গ্যালারির দর্শকধারণক্ষমতা ছিল ১০ হাজার। কিন্তু লোক ছিল তার কয়েক গুণ। ঢুকতে না পেরে অনেকে স্টেডিয়ামের ফটক ভেঙে ঢোকার চেষ্টা করে। পুলিশ তখন কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা চালায়। আতঙ্কিত দর্শক হুড়োহুড়ি করে বেরিয়ে যাওয়ার সময় ঘটে অঘটন। পিষ্ট হয়ে মারা গেছেন অন্তত ১৯ জন দর্শক। পরশু কায়রোর এয়ারডিফেন্স স্টেডিয়ামে ঘটেছে এ মর্মান্তিক ঘটনা।
মিসরের স্থানীয় ফুটবল ক্লাব জামালেক ও এনপিপিআইয়ের ম্যাচে হয়েছে এই দুঃখজনক ঘটনা। মাঠে ঢুকতে না পেরে পুলিশের গাড়ি জ্বালিয়ে দেয় ক্ষুব্ধ সমর্থকেরা। কর্তৃপক্ষের দাবি, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছিল বলেই ছুড়তে হয়েছে কাঁদানে গ্যাস। তবে জামালেক সমর্থকদের একাংশ পরে দাবি করেছে, পুলিশ কোনো উসকানি ছাড়াই কাঁদানে গ্যাস ও গুলি ছুড়েছে। এ ঘটনার পর মিসরের সব ফুটবল ম্যাচ স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে।
মিসরে অবশ্য ফুটবল মাঠে এ ধরনের ঘটনা নতুন কিছু নয়। ২০১২ সালে পোর্ট সৈয়দ স্টেডিয়ামে দর্শক দাঙ্গায় প্রাণ যায় ৭০ জনের। এএফপি।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন