বার্সাকে চ্যাম্পিয়নস লিগ এনে দিতে পারবে মেসি-কোমান জুটি?
বার্সাকে চ্যাম্পিয়নস লিগ এনে দিতে পারবে মেসি-কোমান জুটি? ছবি : রয়টার্স

গত মৌসুমের স্মৃতি এখনো দগদগে। ৮-২ গোলে হেরে নতমুখে চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে বিদায় নেওয়ার স্মৃতি কী আর সহজে ভোলা যায়? এই চ্যাম্পিয়নস লিগ বার্সেলোনার জন্য এমন একটা প্রতিযোগিতা, যা বেশ কয়েক বছর ধরেই অধরা তাদের কাছে।

এরপর কত কিছুই তো হয়ে গেল ন্যু ক্যাম্পে। চুপচাপ থাকা মেসি ক্লাব ছাড়তে চাইলেন, সভাপতি বার্তোমেউয়ের বিপক্ষে অবস্থান নিলেন প্রকাশ্যে। কেবল মেসিই নন, বার্সার বোর্ডের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছেন বার্সেলোনার বেশির ভাগ খেলোয়াড়ই। মেসি তো চলেই যেতেন, যাননি, আইনি ঝামেলার কথা চিন্তা করে। আগামী মৌসুমে যখন সে ঝামেলা থাকবে না, মেসি কি তখন থাকবেন বার্সায়। আজ মাঠে গড়াতে যাওয়া আরেকটি চ্যাম্পিয়নস লিগ কি তবে বার্সার জার্সিতে মেসির শেষ চ্যাম্পিয়নস লিগ?

মেসির বর্তমান চুক্তিতে বাকি আছে আর মাত্র এক বছর। চুক্তি নবায়ন না করলে, আগামী বছরই বার্সা ছাড়বেন এই তারকা। এবার হাজার নাটকের পর বার্সা তাঁকে ধরে রাখলেও, চুক্তি শেষের পর মেসির ক্লাব ছাড়ার ভয়টা রয়েই গেছে। আর মেসি যদি ক্লাব ছেড়েই দেন মৌসুম শেষে, তাহলে হিসেব অনুযায়ী বার্সার জার্সি গায়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতার এটাই শেষ সুযোগ মেসির জন্য। সে হিসেবে, আজকের ম্যাচটা মেসির জন্য অনেকটা শেষের শুরু। মেসির মধ্যে কী ক্লাবের জন্য কোনো ধরনের অনীহা, কিংবা ছাড়ার জন্য আগ্রহ দেখছেন কোমান?

বিজ্ঞাপন

হাঙ্গেরির ক্লাব ফেরেনৎসভারোসের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে বার্সার নতুন কোচ রোনাল্ড কোমানের মুখে অবশ্য আশার কথাই শোনা গেছে। মেসিকে দেখে তাঁর যথেষ্ট খুশিই মনে হয়, তিনি কঠোর অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছেন—এ ব্যাপারগুলো ডাচ কোচকে নাকি যথেষ্টই আশান্বিত করছে, ‘আমার মনে হয় ওর পারফরম্যান্স আরেকটু ভালো হতে পারত। কিন্তু ওকে প্রতিদিন দেখে আমার মনে হয় ও খুশি, আর ও বেশ কঠোরভাবে অনুশীলন করছে। ও দৃঢ়প্রতিজ্ঞ, দলের হয়ে সব সময় খেলতে চায়। ওর প্রতি আমার কোনো অভিযোগ বা সন্দেহ নেই।’

default-image

এসেই চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতা আশা করছেন না কোমান। দলের অবস্থা দেখেই বোধ হয়, পা মাটিতে রাখছেন। এক এক ধাপ করে বাধা অতিক্রম করে বার্সাকে নিয়ে যেতে চাইছেন অনেক দূর, ‘বার্সেলোনায় খেলতে চাইলে আপনাকে শিরোপা জেতার জন্যই খেলতে হবে। ঘরোয়া কিংবা ইউরোপীয় প্রতিযোগিতা, সবখানেই। কিন্তু ইউরোপীয় প্রতিযোগিতায় অনেক শক্তিশালী দল আছে, যাদের সঙ্গে খেলে নিজের জাত চেনাতে হয়। ক্লাবে যা হয়েছে, এরপর নিজেদের ফেবারিট বলা যায় না। কিন্তু আমরা এই প্রতিযোগিতায় অনেক দূর পর্যন্ত যেতে পারি। আমি আশা করছি কঠিন এক লড়াইয়ের। চ্যাম্পিয়নস লিগে সহজ ম্যাচ বলে কিছু নেই। আমাদের জয়ের সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে। আমরা আমাদের প্রত্যেক প্রতিপক্ষের খেলার ধরন ভালোভাবে বিশ্লেষণ করি, এবং সবাইকে সম্মান করি। তাঁদের আক্রমণ ও রক্ষণে বেশ কিছু ভালো খেলোয়াড় আছে।’

কোমান জানে, চ্যাম্পিয়নস লিগে সাম্প্রতিক সময়ে বার্সার অভিজ্ঞতা ভুলে যাওয়ার মতোই। তবুও, অতীতকে পেছনে রেখে নিজ নেতৃত্বে দলকে সামনে এগিয়ে নেওয়ার কাজটা করতে চাইছেন শক্ত হাতে, ‘আমি জানি না গত মৌসুমে কী সমস্যা হয়েছিল। আমি এখানে ছিলাম না। এই মৌসুমে যদি আমরা ব্যর্থ হই তাহলে সেটার জবাব আমি দিতে পারব। হারের পর জয় অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ আর এটা চ্যাম্পিয়নস লিগে আমাদের প্রথম ম্যাচ।’

মন্তব্য পড়ুন 0