default-image

বলটা জালে ঢুকতেই দৌড়ে জার্সি খুলে ফেললেন চিলির ফুটবলার সানচেজ। সঙ্গে সঙ্গে নেচে উঠল সান্তিয়াগো। কোপার ইতিহাসে প্রথমবারের মতো বিজয়ীর মুকুট মাথায় তুলল দেশটি। আর্জেন্টিনার জন্য ছিল ২২ বছরের অপেক্ষা ঘোচানোর পালা আর চিলির জন্য ছিল নিজ মহাদেশের সেরার স্বীকৃতি আদায়ের সুযোগ। সুযোগটা আরও বেশি হাতছানি দিচ্ছিল কারণ এবারের আসরের স্বাগতিক তারাই। সেই চিলিরই জয় হলো। দেশের জার্সি গায়ে কোনো ট্রফিতে হাত রাখার আজন্ম সাধ আজ পূরণ হলো দেশটির।

বাংলাদেশ সময় শনিবার দিবাগত রাত দুইটায় শুরু হওয়া ম্যাচটিতে ছিল জমজমাট উত্তেজনা। তবে নির্ধারিত ৯০ মিনিট ও অতিরিক্ত ৩০ মিনিটেও প্রতিপক্ষের জালে বল ঢুকাতে পারেনি কোনো দল। অবশেষে টাইব্রেকারেই নির্ধারিত হয় ম্যাচের ফলাফল। পেনাল্টি শ্যুট আউটে গোল করতে ব্যর্থ হয় আর্জেন্টিনার হিগুয়েন ও বানেগা। তবে চারটি শর্ট থেকে চারটিই গোল করে চিলির খেলোয়াড়েরা। ৪-১ ব্যবধানে ম্যাচ জিতে চ্যাম্পিয়ন হয় চিলি।

এর আগে আক্রমণ পাল্টা আক্রমণে দুই দলই দারুণ অ্যাটাকিং ফুটবল উপহার দিয়েছে দর্শকদের। তবে প্রথমার্ধের চেয়ে দ্বিতীয়ার্ধে কিছুটা অগোছালো ফুটবল খেলেছে দুই দলই। খেলার ১০ মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারত স্বাগতিকেরা। তবে ভিদালের শর্ট দারুণভাবে রুখে দেয় আর্জেন্টিনার গোলরক্ষক রোমেরো। ২৮ মিনিটেও দারুণ এক সুযোগ পেয়েছিল চিলি। তবে গোলরক্ষককে একা পেয়েও গোল করতে পারেনি চিলির খেলোয়াড় ভার্গাস। দ্বিতীয়ার্ধের ৮১ মিনিটেও দারুণ এক সুযোগ হাতছাড়া করেছেন চিলিয়ান তারকা অ্যালেক্সিস সানচেজ।

default-image

সুযোগ পেয়েছিল আর্জেন্টিনাও। ১৮ মিনিটে ডি-বক্সের ডান পাশ থেকে নেওয়া মেসির ফ্রি কিক আটকে দেয় চিলির গোলরক্ষক ব্রাভো। খেলার ৪৬ মিনিটেও দারুণ একটি সেভ করেন চিলির এই অধিনায়ক। ৯২ মিনিটে খেলার শেষ বাজি বাজার ঠিক আগ মুহূর্তে মেসির বাড়িয়ে দেওয়া পাশ ও লাভেজ্জির ক্রস থেকে গোল করতে ব্যর্থ হয় হিগুয়েন। এ ছাড়া খেলার প্রথমার্ধের ২৮ মিনিটেই পায়ের মাংসপেশিতে টান লেগে মাঠ ছাড়তে হয় আর্জেন্টাইন খেলোয়াড় ডি মারিয়ার। অতিরিক্ত সময়ে দুই দলই অনেকগুলো সুযোগ তৈরি করলেও গোল করতে পারেনি কোনো দল।

একটি ট্রফ্রির জন্য মরিয়া ছিলেন মেসি। ফাইনালের আগে বলেছিলেন, ‘আমাদের এই প্রজন্মটা দেশের হয়ে একটা ট্রফি জেতার জন্য মরিয়া। সত্যি বললে, আমাদের এই দলটার এখন একটা ট্রফি প্রাপ্য। গত বছর বিশ্বকাপে পারিনি, আশা করি এবার কোপায় পারব।’ তবে আজ পুরোটা সময়জুড়ে অনেকটা নিষ্প্রভ ছিল আর্জেন্টাইন তারকা মেসি। মেসি, আর্জেন্টিনা ও আর্জেন্টিনার সমর্থকদের অপেক্ষা বাড়ল আরও।

default-image
বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0