default-image

ছুটি কাটাতে স্পেনে গিয়েছেন রোনালদো। সেখানে তাঁর শখের বুগাত্তি অন্যের বাড়ির দেয়ালও ধসিয়ে দিয়েছে। ছুটি শেষ করে যখন ফেরার কথা, তখনই এভাবে পারিবারিক কারণ দেখিয়ে তাঁর অনুশীলনে ফেরা এমনিতেই আলোচনার জন্ম দিত। এক মাস ধরে চলা গুঞ্জনের পর সেটা ‘টক অব দ্য টাউন’ হয়ে গেছে।

সেটা হওয়াটাই স্বাভাবিক। ক্যারিয়ারে কখনো চ্যাম্পিয়নস লিগ ফেলে ইউরোপা লিগে খেলতে হয়নি রোনালদোকে। এবার ইউনাইটেড খেলবে ইউরোপের দ্বিতীয় সেরা সেই লিগে। নিজের ‘লিগ্যাসি’ রক্ষা করার ব্যাপার আছে, আছে চ্যাম্পিয়নস লিগে সর্বোচ্চ গোলের ‘ইঁদুর দৌড়ে’ লিওনেল মেসির তাঁকে ছুঁয়ে ফেলার সম্ভাবনা। সেই সঙ্গে আছে ব্যালন ডি’অর ও ফিফা বেস্টের মতো পুরস্কারগুলোয় চ্যাম্পিয়নস লিগ প্রাধান্য পাওয়ার মতো ব্যাপার। পাঁচ বছর ধরে কোনো শিরোপা না জেতা ইউনাইটেড নতুন কোচের অধীন এই মৌসুমেই শিরোপা জিতবে, সে আশা রোনালদো দেখেন না বলেই জানা গেছে।

সব কিছু মিলিয়ে রোনালদো এবার ইউনাইটেড ছাড়তে চান। জুভেন্টাসে চ্যাম্পিয়নস লিগে জেতার ‘চ্যালেঞ্জ’ জয় করতে না পেরে গত মৌসুমে ইতালি ছেড়েছিলেন। ম্যানচেস্টার সিটির সঙ্গে চুক্তি প্রায় হয়েই গিয়েছিল, এ অবস্থায় তাঁকে দলে টেনেছে ইউনাইটেড। সাবেক দলকে নিয়ে কিছু জেতার স্বপ্ন মৌসুমের মাঝপথেই উবে গেছে রোনালদোর। নতুন কোচ টেন হাগের খেলার ধরনের সঙ্গে যান না বলে আগেই ক্লাব ছাড়ার একটা গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল। নতুন মৌসুম শুরু হওয়ার পর সেটা বাস্তবে রূপ নেবে বলে সবার ধারণা।

রোনালদো কাল অনুশীলনে ফেরেননি। এ খবর দিয়েছেন দলবদলের খবরের নিশ্চয়তা পাওয়ার জন্য নির্ভরযোগ্য সূত্র ফাব্রিজিও রোমানোর কাছে। ইতালিয়ান এই সাংবাদিক টুইট করেন, ‘নিশ্চিত জানা গেছে। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো “ব্যক্তিগত কারণে” আজ ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের অনুশীলনে ফিরছেন না। ক্লাব এ ব্যাখ্যা মেনে নিয়েছে। তাঁর ক্লাব ছাড়ার ইচ্ছার কথা ম্যান ইউনাইটেড জানে। কিন্তু তাদের অবস্থান পরিষ্কার—তাঁকে বিক্রি করা হবে না, ধরে রাখবে তারা।’

default-image

থাইল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ায় প্রাক্‌–মৌসুম প্রস্তুতির সফরে বের হবে ইউনাইটেড। এর আগেই দলবদল করে ঘর গুছিয়ে নেওয়ার ইচ্ছা কোচ টেন হাগের। কিন্তু রোনালদোর এভাবে অনুশীলনে ফিরতে দেরি করা বুঝিয়ে দিচ্ছে ইউনাইটেডে আদতেই ফিরতে চাইছেন না তিনি। রেড ডেভিলদের সঙ্গে এখনো এক বছরের চুক্তি আছে রোনালদোর। করোনাকালের প্রথম প্রাক্‌–মৌসুম সফরে রোনালদোর তারকাদ্যুতির সর্বোচ্চ ব্যবহার করতে চায় ইউনাইটেড।

ইউনাইটেড ছাড়তে না চাইলেও রোনালদোর মতো তারকাকে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধরে রাখা কঠিন। রোনালদোর এজেন্ট জোর্জে মেন্দেজ এ কারণে চেষ্টা চালাচ্ছেন, তাঁর মক্কেলকে এমন কোথাও নিতে যেখানে চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলা যাবে, লিগ শিরোপা জেতার দৌড়েও থাকা যাবে। সে সঙ্গে রোনালদোর উচ্চ বেতন দেওয়ার ব্যাপারও মাথায় রাখতে হচ্ছে।

সব মিলিয়ে রোনালদোকে নিতে পারে এমন ক্লাবের সংখ্যা অবশ্য কম। দলবদলের বাজারে এখন পর্যন্ত বায়ার্ন মিউনিখ ও চেলসির নামই শোনা যাচ্ছে। দলবদলের জন্য নির্ভরযোগ্য আরেক সূত্র সাংবাদিক ফাবিও গাত্তো বলেছেন, গত মৌসুমের মতো এ মৌসুমেও রিয়াল মাদ্রিদের কাছে রোনালদোর নাম প্রস্তাব করেছিলেন মেন্দেজ। কিন্তু রিয়াল এবারও বিনয়ের সঙ্গে সে প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছে। বায়ার্ন, ইন্টার মিলান ও এসি মিলানও নাকি রোনালদোকে পাওয়ার প্রস্তাবে আগ্রহ দেখায়নি। রোনালদোর কৈশোরের ক্লাব স্পোর্তিং আগ্রহী হলেও বেতন একটি বাধা।

সব মিলিয়ে যা ইঙ্গিত, নিজের পক্ষ থেকে ক্লাব ছাড়ার সর্বোচ্চ চেষ্টা করলেও রোনালদোকে হয়তো এবার ইউরোপে খেলার ভাগ্যই মেনে নিতে হবে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন