয়েই আবার সেমিফাইনাল খেলে জানিয়ে দিয়েছে এখন থেকে পিএসজিকে চ্যাম্পিয়নস লিগের বড় শক্তি হিসেবে গুনতে হবে সবাইকে।

এপ্রিলের শেষ সপ্তাহে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে সেমিফাইনালের প্রথম লেগ খেলার কথা পিএসজির। সিটির বিপক্ষে আবারও জ্বলে উঠবেন কিলিয়ান এমবাপ্পে-নেইমাররা নাকি পেপ গার্দিওলার গোছানো ছকে বাধা পড়বেন তাঁরা—এমন আলোচনা শুরু হয়ে গেছে। এরই মধ্যে ইউরোপিয়ান সুপার লিগের আবির্ভাব বদলে দিয়েছে পুরো চিত্রনাট্য। ফাইনালে কাউকে হারানো দূরে থাক, সেমিফাইনাল না খেলেই চ্যাম্পিয়ন হয়ে যাওয়ার দশা নেইমারদের। চ্যাম্পিয়নস লিগের বাকি তিন দলকেই যে নিষিদ্ধ করার হুমকি দিয়ে রেখেছেন উয়েফা সভাপতি আলেক্সান্দর সেফেরিন।

যে ১২ দল ইউরোপিয়ান সুপার লিগের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হিসেবে নিজেদের নাম ঘোষণা করেছে, তাদের মধ্যে পিএসজির প্রতিপক্ষ ম্যানচেস্টার সিটিও আছে। ওদিকে অন্য সেমিফাইনালের দুই প্রতিপক্ষ রিয়াল মাদ্রিদ ও চেলসিও সেই নিষিদ্ধের তালিকায় আছে। এমন অবস্থায় পিএসজিকেই চ্যাম্পিয়ন ভেবে নেওয়া হচ্ছে। তবে রিয়াল সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ দাবি করেছেন।, যদি কেউ ভেবে থাকে রিয়াল বা সিটিকে নিষিদ্ধ করা সম্ভব বর্তমান টুর্নামেন্ট থেকে, তবে সেটা ভুল হবে।

বিজ্ঞাপন
default-image

পেরেজের নামের আগে এখন আর শুধু রিয়াল মাদ্রিদ সভাপতি লিখেই থামা যাচ্ছে না। এই ব্যবসায়ী ও সাবেক রাজনীতিবিদ নবগঠিত ইউরোপিয়ান সুপার লিগেরও সভাপতি। গতকাল সুইজারল্যান্ডের মত্রে শহরে উয়েফার নির্বাহী কমিটির সভা শেষে ১২টি ক্লাবকে উদ্দেশ করে হুমকি দিয়েছেন উয়েফা সভাপতি। ক্ষুব্ধ সেফেরিন সরাসরি এই ১২ ক্লাবকে শুধু চ্যাম্পিয়নস লিগ নয়, একেবারে নিজ নিজ লিগ থেকেই বাদ দেওয়ার কথা বলেছেন। এর জবাব দিতে দেরি করেননি পেরেজ। কালই হাজির হয়েছেন নিজের পছন্দের টিভি অনুষ্ঠান এল চিরিঙ্গিতোয়।

গতকাল সেফেরিন বলেছেন, তাদের সব প্রতিযোগিতা (চ্যাম্পিয়নস লিগ ও ইউরোপা লিগ) থেকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেবে উয়েফা। আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ‘আমার মত হলো যত দ্রুত সম্ভব এদের আমাদের সব প্রতিযোগিতা থেকে বাদ দেওয়া এবং সব খেলোয়াড়কে (ইউরো, বিশ্বকাপ, আফ্রিকান নেশনস কাপ, এশিয়ান কাপ) সব প্রতিযোগিতা থেকে নিষিদ্ধ করা।’ সেফেরিন একা নন, উয়েফার নির্বাহী কমিটির সদস্য জেসপার মোলার বলেছেন, যত দ্রুত বলতে তাঁরা বর্তমান চ্যাম্পিয়নস লিগকেই বোঝাচ্ছেন। মোলার বলেছেন, চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে ওঠা রিয়াল, চেলসি ও সিটিকে টুর্নামেন্ট থেকে বের করে দেওয়ার সম্ভাবনা আছে।

উয়েফার এই সিদ্ধান্ত ইউরোপা লিগেও নেওয়া হবে। আর সে ক্ষেত্রে সেমিফাইনালে ওঠা দুই দল আর্সেনাল ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকেও এভাবে পত্রপাঠ বিদায় দেওয়া হবে।

default-image

এমন খবরে তাই চিন্তায় পড়ে গেছেন দলগুলোর সমর্থকেরা। ভবিষ্যতে ক্লাব কী করবে না করবে, সে দায় মেটাতে গিয়ে বর্তমান মৌসুমের পরিশ্রম এভাবে ধুলায় মিশে যেতে দেখতে কার ভালো লাগে। কাল তাই এসব সমর্থককে আশ্বস্ত করার চেষ্টা করেছেন পেরেজ। টিভি অনুষ্ঠানে এসে উয়েফার হুমকির কথা শুনে হেসে উড়িয়ে দিয়েছেন। বলেছেন, ‘চ্যাম্পিয়নস লিগ বা ঘরোয়া লিগ থেকে রিয়াল মাদ্রিদ, ম্যানচেস্টার সিটি কিংবা চেলসি নিষিদ্ধ হবে না। এটা অসম্ভব, আমি আপনাকে এ ব্যাপারে নিশ্চয়তা দিচ্ছি। শতভাগ নিশ্চিত থাকুন, এটা হবে না। আইন আমাদের পক্ষে আছে। এটা অসম্ভব।’

সেফেরিন কাল ঘোষণা দিয়েছেন, সুপার লিগে খেলা দলগুলো আসুক আর না আসুক, তিনি চ্যাম্পিয়নস লিগ চালিয়ে যাবেন। এদিকে জার্মান পত্রিকা বিল্ড চমক জাগানো এক খবর দিয়েছে। তাদের দাবি, পিএসজিকে সরাসরি চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করতে রাজি নয় উয়েফাও। তাই তারা বিকল্প এক পথ বেছে নিয়েছে। কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছে কিন্তু সুপার লিগে নাম নেই—এমন তিনটি দল পাওয়া যাচ্ছে।

পিএসজির কাছে হেরে যাওয়া বায়ার্ন মিউনিখ, ম্যানচেস্টার সিটির সঙ্গে খেলা বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ও চেলসির প্রতিপক্ষ এফসি পোর্তো। উয়েফা চাইছে রিয়াল মাদ্রিদ, চেলসি ও ম্যানচেস্টার সিটিকে বাদ দিয়ে এখন এই তিন দলকেই সেমিফাইনালের তিন দল হিসেবে ঘোষণা করতে। এ ঘোষণা নাকি আগামী শুক্রবারেই দেওয়া হবে উয়েফার পক্ষ থেকে। অন্তত জার্মান পত্রিকাটি এমন দাবিই তুলেছে।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন