default-image

ফুটবল অঙ্গনের সবার জন্যই টিকা নিশ্চিত করতে চায় বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। সেই লক্ষ্যে নেওয়া হয়েছে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ। দেশের ফুটবলের অভিভাবক সংস্থাটি প্রায় ৩ হাজার জনের তালিকা পাঠাচ্ছে সরকারের কাছে। যার প্রথম থাপে আজ পাঠানো হলো ১ হাজার ৬৮১ জনের তালিকা।

যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় গত সপ্তাহে বাফুফের কাছে তালিকা চেয়ে চিঠি দিয়েছিল। সেটারই অংশ হিসেবে আজ প্রথম ধাপের তালিকা পাঠানো হলো জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের কাছে।

এরই মধ্যে নিজ উদ্যোগে করোনার টিকা নিয়েছেন বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। বাফুফের দুজন সহসভাপতিও নিয়েছেন টিকা। এখন পর্যায়ক্রমে সবাইকেই আনা হবে টিকার আওতায়।

১ হাজার ৬৮১ জনের তালিকায় রাখা হয়েছে ছেলেদের জাতীয় দল, জাতীয় নারী ও বয়সভিত্তিক দল এবং সর্বশেষ নারী ফুটবল লিগের সব দলের খেলোয়াড়দের। বাফুফের নির্বাহী কমিটির সব সদস্য, বাফুফে এবং তাদের অধীনে থাকা মহানগরী লিগ কমিটির সব কর্মকর্তা-কর্মচারী, বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ও চ্যাম্পিয়নশিপ লিগে ক্লাবগুলোর খেলোয়াড়েরাও আছেন তালিকায়।

বিজ্ঞাপন
আমরা সবার নামই দিয়েছি। অগ্রাধিকার নির্ধারণ করিনি।
আবু নাইম, বাফুফের সাধারণ সম্পাদক

বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম প্রথম আলোকে বলেছেন, ‘মন্ত্রণালয় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আমাদের কাছে তালিকা চেয়েছিল। তবে আমরা সবার নামই দিয়েছি। অগ্রাধিকার নির্ধারণ করিনি। সরকার যদি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নাম চায় তাহলে জাতীয় দল, নারী দলসহ আরও কয়েকটি দলকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা দিতে অনুরোধ করা হবে। তবে আমরা চাই ফুটবল অঙ্গনের সবাই করোনার টিকার আওতায় আসুক। কারণ, সবাইকে নিয়েই আমাদের চলতে হবে।’

আগামী সপ্তাহে আরও ১ হাজার ২০০ জনের তালিকা সরকারের কাছে পাঠাবে বাফুফে। ওই তালিকায় বিভিন্ন দলের কোচ, কর্মকর্তা, জেলা ও বিভাগীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (ডিএফএ) সভাপতি, দ্বিতীয়, তৃতীয় বিভাগের দলগুলোসহ আরও কিছু নাম দেওয়া হবে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন