গোলের পর পালমেইরাসের উচ্ছ্বাস।
গোলের পর পালমেইরাসের উচ্ছ্বাস।ছবি : রয়টার্স

দুই ব্রাজিলিয়ান ক্লাবের লড়াই ছিল গত রাতে। দক্ষিণ আমেরিকার সেরা ফুটবল ক্লাব হওয়ার লড়াই, কোপা লিবের্তাদোরেস। মাঠে মুখোমুখি হয়েছিল পেলে-নেইমারের সাবেক ক্লাব সান্তোস, পালমেইরাসের বিপক্ষে। যে পালমেইরাসে এককালে খেলে গিয়েছেন কাফু, রবার্তো কার্লোস, রিভালদোর মতো তারকারা। শেষমেশ হার মেনেছে পেলে-নেইমারদের সান্তোস। রুদ্ধশ্বাস ম্যাচ শেষে দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ের একমাত্র গোলে পালমেইরাস ১-০ গোলে হারিয়েছে সান্তোসকে।

নব্বই মিনিটের খেলা শেষ হওয়ার পর রেফারি আরও আট মিনিট অতিরিক্ত খেলা চালিয়েছেন। ম্যাচটা যে কতটা উত্তেজনাপূর্ণ হতে পারে, তা যেন ওই আট মিনিটে আরও বেশি করে বোঝা গেছে। ওই আট মিনিটেই হলুদ কার্ড দেখেছেন চারজন, লাল কার্ড একজন। যোগ করা সময়েরই একেবারে শেষ মুহূর্তে গোল করে পালমেইরাসকে জিতিয়ে দেন ব্রেনো লোপেস। গোটা ম্যাচে সান্তোস বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে থাকলেও গোলমুখের সামনে ভীতি জাগিয়েছে পালমেইরাসই।

বিজ্ঞাপন
default-image

ব্রেনো লোপেস মূল একাদশে ছিলেন না। ম্যাচের ৮৫ মিনিটে গ্যাব্রিয়েল মেনিনোর জায়গায় মাঠে নামানো হয় তাঁকে। পালমেইরাসের জার্সি গায়ে এটা লোপেসের দ্বিতীয় গোল। মাত্র দুটি গোল করেই ক্লাবের কিংবদন্তির মর্যাদা পেয়ে যাবেন এমনটা বোধ হয় ম্যাচের আগে কেউ ভাবেননি, লোপেস তো ননই! রিও ডি জেনিরোর বিখ্যাত মারাকানা স্টেডিয়ামের গ্যালারি করোনাভাইরাসের কারণে খালিই ছিল। বিশেষ বিবেচনায় মাত্র ৫০০ দর্শককে ঢুকতে দেওয়া হয়েছিল। তাঁরাই প্রত্যক্ষ করেছেন পালমেইরাসের ইতিহাস।

সান্তোস জিতলে চারটা লিবের্তাদোরেস জেতা হয়ে যেত তাদের। মহাদেশীয় পর্যায়ে ব্রাজিলের সবচেয়ে সফল ক্লাব হয়ে যেত তারা। কিন্তু পালমেইরাস সেটা হতে দেয়নি। উল্টো ২২ বছর পর নিজেদের ঘরে আরেকবার লিবের্তাদোরেসের শিরোপা ঢুকিয়েছে দলটা।

default-image

এদিকে ইউরোপের বড় ম্যাচে গত রাতে নেমেছিল আর্সেনাল ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। গোলশূন্য ড্র হয়েছে ম্যাচটা। গ্যাব্রিয়েল জেসুসের গোলে শেফিল্ড ইউনাইটেডকে ১-০ গোলে হারিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। জার্মান লিগে জয় পেয়েছে দুই বড় দল বায়ার্ন মিউনিখ ও বরুসিয়া ডর্টমুন্ড। হফেনহেইমকে ৪-১ গোলে হারিয়েছে চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন, অগসবুর্গের বিপক্ষে ডর্টমুন্ডের জয়টা ৩-১ গোলের।

ইতালিয়ান সিরি’আতে সাম্পদোরিয়াকে ২-০ গোলে হারিয়েছে জুভেন্টাস। বেনেভেন্তোকে ৪-০ গোলে হারিয়েছে ইন্টার মিলান।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন