মেসি বার্সেলোনায় থাকবেন?
মেসি বার্সেলোনায় থাকবেন?ছবি: রয়টার্স

চুক্তি কী হবে? হলে কবে হবে? নাকি হবে না, বার্সেলোনা ছেড়ে যাবেন লিওনেল মেসি!

গত আগস্ট থেকে এসব প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে। মেসি বার্সা ছেড়ে যাওয়ার ঘোষণা দেওয়ার পর থেকেই। আর্জেন্টাইন তারকা পরে সিদ্ধান্ত পাল্টালেও দৃশ্যপট পাল্টায়নি, বরং আরও জটিল আকার ধারণ করে। আর্থিক সমস্যা তো রয়েছেই, বার্সার ভেতরকার কাজকর্মেও সন্তুষ্ট ছিলেন না মেসি। চুক্তি নবায়নের ব্যাপারে নিজেও এত দিন মুখে কুলুপ এঁটে ছিলেন। কোনো কিছু খোলাসা করে বলেননি। তবে বার্সায় নতুন সভাপতি আসার পর মেসির সঙ্গে ক্লাবটির সম্পর্কের বরফ সম্ভবত গলতে শুরু করেছে।

হোয়ান লাপোর্তা নতুন সভাপতি হওয়ার পর মেসিকে নিয়ে এত দিনে সম্ভবত সুখবর জানানোর পথে রয়েছে বার্সা। ইউরোস্পোর্টের প্রতিবেদক ফারমিন ডে লা ক্যালের তথ্য সঠিক হলে কাতালান ক্লাবটিতে সম্ভবত চুক্তি নবায়ন করবেন মেসি। তবে শর্ত আছে। সেসব শর্ত, অর্থাৎ নিজের চাহিদাপত্র লাপোর্তার হাতে ধরিয়ে দিয়েছেন বার্সা তারকা।

বিজ্ঞাপন
default-image

সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, মেসি চান চুক্তি নবায়নের আগে দাবিনামা পূরণ করা হোক। চলতি মৌসুম শেষে বার্সার সঙ্গে মেসির চুক্তির মেয়াদ ফুরোবে। গত মৌসুম শেষে বার্সা ছাড়তে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু ‘রিলিজ ক্লজ’-এর জটিলতা দেখিয়ে বার্সা তখন মেসিকে ছাড়েনি। আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড এরপর নিজেই সিদ্ধান্ত পাল্টে নেন।

কিন্তু এখন বার্সা চুক্তি নবায়ন না করলে মৌসুম শেষে তিনি ঠিকানা পাল্টাতে পারবেন।
যদিও বার্সার সভাপতি নির্বাচনে দাঁড়িয়ে লাপোর্তা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, তিনি মেসিকে যেকোনোভাবে ধরে রাখতে চান। সভাপতি পদে নির্বাচিত হওয়ার পরও কথাটা বলেছেন তিনি। এদিকে ইউরোপের বেশ কিছু ক্লাব মেসিকে কিনতে চাইলেও সাম্প্রতিক খবর হলো, ক্যাম্প ন্যুতেই তাঁর থেকে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশি। আর এই থেকে যাওয়ার ইচ্ছা থেকেই নাকি দাবিনামা পেশ করেছেন মেসি।

এর মধ্যে প্রথম শর্ত হলো, প্রতিযোগিতা করার মতো স্কোয়াড গড়া। বড় শিরোপা জয়ের সামর্থ্য রাখে এমন দল চেয়েছেন মেসি। সে জন্য অন্তত একজন বড় তারকাকেও দলে চান তিনি। মেসির এই শর্ত পূরণে দখিনা হাওয়া হয়ে ক্যাম্প ন্যুতে পা রেখেছেন মিনো রাইওলা। এই মুহূর্তে ইউরোপের সেরা তরুণ ‘নম্বর নাইন’ আর্লিং হরলান্ডকে কেনার ব্যাপারে তাঁর এজেন্ট রাইওলার সঙ্গে আলোচনার টেবিলে বসেছেন বার্সা কর্মকর্তারা।

default-image

মেসির দ্বিতীয় শর্ত ক্লাবে সাধারণ মানের খেলোয়াড় কেনা নিয়ে। গত কয়েক মৌসুমে বার্সেলোনা যেসব খেলোয়াড় কিনেছে, তাঁদের নিয়ে মেসি সন্তুষ্ট নন। কুতিনিও, পিয়ানিচ, ব্রাথওয়েইট, ম্যালকম, আর্থুরদের পেছনে কম অর্থ ব্যয় করেনি বার্সেলোনা। মেসির দাবি, সত্যিকার অর্থেই ভালো খেলোয়াড় এবং স্কোয়াডে অবদান রাখতে পারবেন—এমন খেলোয়াড় কেনায় মন দিতে হবে।

ফারমিন ডে লা ক্যালের প্রতিবেদনে বলা হয়, মেসির তৃতীয় শর্ত বার্সার বয়সভিত্তিক দল–সম্পর্কিত। লা মেসিয়া থেকে উঠে আসা প্রতিশ্রুতিশীল ফুটবলারদের ওপর আস্থা ফিরিয়ে আনার দাবিও তুলেছেন মেসি। আনসু ফাতি, আয়লাই মরিবাদের বেড়ে ওঠায় বার্সার হর্তাকর্তাদের সাহায্য করতে হবে, এমন দাবি উত্থাপন করেছেন ‘লা মাসিয়া’য় বেড়ে ওঠা এ তারকা। বাইরের তারকাদের পেছনে না ছুটে বার্সার এই ‘ফুটবল খামার’-এ বেড়ে ওঠা খেলোয়াড়রা যেন ক্লাবের ওপর আস্থা রাখতে পারেন এবং ক্লাব যেন তাঁদের কেন্দ্র করে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা করে—এটাই চাওয়া মেসির।

মেসির তৃতীয় শর্ত ক্লাবের সঙ্গে খেলোয়াড়দের যোগাযোগব্যবস্থা নিয়ে। বার্সার আগের কোচ যেমন লুই এনরিকে কিংবা কিকে সেতিয়েনদের সঙ্গে মেসির পারস্পরিক বোঝাপড়া ভালো ছিল না। এ বিষয়ের সুরাহা চান মেসি। বর্তমান কোচ রোনাল্ড কোমানের সঙ্গে অবশ্য ভালোই বোঝাপড়া রয়েছে বার্সা অধিনায়কের। খেলোয়াড়েরা যেন সরাসরি বার্সা সভাপতির সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন, পঞ্চম শর্তে সেই ব্যবস্থাও চেয়েছেন মেসি।

লাপোর্তা মেসিকে ধরে রাখতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। মেসির দেওয়া শর্তগুলো মেনে নিলেও সেটা বাস্তবে করে দেখাতে পারবেন কি না, সেটাই এখন দেখার বিষয়।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন