বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

মাঠে অনুশীলন করছেন আবাহনী লিমিটেডের ফুটবলাররা, আর মাঠের টাচ ও গোললাইন ঘেঁষে দাঁড়িয়ে থাকা ক্লাবের সাবেক খেলোয়াড় ও পাঁড় সমর্থকদের সবার মুখেই কলিনদ্রেস। অনুশীলন শুরুর আগে কোচিং স্টাফদের কাছেও দলের খেলোয়াড়দের কৌতূহলী প্রশ্ন—কলিনদ্রেস কি আমাদের দলে আসছেন? কোচদের ভাষ্য থেকে বোঝা গেল, কয়েক দিন ধরে মাথাচাড়া দেওয়া গুঞ্জন অবশেষে সত্যি হয়েছে। আবাহনী লিমিটেডের হয়ে ঢাকায় আসছেন কোস্টারিকার ৩৬ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড।

কোস্টারিকার ক্লাব দেপোর্তিভো সাপরিসার সঙ্গে কলিনদ্রসের চুক্তিটা ছিল ২০২২ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত। কিন্তু ক্লাবের মৌখিক ছাড়পত্রের অনুমতি নিয়ে আবাহনীর সঙ্গে ব্যক্তিগত চুক্তির কাজটা সেরে ফেলেছেন কলিনদ্রেস। আনুষ্ঠানিকতার বিষয়টি ঝুলে ছিল তাঁর ক্লাব দেপোর্তিভো সাপরিসার ছাড়পত্রের ওপর। সেই ছাড়পত্র আজ পাওয়া গিয়েছে বলে কোস্টারিকা থেকে জানিয়েছেন কলিনদ্রসের এক ঘনিষ্ঠ সূত্র। আবাহনীর হয়ে খেলতে আর কোনো বাধা নেই তাঁর।

default-image

যদিও আবাহনী এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু বলতে নারাজ। ক্লাবের ম্যানেজার সত্যজিৎ দাস রুপু বলেন, ‘কলিনদ্রেসের সঙ্গে আমাদের কথাবার্তা খুব কাছাকাছি পর্যায়ে। তবে আমরা এখনই আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু বলতে পারছি না।’ আপাতত কালই ক্লাবটির হয়ে শেষ ম্যাচ খেলে ফেলেছেন বলে জানা গেছে।

বিশ্বকাপ খেলা এই ফুটবলারকে নতুন করে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার কিছু নেই। কলিনদ্রেসকে বাংলাদেশের মানুষের কাছে পরিচয় করিয়ে দিয়েছে বসুন্ধরা কিংস।

default-image

২০১৮ সালে কলিনদ্রেসকে দলে ভিড়িয়ে বড় একটা চমক উপহার দেয় সেবারের নবাগত ক্লাবটি। রাশিয়া বিশ্বকাপ খেলার তাজা অভিজ্ঞতা নিয়ে বাংলাদেশে আসেন তিনি। বিশ্বকাপে খেলা ফুটবলারের ভালো-মন্দ নিয়ে প্রশ্ন তোলার সাহস কারও ছিল না। শুধু দেখার বিষয় ছিল এই দেশের ফুটবল আবহাওয়ার সঙ্গে কতটা মানিয়ে নিতে পারেন তিনি। সেটি ভালোভাবে পেরেছিলেন, প্রতিটি ম্যাচে নিজের সামর্থ্যের জানান দিয়েছেন।

২০১৯ সালে বিদায় নেওয়ার আগে কলিনদ্রেসে চড়ে দুই মৌসুম মিলিয়ে তিনটি শিরোপা জয় বসুন্ধরার—প্রিমিয়ার লিগ, স্বাধীনতা কাপ ও ফেডারেশন কাপ। কলিনদ্রেসের মাথায় উঠেছে লিগ ও ফেডারেশন কাপে সেরা খেলোয়াড়ের মুকুট। সব মিলিয়ে ৪৮ ম্যাচ খেলে গোল করেছেন ২৬টি। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে চুক্তি শেষে কলিনদ্রেসও তাঁর দেশে ফিরে গেছেন। এবার আবার বাংলাদেশে ফিরছেন আবাহনীতে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন