বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

লিগে রিয়ালের ম্যাচ বাকি আছে আর সাতটি, বার্সেলোনার ম্যাচ বাকি আটটি। এই আট ম্যাচ থেকে বার্সেলোনাকে এখন শুধু সব ম্যাচ জিতলেই হবে না। আশা করতে হবে রিয়াল যেন অন্তত ৯ পয়েন্ট খোয়ায়। তাহলেই মুখোমুখি লড়াইয়ে এগিয়ে থাকায় চ্যাম্পিয়ন হবে কাতালানরা। এটুকু বলা সহজ, কিন্তু কাজটা যে কত কঠিন, সেটা ম্যাচগুলোর দিকে তাকালেই বোঝা যায়।

মৌসুমের শুরুতে করোনার কারণে একটি ম্যাচ পিছিয়ে গিয়েছিল বার্সেলোনার। সেটা এই সপ্তাহে খেলতে হবে ক্যাম্প ন্যুয়ের দলটিকে। ফলে ৭ দিনের মধ্যে ৩টি ম্যাচ খেলতে হবে বার্সেলোনাকে। এই ঝক্কি সামলে প্রতিপক্ষের ম্যাচের দিকেও তাকিয়ে থাকতে হচ্ছে তাদের।

default-image

আজ রাতে লা লিগায় মুখোমুখি রিয়াল মাদ্রিদ ও তিনে থাকা সেভিয়া। প্রায় পুরো মৌসুমে রিয়ালের সঙ্গে টক্কর দিয়ে লড়া সেভিয়া হঠাৎ পিছিয়ে পড়ে এখন তিনে চলে গেছে। তবু ঘরের মাঠে রিয়াল মাদ্রিদের কঠিন পরীক্ষা নেওয়ার কথা দলটির। এবার লিগে এখনো ঘরের মাঠে হারেনি সেভিয়া। ১৫ ম্যাচের ১১টিতেই জিতেছে।

আতলেতিকো মাদ্রিদ ও বার্সেলোনা, দুই দলই এই মাঠে পয়েন্ট হারিয়েছে। এই ম্যাচেই রিয়াল মাদ্রিদের পয়েন্ট হারানোর শঙ্কা সবচেয়ে বেশি। আর সেটা হলে কাদিজের বিপক্ষে কাল অনেক ফুরফুরে মেজাজে নামতে পারবে বার্সেলোনা।

কিন্তু এরপরও রিয়ালের আরও অন্তত দুই ম্যাচে হার আশা করতে হবে বার্সেলোনাকে। আর যদি ড্র করে, সে ক্ষেত্রে সে আশা আরও এক ম্যাচের জন্য বাড়াতে হবে। মজার ব্যাপার আগামী তিন সপ্তাহেই রিয়ালের ম্যাচ আগে দিয়েছে লা লিগা। ফলে প্রতিদিনই বার্সেলোনা প্রতিপক্ষের অবস্থান জেনেই মাঠে নামতে পারবে।

default-image

বুধবার রিয়াল মাদ্রিদ নামবে ওসাসুনার বিপক্ষে। ঘরের মাঠেই এই দলের সঙ্গে ড্র করেছিল রিয়াল। পরদিন বার্সেলোনা খেলবে রিয়াল সোসিয়েদাদের বিপক্ষে। মৌসুমে দুর্দান্ত শুরু করা দলটি পথ হারিয়েছে শেষ দিকে এসে। ২০২২ সালে লিগে বড় ক্লাবগুলোর বিপক্ষে কোনো জয় পায়নি ক্লাবটি।

আগামী সপ্তাহে বার্সেলোনা রায়ো ভায়োকানোর বিপক্ষে খেলতে নামবে। এই সপ্তাহে রিয়ালের কোনো ম্যাচ নেই। এই সপ্তাহেই দুই দলের মধ্যে ম্যাচের পার্থক্য শেষ হয়ে যাবে। এরপর ৩০ এপ্রিল এসপানিওলের বিপক্ষে খেলবে রিয়াল। এই মৌসুমে যে তিনটি দলের বিপক্ষে হেরেছে রিয়াল, এসপানিওল তাদের একটি। বার্সেলোনা পরদিন অবনমন অঞ্চলের আশপাশে ঘোরা রিয়াল মায়োর্কার বিপক্ষে খেলবে।

লিগের পরের চার ম্যাচের সময় এখনো দেওয়া হয়নি। এই ম্যাচগুলোতে রিয়ালের ম্যাচগুলো বেশ কঠিন। আতলেতিকো মাদ্রিদ ও কাদিজের মাঠে গিয়ে খেলতে হবে তাদের। লেভান্তে ও রিয়াল বেতিসের বিপক্ষে খেলবে ঘরের মাঠে। আতলেতিকোর বিপক্ষে ম্যাচটা কত কঠিন হবে, সেটা কদিন আগে ম্যানচেস্টার সিটিই বুঝেছে।

default-image

রিয়ালের জন্য বড় দুশ্চিন্তার নাম লেভান্তে ও কাদিজ। গত মৌসুমে মাত্র ২ পয়েন্টের জন্য লিগ জিততে পারেনি রিয়াল। গত মৌসুমে বড় সব দলকে হারানো রিয়াল হেরে বসেছিল কাদিজ ও লেভান্তের বিপক্ষে।

গত মৌসুমের পর এ মৌসুমেও রিয়ালের জন্য যন্ত্রণার কারণ হয়েছে কাদিজ ও লেভান্তে। এই মৌসুমে এ দুই দলের বিপক্ষে প্রথম লেগে পয়েন্ট হারিয়েছে রিয়াল। ওদিকে রিয়াল বেতিস চ্যাম্পিয়নস লিগে জায়গা করার জন্য লড়ছে আতলেতিকোর সঙ্গে।

বার্সেলোনাকেও বেতিসের ঘরে গিয়ে খেলতে হবে ম্যাচ। হেতাফের মাঠেও যেতে হবে তাদের। ভিয়ারিয়াল ও সেলতা ভিগোর বিপক্ষে খেলবে নিজের মাঠে। কাগজে-কলমে সেলতা ভিগো ম্যাচটা সহজ হলেও এই ম্যাচই নিকট অতীতে বার্সেলোনার যত দুশ্চিন্তার নাম। এই মৌসুমে বার্সেলোনার কাছ থেকে পয়েন্ট কেড়ে নিয়েছে ইয়াগো আসপাসের সেলতা। বেতিসের কাছে ঘরের মাঠেই হেরেছিল বার্সেলোনা।

তাই, যতই অঙ্ক কষুক না কেন, বার্সেলোনার কাজটা প্রায় অসম্ভব। সহজ ভাষায়, প্রতি ম্যাচে রিয়ালের পয়েন্ট খোয়ানোর আশা নিয়েই নামতে হবে দলটিকে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন