বার্সেলোনার অনুশীলনে আর দেখা যাবে লিওনেল মেসিকে? জবাবটা সময়ই বলে দেবে। আপাতত সব জায়গায় তাঁর সম্ভাব্য গন্তব্যের খবর চাউর। স্পেন ও ইংল্যান্ডের সংবাদমাধ্যমগুলোতে বলা হচ্ছে সম্ভাব্য গন্তব্য হিসেবে ম্যানচেস্টার সিটির সঙ্গে কথাও হয়ে গেছে মেসির। বার্সেলোনা ছাড়তে যা যা করার তার প্রায় সবই করছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

সে ধারাবাহিকতাতেই এবার ফিফার দ্বারস্থ হলেন মেসি। বিশ্বের অন্যতম বড় স্পোর্টস নেটওয়ার্ক বেইন স্পোর্টসের ক্রীড়া সাংবাদিক ত্রানকেদি পালমেরি টুইট করে জানিয়েছেন, ফিফার কাছে দলবদলের প্রাথমিক অনুমতিপত্র চেয়েছেন তিনি। যেখানে তিনি উল্লেখ করেছেন কোনো ঝামেলা ছাড়াই যেন দ্রুত ক্লাব ছাড়ার বিষয়টা নিষ্পত্তি করা হয়। আর ফিফার কাছে এ ছাড়পত্রের অনুমতি চাওয়ার মানে হলো, এ প্রক্রিয়ায় বিনা মূল্যে অন্য কোনো দলে যেতে পারবে।

বার্সেলোনা ছেড়ে মেসি শেষ পর্যন্ত কোথায় যাবেন যদিও তা এখনই নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না। অবশ্য বিভিন্ন সময়ে ম্যানচেস্টার সিটি, ইন্টার মিলান, পিএসজির সঙ্গে জড়িয়ে মেসির গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। অবশ্য স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক মার্কা বলছে মেসির পিএসজিতে যাওয়ার সম্ভাবনা খুব কম। কারণ পিএসজি এই মুহূর্তে মিলিয়ন ডলার দিয়ে মেসিকে কিনতে চাইছে না। চ্যাম্পিয়নস লিগের রানার্সআপরা নেইমার, এমবাপ্পেকে কিনতে অনেক খরচ করে ফেলেছেন।

বিজ্ঞাপন

মেসি চাইলেও বার্সা এই মুহূর্তে তাকে ছাড়তে রাজি হচ্ছে না। এখানেও রয়েছে অনেক জটিলতা। বার্সার বোর্ড আর মেসির মধ্যে লড়াইটা হয়তো আদালতে গিয়ে গড়াতে পারে। কিন্তু এর আগেই ফিফার দ্বারস্থ হয়ে নির্বিঘ্নে ক্লাব ছাড়তে চাইছেন মেসি। আপাতত এখন পর্যন্ত জানা গেছে, বার্সার ক্রীড়া পরিচালক র‌্যামন প্লানেস জানিয়েছেন মেসি বার্সার সঙ্গে অনুশীলন করবেন না সে কথা বলেননি, ‘মেসি যে অনুশীলনে আসবে না সে কথা তো আমাদের জানায়নি।’

প্লানেস জানালেন, মেসির সঙ্গে বর্তমান অচলায়তন ভাঙতে ভেতরে-ভেতরে কাজ করছে বার্সা, ‘আরও একবার বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়কে নিয়ে ঘুরে দাঁড়াব। আমরা তাঁর চুক্তিতে কোনো শর্ত নিয়ে ভাবছি না। বার্সা ও লিওর সম্পর্কটা বিয়ের মতো। যেখানে দুজন দুজনকেই কত কিছু দিয়েছে, আর সমর্থকদের আনন্দে ভাসিয়েছে। আমি ইতিবাচক ভবিষ্যৎই দেখছি। আমরা ভেতরে-ভেতরে মেসির মন ঠিক করার চেষ্টা করছি যেন সেরা সমাধানটা বেরিয়ে আসে।’

মন্তব্য করুন