আগামীকাল এই তিন সতীর্থের কাউকেই পাবেন না রামোস।
আগামীকাল এই তিন সতীর্থের কাউকেই পাবেন না রামোস। ছবি: রিয়াল মাদ্রিদ

বহু দিন পর একটু প্রভাব দেখিয়ে খেলতে দেখা গেছে রিয়াল মাদ্রিদকে। এর পেছনে চোট কাটিয়ে ফেরা এডেন হ্যাজার্ডের অবদানই দেখেন সবাই। মাঠে এই বেলজিয়ান উইঙ্গারের উপস্থিতি রিয়ালের আক্রমণের ধার বাড়িয়ে দেয়। জমাট রক্ষণেও ফাঁক বের করে নিতে জানেন হ্যাজার্ড। আর বহু দিন ধরেই রিয়াল মাদ্রিদের মাঝমাঠকে জমাট রেখে রক্ষণে ছায়া দেওয়ার কাজটা করছেন কাসেমিরো। একসঙ্গে এ দুজনকে হারানো মানেই মহা বিপদে পড়ে যাওয়া। করোনাভাইরাস তেমন বিপদেই ফেলল রিয়াল মাদ্রিদকে।

গত সপ্তাহের শুরুতেই করোনাভাইরাস ধরা পড়েছিল রিয়াল মাদ্রিদের ড্রেসিংরুমে। লা লিগায় উয়েস্কার বিপক্ষে খেলার পরই করোনা ধরা পড়ে দলটির ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার এদের মিলিতাওর শরীরে। টানা দুই পরীক্ষায় মিলিতাও ছাড়া অন্যদের শরীরে করোনা শনাক্ত না হওয়ায় পূর্ণ শক্তির স্কোয়াড নিয়েই চ্যাম্পিয়নস লিগে খেলতে পেরেছিল রিয়াল। কিন্তু সে স্বস্তি টিকল না বেশি দিন। গতকাল নিয়মিত করোনা পরীক্ষায় পজিটিভ ফল পেয়েছেন কাসেমিরো ও হ্যাজার্ড।

বিজ্ঞাপন
default-image

এ ব্যাপারে আজ বাংলাদেশ সময় বিকেল চারটার পর নিজস্ব ওয়েবসাইটে এক বিবৃতিতে খবরটি নিশ্চিত করেছে রিয়াল মাদ্রিদ। বিবৃতিতে ক্লাব কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ‘আমাদের খেলোয়াড় কাসেমিরো এবং হ্যাজার্ড গতকাল শুক্রবার সকালে নেওয়া পরীক্ষায় কোভিড-১৯ পজিটিভ হয়েছেন। মূল দলের বাকি সব খেলোয়াড় ও কোচিং স্টাফ এবং তাঁদের সঙ্গে সরাসরি কাজ করেন ক্লাবের এমন কর্মকর্তাদের সবার করোনা পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছে। আজ সকালেও সবার করোনা পরীক্ষা করা হলে কাসেমিরো ও হ্যাজার্ড ছাড়া বাকি সবার পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছে।’

default-image

আগামীকাল লা লিগায় ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ রিয়ালের। প্রতিপক্ষের মাঠে রিয়াল রক্ষণকে বাঁচানোর দায়িত্বটা কাসেমিরোর কাঁধেই ছিল। আর কোনো রক্ষণাত্মক মিডফিল্ডারও নেই রিয়ালে। এমন অবস্থায় আগামীকাল দল সাজাতে বড় বিপদেই পড়বেন কোচ জিনেদিন জিদান।

কাসেমিরোর এভাবে করোনায় আক্রান্ত হওয়াটা ব্রাজিল দলেও প্রভাব ফেলবে। ১৩ ও ১৭ নভেম্বর ভেনেজুয়েলা ও উরুগুয়ের বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে খেলবে ব্রাজিল। মিলিতাওর পর কাসেমিরোকেও এই দুই ম্যাচে খেলতে দিচ্ছে না করোনা, ব্রাজিল কোচ তিতের দুশ্চিন্তাও বাড়ছে নতুন করে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0