মেসিকে পেতে চেয়েছিল পিএসজি
মেসিকে পেতে চেয়েছিল পিএসজিছবি: এএফপি

সমস্যার সমাধান হয়েছে বলা যাচ্ছে না, তবে লিওনেল মেসি অন্তত আরও এক বছর বার্সেলোনায় থাকছেন। ফলে গত দুই সপ্তাহ ধরে চলা আলোচনাটা থেমে গেছে। মেসির পরবর্তী গন্তব্য কোন ক্লাব, সে আলোচনাও অন্তত ছয় মাসের জন্য পিছিয়ে গেছে। কিন্তু জানুয়ারিতে যখন এ আলোচনা ফিরবে, তখন ম্যানচেস্টার সিটির প্রতিদ্বন্দ্বী কিন্তু কমবে না। কারণ, প্রজন্মের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়কে পেতে আগ্রহ আছে পিএসজিরও।

default-image
বিজ্ঞাপন

পিএসজির ক্রীড়া পরিচালকের দায়িত্ব আবার বুঝে নিয়েছেন লিওনার্দো। ফ্রেঞ্চ দলকে ইউরোপ সেরা বানানোর প্রকল্পটা এখন তাঁর হাতে। সেটা করার জন্য শুধু নেইমার-এমবাপ্পেই যথেষ্ট নয়, সেটাও এত দিনে বুঝে গেছেন। তাই এবারের দলবদলে যখন মেসিকে কেনার একটা সুযোগ সৃষ্টি হয়েছিল, লোভী দৃষ্টিতে সে খবরে একবারের জন্যও নজর বুলিয়েছিলেন লিওনার্দো। কিন্তু বার্সেলোনা মেসিকে ছাড়তে রাজি হয়নি। গোঁ ধরে বসেছিল বাই আউট ক্লজের ৭০ কোটি ইউরোর জন্য। ফলে ম্যানচেস্টার সিটি মেসির সঙ্গে কথা প্রায় পাকাপাকি করেও নিতে পারেনি তাঁকে।

এখন লিওনার্দো জানাচ্ছেন, মেসিকে দলে টানার ইচ্ছে জেগেছিল তাঁরও। টেলেফুটের সঙ্গে কথোপকথনে অবশ্য কাজটা কঠিন ছিল সেটাও স্বীকার করে নিয়েছেন, ‘বর্তমানে আর্থিক যে পরিস্থিতি তাতে এটা খুবই জটিল ছিল। যখন বলা হলো মেসি দল ছাড়তে চায়, আমরা আগ্রহী হয়ে উঠেছিলাম। নিজেকে নিজেই প্রশ্ন করেছি, এটা কি আসলেই সম্ভব? এমন খেলোয়াড় তো আলোচনারই ঊর্ধ্বে।’

বিজ্ঞাপন

পিএসজির সমর্থকদের অবশ্য আশা বাঁচিয়ে রাখতে বললেন লিওনার্দো, ‘আমি জানি না অবশ্য। ডেভিড বেকহামও তো পিএসজিতে খেলে গেছেন, মেসিকেও কি প্যারিসে দেখা যেতে পারে? আমি জানি না। ফুটবলে শেষ পর্যন্ত সবাই সবকিছু জানে এবং সবকিছু এগিয়ে যায়।’

পালাবদলের খেলা অবশ্য পিএসজিতে এমনিতেও শুরু হয়ে। ক্লাবের ইতিহাসের সেরা ডিফেন্ডার থিয়াগো সিলভা এর মধ্যেই দল ছেড়েছেন। ইতিহাসের সর্বোচ্চ গোলদাতা এডিনসন কাভানিও বিদায় নিয়েছেন। এর মধ্যে সিলভার চুক্তি আরও এক বছর বাড়াতে চাইলেও কাভানিকে চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালের আগেই ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে লিওনার্দোর ভাষ্য, ‘এমন খেলোয়াড়ের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত সহজ না। এরা ক্লাবের জন্য সবকিছু করেছেন, সবার আদর্শ। বলা খুবই কঠিন, এক বছর নাকি তার বেশি না কম সময়ের জন্য চুক্তি হলে ভালো হতো। নাকি শেষ হওয়াটাই ভালো। এখন যারা আছে তারা বছরের শেষভাগে যা করেছে, দারুণ। আমরা এই দলটাকে ধরে রাখতে চাই।’

default-image
বিজ্ঞাপন

শুধু ধরে রাখলেই হচ্ছে না, নতুন খেলোয়াড়ও আনতে হবে পিএসজিকে। চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতার জন্য দলকে আরও শক্তিশালী করতে বলেছেন দলের মূল তারকাদের একজন কিলিয়ান এমবাপ্পে। করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে যাওয়া ফরম্যাটের সুবিধা নিয়ে প্রথমবারের মতো ফাইনাল খেললেও ভবিষ্যতে শিরোপা জিততে দলকে আরও গুছিয়ে আনা দরকার বলেই মনে হচ্ছে তাঁর। এখন লিওনার্দোর কাঁধেই সে ইচ্ছা পূরণের ভার।

মন্তব্য পড়ুন 0