নেইমার।
নেইমার।ছবি : রয়টার্স

নায়ক নায়িকার দিকে ছুটছেন। নায়িকা নায়কের দিকে। একটু ধীরগতির দৌড়, ‘স্লো মোশন’ বা সিনেমার কারিগরি ভাষায় ‘স্লো মো’ বলা হয় সে দৌড়কে। নেপথ্যে সমস্বরে বাজছে, ‘লা লা লা লা লা...।’

বাংলা সিনেমাপ্রেমী হয়ে থাকলে হয়তো বর্ণনা শুনতেই আপনার কল্পনায় এমন অনেক দৃশ্য ভেসে উঠছে। হয়তো মস্তিষ্কের কোনো কোণে সুরটাও বাজতে শুরু করেছে। নেইমার কিংবা বার্সেলোনার ভক্তমনেও এখন বুঝি একই সুর বাজার সময় হলো আবার।

সেই ২০১৭ সালের আগস্টে নেইমার বার্সেলোনা ছেড়ে বিশ্ব রেকর্ড ২২ কোটি ২০ লাখ ইউরোতে পিএসজিতে যাওয়ার পর থেকে এই সুর অনেকবার বেজেছে। কিন্তু বারবারই রোমান্টিক সুর হঠাৎ থেমে গেছে, নায়ক-নায়িকার হয়েছে বিচ্ছেদ। বিচ্ছেদ কী, ঝগড়াই শুরু হয়েছে। একদিন পাওনা বেতন-বোনাসের দাবিতে বার্সার বিরুদ্ধে নেইমার চলতে থাকা মামলা আবার নেড়েচেড়ে উঠেছে, পরের দিন হয়তো বার্সার দিক থেকে রব ওঠে, নেইমার ক্লাবের সঙ্গে কেমন প্রতারণা করেছেন তা নিয়ে।

কিন্তু মারদাঙ্গা চলচ্চিত্রে আবার বুঝি এল রোমান্টিক টুইস্ট! বারবার ধাক্কা খেয়েও প্রেম বুঝি ফিরে ফিরে আসছে। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যমে গুঞ্জন, নেইমার আবার বার্সার সঙ্গে যোগাযোগ করছেন। ২৯ বছর বয়সী ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড ফিরতে চান বার্সায়। বার্সাও তাঁকে ফিরে পেতে চায়। তবে তীব্র অর্থকষ্টে ভুগতে থাকা বার্সা নেইমারকে এই মৌসুমে কিনতে পারবে কি না, তা সংশয়ে।

বিজ্ঞাপন
default-image

এই তো, মাস দু-তিনেক আগেও নেইমারের পিএসজিতে চুক্তি নবায়নের কথা শোনা যাচ্ছিল। ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড পিএসজিতে চার বছরের জন্য চুক্তি নবায়ন করছেন, এমনটা প্রায় নিশ্চিতই করে দিয়েছিল ফরাসি সংবাদমাধ্যম। বার্সা তখন ধুঁকছে। মাঠে, মাঠের বাইরেও। লিওনেল মেসির বার্সা ছাড়ার গুঞ্জন তখনো জোরালো। মাঠে বার্সা লিগ শিরোপার লড়াইয়ে অনেক পিছিয়ে তখন, চ্যাম্পিয়নস লিগে নেইমারের পিএসজির বিপক্ষেই শেষ ষোলোতে খেলতে হতো বলে সেখানেও বার্সাকে নিয়ে বাজি ধরেননি খুব বেশি মানুষ।

চ্যাম্পিয়নস লিগে শেষ পর্যন্ত পিএসজির কাছে হেরে শেষ ষোলোতে ঠিকই বাদ পড়েছে বার্সা। কিন্তু অন্য সবদিকে বার্সায় এখন সুখের দিন চলছে। লিগের পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থাকা আতলেতিকো মাদ্রিদের ফর্ম হারানো আর নিজেদের ছন্দ খুঁজে পাওয়া মিলিয়ে বার্সা ফিরেছে শিরোপা লড়াইয়ে।

বাংলাদেশ সময় আজ রাত ১টায় রিয়াল ভায়াদোলিদের বিপক্ষে জিতলে আতলেতিকোর চেয়ে মাত্র ১ পয়েন্ট পেছনে থাকবে বার্সা, যেখানে গত বছরের শেষের দিকেও ব্যবধানটা ছিল ১৩ পয়েন্টের! স্প্যানিশ কাপেরও ফাইনালে উঠে গেছেন মেসিরা।

মার্কা লিখছে, ক্লাবের আর্থিক দুরবস্থার কারণে নেইমারের বার্সায় ফেরা যে কঠিন হবে, তা নেইমারও জানেন। আর সে কারণে আর্থিকভাবে ছাড় দিতে রাজি তিনি।

এর মধ্যে বার্সার জন্য বড় সুখবর হয়ে এসেছে, নির্বাচনে জিতে ক্লাবের সভাপতির চেয়ারে ফিরেছেন ২০০৩ সাল থেকে বার্সার সভাপতি থাকা হোয়ান লাপোর্তা। মেসির সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক খুব ভালো বলে মেসির বার্সায় থেকে যাওয়ার সম্ভাবনাও তাই বেড়েছে।

সময় ভালো গেলে সবদিক থেকেই হয়তো সুখবর আসতে শুরু করে! নেইমারের বার্সায় ফিরতে চাওয়ার গুঞ্জন নতুন করে চাউর হওয়া সেটিরই প্রমাণ। নতুন করে গুঞ্জনটা বেশি করে শুরু হয়েছে গত শনিবার ফরাসি লিগে লিলের বিপক্ষে পিএসজির ১-০ গোলে হারের পর।

নিজেদের মাঠে সেই ম্যাচে হেরে লিগের শিরোপাদৌড়ে পিএসজি পিছিয়ে গেছে, ৩১ ম্যাচ শেষে শীর্ষে থাকা লিলের চেয়ে ৩ পয়েন্ট পিছিয়ে আছে পয়েন্ট তালিকার দুই নম্বরে। এর মধ্যে সেই ম্যাচের শেষ দিকে এসে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখেছেন নেইমার—ফরাসি লিগে সর্বশেষ ১৪ ম্যাচে তাঁর তৃতীয় লাল কার্ড!

এসবের সঙ্গে যোগ করে নিন, মাস দুয়েক আগে নেইমারের চুক্তি নবায়নের কাছাকাছি চলে যাওয়ার খবরের পর থেকে সেদিকের আর কোনো ‘আপডেট’ পাওয়া যায়নি। একেবারে ‘অল কোয়ায়েট অন দ্য নর্দান ফ্রন্ট’ আর কি! ফ্রান্স স্পেনের উত্তরদিকে কিনা! লিলের বিপক্ষে ম্যাচের পর আবার স্প্যানিশ-ফরাসি দুই সংবাদমাধ্যমে আওয়াজ ওঠে, নেইমার বার্সায় ফিরতে চাইছেন!

নেইমার আবার মেসির সঙ্গে খেলবেন, তবে সেটা পিএসজিতে নয়, বার্সেলোনায়।
বার্সার ব্রাজিলভিত্তিক সাবেক স্কাউট ও নেইমারের সাবেক এজেন্ট আন্দ্রে কুরি

স্প্যানিশ দৈনিক মার্কা লিখেছে, পিএসজির সঙ্গে চুক্তি নবায়নের ক্ষেত্রে ‘ব্রেক কষেছেন’ নেইমার। কারণ, ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড ভাবছেন, মেসি বার্সেলোনাতেই থেকে যাবেন। ২৯ বছর বয়সী ব্রাজিলিয়ান যে মেসির সঙ্গে আবার খেলতে চান, সেটি তো আর গোপন কিছু নয়। গত ডিসেম্বরে নেইমার নিজেই জানিয়েছেন, মেসির সঙ্গে আরেকবার খেলতে চান এবং সেটা আগামী মৌসুম থেকেই!

মেসির বার্সা ছাড়তে চাওয়া আর নেইমারের পিএসজিতে চুক্তি নবায়নের গুঞ্জন মিলিয়ে তখন অবশ্য ধরে নেওয়া হচ্ছিল, নেইমার বার্সায় নয়, মেসিই পিএসজিতে যাবেন।
কিন্তু হিসেব এখন পুরো পাল্টে গেছে। অন্তত স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যমের খবর তা-ই। কাতালান পত্রিকা আরা জানাচ্ছে, মেসির চুক্তি নবায়নের ব্যাপারটা তো বিশ্বাস করছেনই, এর পাশাপাশি নেইমার বার্সা কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি ক্লাবে ফিরতে ইচ্ছুক!

বিজ্ঞাপন

এর মধ্যে বার্সার ব্রাজিলভিত্তিক সাবেক স্কাউট ও নেইমারের সাবেক এজেন্ট আন্দ্রে কুরি জানিয়েছেন, ‘নেইমার আবার মেসির সঙ্গে খেলছেন, তবে সেটা পিএসজিতে নয়, বার্সেলোনায়।’

তবে নেইমারের বার্সায় ফেরা অত সহজ হবে না। এর আগে যখন জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ ছিলেন বার্সার সভাপতি, তখন ব্যাপারটা ছিল মনোমালিন্যের। তাঁর সময়েই নেইমার বার্সা ছেড়েছেন, সেই নেইমারকে আনার ব্যাপারে বার্তোমেউর বোর্ডের অনেকেরই আপত্তি ছিল। ২০১৯ সালে মেসি নিজে নেইমারকে আনার অনুরোধ করার পরই যা একটু নড়েচড়ে বসেছিল বার্তোমেউর অধীন বার্সার বোর্ড।

তখন টাকার হিসাবে পিএসজির সঙ্গে মেলেনি বলে নেইমারের বার্সায় ফেরা হয়নি। এবার তো বার্সার আরও ত্রাহি ত্রাহি দশা! গত বছরের শেষ দিকে খবর আসে, বার্সা দেউলিয়া হওয়ার পথে। বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে গেছে ক্লাবটার দেনার পরিমাণ। সেখানে ২০২২ সাল পর্যন্ত পিএসজির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ নেইমারকে কেনার টাকা কোথায় পাবে বার্সা?

এর ওপর গত কদিনে খবর, আর্লিং হরলান্ডকেও বরুসিয়া ডর্টমুন্ড থেকে আনতে চান লাপোর্তা! সে জন্য ফিলিপ কুতিনিও, মিরালেম পিয়ানিচদের মতো তারকাদের বিক্রি করে দিয়ে অর্থ জোগানের পরিকল্পনা তাঁর।

মার্কা লিখছে, ক্লাবের আর্থিক দুরবস্থার কারণে নেইমারের বার্সায় ফেরা যে কঠিন হবে, তা নেইমারও জানেন। আর সে কারণে আর্থিকভাবে ছাড় দিতে রাজি তিনি।

তবে সেটি তো দেবেন বেতন-বোনাসে, তাঁকে এখন কিনতে গেলে যে দলবদলের ফি লাগবে, সেটি দেওয়ারই বা সামর্থ্য আছে নাকি বার্সার? হরলান্ডকেও কিনতে চাইলে তো সে ক্ষেত্রে বার্সার জন্য ব্যাপারটা দুজনের মধ্যে একজনকে বেছে নেওয়ার ব্যাপার হবে—হরলান্ড না নেইমার?

এ ক্ষেত্রে আগামী গ্রীষ্মকালীন অর্থাৎ আগস্ট-সেপ্টেম্বরের দলবদলে নেইমারকে নয়, হরলান্ডকেই বার্সা কিনতে চাইবে বলে গুঞ্জন স্পেনে। সে ক্ষেত্রে নেইমার? তাঁকে ফেরানোয় বার্সার এখনকার বোর্ডের আর আপত্তি নেই বলে জানাচ্ছে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম, তবে আগামী আগস্টে নয়। ২০২২ সালের আগস্টে। অর্থাৎ নেইমার যখন পিএসজির চুক্তি থেকে মুক্ত হবেন, তখন তাঁকে বিনা মূল্যে ফেরাতে চায় বার্সা।

স্প্যানিশ দৈনিক এল চিরিঙ্গিতো এমনটাই জানাচ্ছে, ‘২০২২ সালে বিনা দলবদল ফি-তে বার্সায় যোগ দেওয়ার জন্য নেইমার আরেকটি বছর পিএসজিতে কাটিয়ে দিতে রাজি। এভাবে পরিকল্পনা করলে তাঁর বার্সায় ফেরা সম্ভব হবে কি না, সেটি নিশ্চিত করতে তাঁর মুখপাত্ররা লাপোর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। তবে বার্সা যদি তাঁকে সই করানোর সুযোগ ফিরিয়ে দেয়, সে ক্ষেত্রেই কেবল পিএসজিতে চুক্তি নবায়ন করবেন নেইমার।’

স্প্যানিশ দৈনিক মুন্দো দেপোর্তিভোর সাংবাদিক ফের্নান্দো পোলোও এমনটাই জানাচ্ছেন। তাঁর বিশ্লেষণ, বার্সার চোখে নেইমারকে ফেরানোর সবচেয়ে ভালো সময় হচ্ছে ২০২২ সাল, যখন তাঁকে বিনা মূল্যে পাওয়া যাবে। ক্লাবের সংশ্লিষ্ট সূত্রের বরাতে তিনি জানাচ্ছেন, ‘নেইমার এখনই? সে তো এক বছর পরই ফ্রি হয়ে যাচ্ছে!’

সে ক্ষেত্রে আগামী আগস্ট-সেপ্টেম্বর, অর্থাৎ ২০২১ সালের জন্য বার্সার দলবদলের পরিকল্পনা কী? ওই যে, মেসির চুক্তি নবায়ন, হরলান্ড বা এমন কোনো সেরা খেলোয়াড়কে দলে টানা। পাশাপাশি মেম্ফিস ডিপাই, জর্জিনিও ভাইনালডাম, ডেভিড আলাবা, এরিক গার্সিয়ার মতো ‘ফ্রি’ খেলোয়াড়দের মধ্য থেকে দলের প্রয়োজন বুঝে কাউকে কেনা। আর লা মাসিয়া থেকে প্রতিভাবান তরুণদের সুযোগ দেওয়া।

সে যা-ই হোক, নেইমার আর বার্সার রোমান্টিক গল্প আবার শুরু হলো বলে!

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন