বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তিশেষ এ বছরই। কোথায় যাবেন মেসি?
বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তিশেষ এ বছরই। কোথায় যাবেন মেসি?ছবি: রয়টার্স

প্রশ্নটা গত কয়েক মাস ধরেই উঠছে। বার্সেলোনার সঙ্গে বর্তমান চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর কোথায় যাবেন লিওনেল মেসি? অনেকে ধরেই নিয়েছেন, এ মৌসুম শেষে যখন তাঁর চুক্তির মেয়াদও শেষ হবে, তারপর আর বার্সায় থাকবেন না আর্জেন্টাইন তারকা। ওমর দা ফনসেকা তাঁদের একজন। পিএসজিতে খেলা এই আর্জেন্টাইন মনে করেন, মৌসুম শেষে ঠিকানাই পাল্টাবেন মেসি। তাঁর নতুন গন্তব্য প্যারিস ছাড়া অন্য কোথাও হতেই পারে না।

আগামী ২৪ জুন মেসি ৩৪ বছরে পা দেওয়ার দিন ছয়েক পর বার্সার সঙ্গে তাঁর বর্তমান চুক্তির মেয়াদ শেষ হবে। দলবদলের জন্য যেকোনো ক্লাবের সঙ্গে আলোচনাটা তার আগেই করতে পারেন মেসি। ১ জানুয়ারি থেকে এ ব্যাপারে বার্সার অনুমতি নেওয়ার প্রয়োজন নেই তাঁর। ১৯৮৬ সালে পিএসজির হয়ে ফরাসি লিগজয়ী সাবেক স্ট্রাইকার ফনসেকা মেসি ও পিএসজির কিছু বিষয় মিলিয়ে ফেলেছেন এর মধ্যে। তাতে তাঁর দৃঢ় বিশ্বাস, মৌসুম শেষে মেসির ঠিকানা আর ন্যু ক্যাম্প থাকছে না। ফ্রান্সে নতুন শুরু করতে ‘নিজেই নিজের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেবেন’ মেসি—এটাই বিশ্বাস ফনসেকার।

আর্জেন্টাইন মরিসিও পচেত্তিনো পিএসজির কোচ হয়ে আসার পর মেসি ও প্যারিসের ক্লাব ঘিরে গুঞ্জন বেড়েছে। সংবাদমাধ্যমে গুঞ্জন আছে, পচেত্তিনোর অধীনে খেলার আগ্রহ রয়েছে মেসির। ওদিকে তাঁর মতো খেলোয়াড়ের সঙ্গে কাজের আগ্রহ থাকবে না কোন কোচের! এদিকে আবার বর্তমান ঘর বার্সায়ও সময়টা মেসির ভালো যাচ্ছে না। আর্থিকভাবে ভীষণ সংকটে রয়েছে কাতালান ক্লাবটি। সভাপতি নির্বাচনও পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। এসব সংকটের মধ্যে মেসির চুক্তি নবায়ন নিয়ে এখনো কোনো কথা বা আলোচনা ওঠেনি ক্যাম্প ন্যুতে। সব মিলিয়ে মেসির ঠিকানা পাল্টানোর সম্ভাবনা একেবারেই কম নয়। তিনি নিজে এখনো এ নিয়ে খোলাখুলি কিছুই বলেননি। গত বছর আগস্টে একবার ক্লাব ছাড়তে চেয়েছিলেন মেসি। চুক্তি নিয়ে অনেক জল ঘোলা হওয়ার পর সিদ্ধান্ত পাল্টান। কিন্তু এখন জল ঘোলা করা কিংবা মেসির চুক্তি নবায়ন নিয়ে কথা বলবেন কে? বার্সার সভাপতি পদটাই তো খালি!

default-image
বিজ্ঞাপন

মেসিকে কেনার মতো সামর্থ্য আছে খুব কম ক্লাবের। পেট্রো ডলার সমৃদ্ধ পিএসজি সেসব ক্লাবের একটি। আগে মুখ ফুটে কিছু না বললেও এখন পিএসজির হর্তাকর্তারা মেসিকে কেনার ব্যাপারে ধীরে ধীরে মুখ খুলতে শুরু করেছেন। সেখানে আছেন মেসির দীর্ঘদিনের বন্ধু নেইমার। ব্রাজিল তারকার সঙ্গে ক্যারিয়ারের শেষ লগ্নে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াইয়ের সুযোগটা মেসির জন্য খুব খারাপ প্রস্তাব নয়! ফনসেকাও এসব বিষয়ে দুইয়ে দুইয়ে চার মিলিয়ে মেসির পিএসজিতে যাওয়ার ভালো সুযোগ দেখছেন। সংবাদমাধ্যম ‘আরএমসি’ কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নতুন এক তথ্যও দিলেন ফনসেকা, ‘হ্যাঁ, সুযোগ আছে। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যমে পড়েছি, মেসির পুরো পরিবার ফরাসি ভাষা শিখছে।’

পিএসজিতে তাঁর যাওয়ার সম্ভাবনা নিয়ে ৬১ বছর বয়সী সাবেক এ ফুটবলারের বক্তব্য সোজাসাপ্টাই, ‘সে আসবে। নিজেই নিজেকে এই চ্যালেঞ্জ দেবে। একবার ভেবে দেখুন পিএসজির হয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতেছে সে! শৈশবে কেউ যদি আমাকে বলত খেলার জন্য প্যারিসে যাচ্ছ—সেটা আমার কানে মধুবর্ষণ করত। আর্জেন্টাইনদের জন্য ফ্রান্স, প্যারিস—অন্য রকম জায়গা।’

default-image

পিএসজির ক্রীড়া পরিচালক লিওনার্দো এর আগে মেসিকে কেনার ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। এদিকে বার্সাও তাদের সেরা খেলোয়াড়টিকে ধরে রাখতে চায়। এ নিয়ে এর মধ্যেই পিএসজিকে দুকথা শুনিয়ে দিয়েছেন বার্সার সভাপতি পদপ্রার্থী হোয়ান লাপোর্তা। মেসিকে কেনার ব্যাপারে পিএসজির প্রকাশ্যে কর্থাবার্তা বলা বার্সার জন্য অপমানজনক মনে হচ্ছে লাপোর্তার কাছে। ফরাসি ক্লাবটি এর আগে নেইমারকে নিয়ে গেছে বার্সা থেকে। সব মিলিয়ে পিএসজির প্রতি পুরোনো একটা ক্ষোভ তো আছেই বার্সার!

গত সপ্তাহে মেসিকে পিএসজির কেনার প্রশ্নে লিওনার্দো বলেছেন, ‘মেসির মতো গ্রেট খেলোয়াড়দের সব সময়ই দলে টানতে চায় পিএসজি।’ এ নিয়ে স্পেনের জাতীয় সম্প্রচার প্রতিষ্ঠান ‘টিভিই’ তে লাপোর্তা পাল্টা বলেছেন, ‘আমি পড়েছি যে পিএসজির (আর্থিক বিবরণীতে) ক্ষতির কথা। অথচ তারা কীভাবে (মেসিকে কেনার মতো) এত বড় বিনিয়োগ করবে, সেটা নিয়ে আমরা এখানে কথা বলছি। যা-ই হোক, তাদের প্রতি আমার আহ্বান, আমরা একে অন্যের প্রতি সম্মান দেখানোর স্বার্থে তারা যেন বার্সাকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা না করে। আমরা এমন কিছু তো করিনি যেটা দেখে মৌসুমের মাঝপথে ওদের মেসিকে কেনার পরিকল্পনা করার কথা মনে হতে পারে।’

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন