বার্সার সতীর্থদের থেকে এখনো ‘লিভ’ নেননি মেসি

এই জুটি আর হয়তো দেখা যাবে না!
এই জুটি আর হয়তো দেখা যাবে না! ছবি : এএফপি
বিজ্ঞাপন

মেসি-বার্সেলোনা দ্বন্দ্ব জটিল আকার ধারণ করছে। একদিকে মেসি ক্লাব ছাড়তে চাইছেন, অন্যদিকে বার্সেলোনার নিজেদের সেরা খেলোয়াড়কে ছাড়ার বিন্দুমাত্র ইচ্ছা নেই। একদিকে জানা যাচ্ছে, মেসিকে নিতে আগ্রহী ক্লাবকে দিতে হবে ৭০ কোটি ইউরো। ওদিকে জানানো হচ্ছে, রিলিজ ক্লজের শর্তের মেয়াদ শেষ, মেসি চাইলেই ক্লাব ছাড়তে পারবেন। এর মধ্যে স্প্যানিশ লিগ কর্তৃপক্ষ বার্সেলোনার পক্ষে নিজেদের অবস্থান জানান দিয়েছে। লা লিগাও আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়ে দিয়েছে মেসির রিলিজ ক্লজ ৭০ কোটি। এর এক টাকা (কিংবা ইউরো) কমেও নাকি বার্সেলোনার অনুমতি ছাড়া কারও পক্ষে মেসিকে নেওয়া সম্ভব নয়!

ফলে প্রতি মুহূর্তে মেসি নাটকের নতুন পর্ব মুক্তি পাচ্ছে। এ যেন নেটফ্লিক্স বা অ্যামাজনের যেকোনো থ্রিলারকেও হার মানায়। এর মধ্যেই মেসির সতীর্থ, ডাচ মিডফিল্ডার ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং জানিয়েছেন, বার্সা খেলোয়াড়দের 'হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ' থেকে এখনো বিদায় নেননি মেসি।

বার্সেলোনা ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন লিওনেল মেসি। কিন্তু দলের খেলোয়াড়দের নিজেদের মধ্যে আড্ডা দেওয়ার হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ এখনো ত্যাগ করেননি তিনি
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

টুকটাক কথা বলার জন্য বা চ্যাটিং করার জন্য অনলাইনে 'হোয়াটসঅ্যাপ' এর জনপ্রিয়তা অনেক। এসএমএস যুগ থেকে বেরিয়ে এসে অনেকেই এখন হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করেন। শুধুমাত্র দুজনের মধ্যেই নয়, চাইলে হোয়াটসঅ্যাপে গ্রুপ করেও একাধিক মানুষ নিজেদের মধ্যে কথাবার্তা চালিয়ে যেতে পারেন। যার থাকতে ইচ্ছে হবে না, সে চাইলে গ্রুপ থেকে লিভও নিতে পারবে, অর্থাৎ চলে যেতে পারবে। এমন এক হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ আছে বার্সেলোনার খেলোয়াড়দের মধ্যেও। তাঁরা নিজেরা নিজেরা সে গ্রুপে কথা বলেন, ভাব বিনিময় করেন। বার্সা তারকা ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং জানিয়েছেন, ক্লাব ছাড়ার ইচ্ছের কথা জানালেও মেসি এখনো হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে 'লিভ' নেননি।

দেশের হয়ে ইতালি ও পোল্যান্ডের বিপক্ষে খেলার জন্য এখন জাতীয় দলের ক্যাম্পে আছেন ডি ইয়ং। সেখানেই ফক্স স্পোর্টসকে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন তিনি। মেসির গ্রুপে থাকার কথা সেখানেই জানিয়েছেন, 'আশা করব আমি যখন বার্সায় ফিরব (জাতীয় দলের দায়িত্ব শেষে) তখন যেন মেসি থাকে। কিন্তু দিন শেষে এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার এখতিয়ার আমার নেই। তবে মেসি এখনো হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ চ্যাটে আছে আমাদের সঙ্গে। ও ক্লাব ছাড়বে কি না এ নিয়ে আমি কিছু জানি না, ওর সঙ্গে এ নিয়ে কথা বলার জন্য আমি কেউ না। এ নিয়ে কথা বলার জন্য বা কাজ করার জন্য ওর আলাদা মানুষ আছে।'

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বার্সা তারকারা এর মধ্যেই অনুশীলন শুরু করে দিয়েছে। অনুশীলন শুরুর আগের দিন দুপুর সোয়া দুইটায় (বার্সেলোনায় সকাল সোয়া দশটা) করোনাভাইরাসের পিসিআর টেস্ট নেওয়ার কথা ছিল মেসির। আগেই জানিয়েছিলেন, এই টেস্ট করার কোনো ইচ্ছেই নেই তাঁর, কেননা তিনি ক্লাব ছাড়তে চাচ্ছেন। সেটি আরেকটু নিশ্চিত করে মেসি আসলেই টেস্ট করাতে আসেননি। পরে কোনো অনুশীলনেও দেখা যায়নি মেসিকে।

ডি ইয়ংয়ের আশা হয়তো আর পূরণ হওয়ার নয়!

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন