নেইমার-নাস্তি প্রেমকাহিনি আদৌ কী শোনা যাবে?
নেইমার-নাস্তি প্রেমকাহিনি আদৌ কী শোনা যাবে?ছবি : টুইটার

চোটের কারণে আগামী কিছুদিন মাঠে ফুটবলীয় ঝলক দেখাতে পারবেন না নেইমার। সাবেক ক্লাব বার্সেলোনার বিপক্ষে মহাগুরুত্বপূর্ণ চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোর ম্যাচ দুটিতে এই ব্রাজিলিয়ান তারকাকে দেখা যাবে না, এটা প্রায় নিশ্চিত। মেসি-গ্রিজমানদের বিপক্ষে তাই এমবাপ্পে আর ইকার্দিকে নিয়েই নামবেন পিএসজির আর্জেন্টাইন কোচ মরিসিও পচেত্তিনো। তাই বলে সংবাদমাধ্যমের শিরোনাম হওয়া থেকে বর্তমান সময়ের ব্রাজিলের সবচেয়ে বড় এই তারকাকে আটকানোর সাধ্য কার!

শোনা গেছে, নতুন এক মডেলের প্রেমে মজেছেন নেইমার। ভালোবাসা জানাতে ক্রমাগত সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সেই মডেলের প্রতিটি ছবিতে 'লাইক', 'লাভ' দিয়েই যাচ্ছেন।

বিজ্ঞাপন

নেইমারের 'অপার ভালোবাসা' পেতে থাকা এই মডেলের নাম কিয়ারা নাস্তি। জাতীয়তা ইতালি। আরমানির মতো বিশ্বখ্যাত ব্র্যান্ডের এই মডেলের ইনস্টাগ্রামে অনুসারীর সংখ্যা প্রায় আঠারো লাখের মতো। এমন খবরই জানিয়েছে ইতালির বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম।

default-image

তবে আপাতত নেইমাররে এই ভালোবাসা একতরফা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একের পর এক 'হৃদয় ভরা ভালোবাসা' পাঠালেও ওই পক্ষ থেকে কোনো সাড়াশব্দ আসেনি বলেই জানা গেছে। নেইমারের ডাকে এখনো সাড়া দেননি ২৩ বছর বয়সী এই মডেল। এদিকে ইতালিয়ান বিনোদন সাংবাদিক ও 'চি' ম্যাগাজিনের পরিচালক আলফোনসো সিনিওরিনি জানিয়েছেন, নাস্তিকে একপলক দেখার জন্য সম্ভাব্য যা যা কিছু করা দরকার, সবকিছু করে চলেছেন নেইমার!

'নাস্তির একটা ছবিও নেই, যাতে নেইমারের ''লাইক'' বা ''লাভ'' রিঅ্যাকশন নেই। এই মুহূর্তে সে নাস্তির সঙ্গে দেখা করার জন্য সম্ভাব্য সবকিছুই করে চলেছে, কিন্তু এখনো নাস্তির পক্ষ থেকে কোনো সাড়াশব্দ পাওয়া যায়নি,' জানিয়েছেন সিনিওরিনি। অর্থাৎ বুক ভরা ভালোবাসা নিয়ে আপাতত খালি হাতেই ফিরতে হচ্ছে নেইমারকে!

ইতালিয়ান এই মডেল নেপলসের অধিবাসী, 'ড্যান্স ড্যান্স ড্যান্স' ও 'দ্য আইল্যান্ড অব ফেমাস'–এর মতো একাধিক রিয়েলিটি শোতে দেখা গেছে এই মডেলকে। ২০১৭ সালে উদ্যোক্তা উগো আবামন্তের সঙ্গে বাগদান হয়েছিল তাঁর। কিন্তু এক বছরের মাথায় সে সম্পর্ক ভেঙে গিয়েছিল। আপাতত নাস্তি তাই একা আছেন।

বিজ্ঞাপন

মাঠের ভেতরের মতো বাইরের জীবনটাও কম রঙিন নয় নেইমারের। গোটা ক্যারিয়ারে একাধিক মানুষের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছেন। নেইমারের ব্যক্তিগত জীবন যেকোনো দেশের সাংবাদিকের কাছেই আগ্রহের বিষয় বটে। ২০১১ সালে ক্যারোলিনার গর্ভে জন্মেছিল নেইমারের ছেলে দাভি লুকা। তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পর বেশ কয়েক বছর ব্রুনা মার্কেজিনের সঙ্গে মন দেওয়া–নেওয়া করেছেন নেইমার।

কিছুদিন আগেই যেমন, ক্রোট–কিউবান বংশোদ্ভূত মডেল নাতালিয়া বারুলিখের সঙ্গে নেইমারের প্রেমের গুঞ্জন উঠেছিল বেশ ভালোভাবেই। সেই সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পর একাধিক মডেলের পাশাপাশি এই বারুলিখের সঙ্গে প্রেমের গুঞ্জন উঠেছিল নেইমারের।

মাঝে ব্রাজিলিয়ান সংবাদমাধ্যম 'এক্সপ্লিকা' আবার অন্য খবর জানিয়েছিল। তারা বলেছিল, করোনা মহামারির মধ্যে নেইমারের মনের রাজত্বে ঠাঁই করে নিয়েছিলেন ব্রাজিলের পপ তারকা গাবিলি। আট মাস ধরে গাবিলির সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে মিশছেন নেইমার, এমনটাই জানা গিয়েছিল। মহামারির শুরুতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে পরিচয় হয় দুজনের। করোনা মহামারির মধ্যেই নেইমার ও গাবিলি দেখা করেছেন বেশ কয়েকবার, খবর বেরিয়েছিল। 'ভালোবাসার টানে' প্যারিসে গিয়ে নেইমারের সঙ্গে দেখা করেছেন এই পপ তারকা, এ ছাড়া নেইমারের বাসাতেও থেকেছেন বন্ধুবান্ধব নিয়ে। নিকটতম অতীতে দুজন একসঙ্গে সময় কাটিয়েছেন ব্রাজিলে।

default-image

গত ৩১ জুলাই গাবিলি মিউজিক ভিডিও বের করার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছিলেন নেইমার। এরপর প্যারিসে নেইমারের সঙ্গে নাকি মাসখানেক থেকেছেন এই গায়িকা।

দুজনে ছবিও তুলেছিলেন প্রচুর, গাবিলির সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোই তার প্রমাণ। গাবিলিকে নিজের পরিবারের সঙ্গেও পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন নেইমার। এদিকে কিছুদিন আগে আর্জেন্টাইন গায়িকা এমিলিয়া মার্নেসের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছেন নেইমার, এমন খবরও শোনা গিয়েছিল। কিন্তু পরে এই গুঞ্জন নিজেই উড়িয়ে দিয়েছেন মার্নেস। ইনস্টাগ্রাম লাইভে এসে জানিয়েছিলেন, নেইমারকে শুধু বন্ধুর দৃষ্টিতেই দেখেন!

নাস্তিও কী তবে নেইমারকে সে দৃষ্টিতেই দেখছেন? সময়ই বলে দেবে!

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন