আত্মঘাতী গোলে জিতেছে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল।
আত্মঘাতী গোলে জিতেছে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল। ছবি: রয়টার্স

কাতার বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে শুরুটা ভালো হলো না পর্তুগালের। জিতলেও সমর্থকদের মন জিততে পারেননি ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোরা। আজারবাইজানের বিপক্ষে ঘরের মাঠে ১-০ গোলের জয়ে ২০২২ বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব শুরু করেছে পর্তুগাল। কিন্তু এ গোল এসেছে প্রতিপক্ষের ভুলে—অর্থাৎ আত্মঘাতী গোল।

ম্যাচের ৩৭ মিনিটে ম্যাকসিম মেদভেদেভের আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যায় পর্তুগাল। এ গোল পুঁজি করে শেষ পর্যন্ত জয় তুলে নেয় তারা। গোলরক্ষক শাহরুদ্দিন মাহামাদালিয়েভের সঙ্গে ভুল–বোঝাবুঝির খেসারত হিসেবে আত্মঘাতী গোল হজম করতে হয় মেদভেদেভকে। করোনার প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় ম্যাচটি পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয়নি। জুভেন্টাস স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত এ ম্যাচ থেকে পূর্ণ ৩ পয়েন্ট তুলে নিতে পেরেছে পর্তুগাল।

বিজ্ঞাপন

গোটা ম্যাচে দাপট ছড়িয়েছে পর্তুগাল। রোনালদো নিজে ৮টি শট নিয়ে গোলপোস্টে রাখতে পেরেছেন ৩টি শট। পুরো ম্যাচে আজারবাইজানের গোলপোস্ট লক্ষ্য করে ২৯টি শট নেন পর্তুগালের খেলোয়াড়েরা। এর মধ্যে ১৪টি শট পোস্টে রাখতে পেরেছেন তাঁরা। ফ্রি কিক থেকে একবার গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন রোনালদো।

default-image

ম্যাচের শেষ দিকে সে সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি জুভেন্টাস তারকা। প্রতিপক্ষ গোলরক্ষকের দৃঢ়তায় আশাহত হন রোনালদো। ব্রুনো ফার্নান্দেজ ও হোয়াও ফেলিক্সের প্রচেষ্টাও রুখে দেন আজারবাইজান গোলরক্ষক মাহামাদালিয়েভ।

আজারবাইজানের বিপক্ষে রোনালদো গোল না পেলেও একেবারে খারাপ খেলেননি। ৫৯ বার বল পেয়ে ৩টি সুযোগ তৈরি করেন জুভেন্টাস ফরোয়ার্ড। তবে নিজের ক্লাবের মাঠে এ নিয়ে সর্বশেষ চার ম্যাচের মধ্যে দুবার হতাশা নিয়ে ফিরতে হলো রোনালদোকে। রোববার বেনেভেন্তোর বিপক্ষে ১-০ গোলে হারে জুভেন্টাস।

আন্তর্জাতিক ফুটবলে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড ভাঙতে আর ৭ গোল চাই রোনালদোর। ১০৯ গোল নিয়ে সবার ওপরে ইরানের সাবেক স্ট্রাইকার আলী দাইয়ি।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন