বার্সেলোনার হয়ে একের পর এক সফল পেনাল্টি নিচ্ছেন মেসি।
বার্সেলোনার হয়ে একের পর এক সফল পেনাল্টি নিচ্ছেন মেসি। ছবি: রয়টার্স

২০১৮ বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে আইসল্যান্ডের বিপক্ষে মেসির নেওয়া পেনাল্টিটার কথা মনে আছে? সেটি থেকে গোল করতে পারেননি তিনি। যে পেনাল্টিতে গোল করতে পারলে হয়তো ড্র নয়, ম্যাচটা জিতেই মাঠ ছাড়তে পারত আর্জেন্টিনা।

কিংবা ২০১৪ সুপার কাপে আতলেতিকোর বিপক্ষে ওই পেনাল্টি বা ২০১২ সালে চ্যাম্পিয়নস লিগের মহাগুরুত্বপূর্ণ সেমিফাইনালে চেলসির বিপক্ষে নেওয়া পেনাল্টিটার কথা মনে পড়ে কী? এই দুই পেনাল্টিও মিস হয়েছিল। ২০১৬ কোপা আমেরিকার ফাইনালে চিলির বিপক্ষে শুটআউটে নিজের পেনাল্টি মিসটা হয়তো এখনো পোড়ায় মেসিকে।

বিজ্ঞাপন

সবকিছু মিলিয়ে জনমনে একটা ধারণা গড়ে উঠেছিল, মেসির দুর্বলতা হয়তো পেনাল্টিতে। সহজেই প্রতিপক্ষের একাধিক খেলোয়াড়কে কাটিয়ে গোল করতে অভ্যস্ত মেসি হয়তো গোল করার তথাকথিত সহজতম পন্থায় গোল করতে পছন্দ করেন না। কিন্তু কয়েক মাস ধরে এই ধারণা ভুল প্রমাণ করে যাচ্ছেন বার্সেলোনা ও আর্জেন্টিনার সবচেয়ে বড় এই তারকা।

default-image

রিয়াল বেতিসের বিপক্ষে সর্বশেষ লিগ ম্যাচেও সফলভাবে পেনাল্টি থেকে গোল করেছেন মেসি। এ নিয়ে মৌসুমে ক্লাব ও আন্তর্জাতিক ম্যাচ মিলিয়ে আধা ডজন পেনাল্টি গোল করা হয়ে গেছে মেসির। তাতে অবশ্য আরেক আলোচনার জন্ম নিয়েছিল। পেনাল্টি থেকে গোল করতে করতে যেন ‘ওপেন প্লে’ থেকে পেনাল্টিহীন গোল করতেই ভুলে গিয়েছিলেন মেসি! যদিও সে ‘খরা’ মিটেছে বেতিসের বিপক্ষেই। সেটা মিটলেও নজরে পড়ছে পেনাল্টি স্পট থেকে মেসির কার্যকারিতা। গত ২০ মাসে এ নিয়ে ১৪টি পেনাল্টি ঠিকঠাক নিয়েছেন মেসি। আর একের পর এক পেনাল্টি সাফল্যের মাধ্যমে নিজের করা একটা প্রতিশ্রুতিই রাখছেন তিনি।

কী সেই প্রতিশ্রুতি? ২০১৮ সালে কাতালোনিয়া রেডিওকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মেসি জানিয়েছিলেন, পেনাল্টির দিকে বিশেষ নজর দিচ্ছেন তিনি, ‘আমি পেনাল্টি নেওয়ার ক্ষেত্রে আরও বেশি কার্যকর হতে চাই। তা ছাড়া পেনাল্টি অনুশীলন করাও অনেক কঠিন। কারণ, ম্যাচের মধ্যে পেনাল্টি নেওয়া আর অনুশীলনে নেওয়া এক নয়।’

এ ঘোষণার পর থেকেই পেনাল্টি স্পটে দেখা যাচ্ছে অন্য এক মেসিকে। গত দুই বছরে মেসি পেনাল্টি মিস করেছেন মাত্র একটি, যা বার্সেলোনা ও আর্জেন্টিনার ভক্তদের জন্য স্বস্তি হয়েই এসেছে!

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0