বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দুই বছরে জুভেন্টাসের অর্জনের ভান্ডারে একটি লিগ আর কোপা ইতালিয়া যোগ হয়েছে। চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ের স্বপ্ন থেকে দিন দিন আরও দূরে সরেছে তুরিনের বুড়িরা। ফলে দলের অবস্থা পরিবর্তনের জন্য এর মধ্যে বেশ কিছু পদক্ষেপ নিচ্ছে জুভেন্টাস। যে আলেগ্রি দলে রোনালদোকে চাননি, সে আলেগ্রিই আবার ফিরছেন জুভেন্টাসে। আন্দ্রেয়া পিরলোর জায়গায় নতুন কোচ হিসেবে আনা হচ্ছে তাঁকে। ফলে প্রশ্নটা উঠেই গেছে, রোনালদো কি জুভেন্টাসে থাকছেন?

রোনালদো যে জুভেন্টাসকে কিছু দেননি, তা নয়। গতবারও জুভেন্টাসকে লিগ জিতিয়েছেন। এবার লিগ না জিতলেও জিতেছেন কোপা ইতালিয়া, হয়েছেন দলের সর্বোচ্চ গোলদাতা। কিন্তু রোনালদোকে দলে আনার পেছনে জুভেন্টাসের মূল উদ্দেশ্য তো লিগ বা কাপ ছিল না! ছিল চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়। সে লক্ষ্যে রোনালদো যে বেশ মোটাদাগেই ব্যর্থ, সেটা বলা যায়। রোনালদো দলে যোগ দেওয়ার আগে যে দলটা তিন মৌসুমে দুবার চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে উঠেছিল, সে দলটা ফাইনালে ওঠা তো দূরে থাক, টানা তিনবার বাদ পড়েছে দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে। জুভেন্টাসের খেলার ধরনও আশা জাগায় না সমর্থকদের মধ্যে। ফলে আলেগ্রির আশঙ্কা সত্যি হচ্ছে, কথাটা বলা যেতেই পারে।

default-image

এদিকে করোনার কারণে দলের আর্থিক অবস্থাও যে খুব ভালো, বলা যায় না। এ অবস্থায় বিশাল বেতনে রোনালদোকে রাখাটা কতটুকু যুক্তিযুক্ত, সেটা নিয়ে প্রশ্ন উঠে গেছে। লিগ হারার বিষয়টাও আছে। চ্যাম্পিয়নস লিগের ব্যর্থতার সঙ্গে লিগ হারের ব্যর্থতাও যোগ হয়েছে এখন।

রোনালদোকে দলে আনার পেছনে যে ক্রীড়া পরিচালকের ভূমিকা ছিল সবচেয়ে বেশি, সেই ফাবিও পারাতিচিকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে কদিন আগে। পারাতিচিই আরেক পরিচালক জিউসেপ্পে মারোত্তার সঙ্গে একরকম লড়াই করে জুভেন্টাসে এনেছিলেন রোনালদোকে। পরে জুভেন্টাস ছেড়ে ইন্টারের ক্রীড়া পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব নেন মারোত্তা, যে ইন্টার এবার জুভেন্টাসের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়েছে লিগ শিরোপা।

পারাতিচির জায়গায় দলে নতুন ক্রীড়া পরিচালক হিসেবে পদোন্নতি দেওয়া হচ্ছে ফেদেরিকো চেরুবিনিকে। চেরুবিনি সেই ২০১২ থেকেই জুভেন্টাসে আছেন, বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করেছেন। সম্প্রতি ছিলেন পারাতিচির অধীনে। পারাতিচি যাওয়ার ফলে তাঁর মূল ক্রীড়া পরিচালক হওয়ার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

default-image

ফলে এ ব্যাপারও রোনালদোর জুভেন্টাসে না থাকার বিষয়টাকে জোরালো করছে আরও। ‘স্পোর্তস মিদিয়াসেত’ জানিয়েছে, পারাতিচির বিদায় ও আলেগ্রির পুনরাগমন জুভেন্টাসে রোনালদোর বিদায়টা ত্বরান্বিতই করছে শুধু। দলটার সঙ্গে রোনালদোর চুক্তি আছে আরও এক বছর। ওই এক বছর রোনালদো জুভেন্টাসে টিকবেন কি না, স্পোর্তস মিদিয়াসেতের বক্তব্য মানলে বলতে হয়, সে সম্ভাবনা ক্ষীণ।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন