বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গ্রানাদা আর কাদিজের মতো নিচের সারির দুটি দলের বিপক্ষে ড্র করে বার্সেলোনার অবস্থা এখন বেশ খারাপ। লিগে পাঁচ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ মোটে ৯ পয়েন্ট। বার্সা–সমর্থকেরা মনেই করতে পারছেন না লা লিগায় এর আগে কবে এত বাজে সূচনা হয়েছিল তাদের প্রিয় দলের। রিয়াল মাদ্রিদের চেয়ে ৭ পয়েন্ট এরই মধ্যে পিছিয়ে গেছে বার্সেলোনা। কোমানের চাকরি নিয়ে পড়ে গেছে টানাটানি। বার্সা কোচ ব্যাপক সমালোচিত দলের খেলার ধরন বদলে। চ্যাম্পিয়নস লিগে বার্সার অবস্থাও তেমন ভালো নয়। সব মিলিয়ে অস্থির এ সময় আনসু ফাতির ফেরাটা বড় একটা স্বস্তিই বার্সেলোনার জন্য।

লেভান্তের বিপক্ষে ফাতিকে আপাতত পরখ করে দেখবেন কোমান। সে ধরনেরই পরিকল্পনা তাঁর, ‘আমরা ফাতিকে মাঠে ফেরাতে একটা পরিকল্পনার বাস্তবায়ন করছি। সে কাল (আজ) লেভান্তের বিপক্ষে সর্বোচ্চ ১৫ মিনিট খেলতে পারে। একজন ফুটবলার চোটে পড়ার পর তাঁকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়াটা বেশ দীর্ঘ। এটা সময়সাপেক্ষ ব্যাপার। নিঃসন্দেহে ফাতি খুব উঁচু মানের খেলোয়াড়। তাঁর উপস্থিতি দলের শক্তি ও মান দুটিই বাড়াবে। তবে আমাদের ব্যাপারটা করতে হবে খুব সাবধানে, ধীরে ধীরে।’

default-image

এ মুহূর্তে বার্সার ফরোয়ার্ড লাইনের অবস্থা বেশ বাজে। চোটে পড়ে মাঠের বাইরে আছেন সের্হিও আগুয়েরো, মার্টিন ব্রাথওয়েট আর ওসমান দেম্বেলে। ফাতির ফেরাটা তাই বার্সার ঘুরে দাঁড়ানোর ব্যাপারে সহায়ক হবে, এটা বলাই যায়। কিছুদিন আগে বার্সার কৌশল নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠলে কোমান বলেছিলেন, তার হাতে আগের টিকিটাকা ফুটবল খেলার খেলোয়াড় নেই। ফাতি সেই অভাবটা ভালোভাবেই পূরণ করতে পারবেন, ‘ফাতি দ্রুতগতির খেলোয়াড়। সে জায়গা বড় করে খেলতে পারে। আমরা ম্যাচগুলো খেলছি উইঙ্গার ছাড়াই।’

মাত্র ১৬ বছর বয়সেই আবির্ভাব এই ফাতির। শুরুতেই চমকে দিয়েছিলেন তিনি। যে বয়সে বার্সেলোনা ‘বি’ দলেও অনেকের সুযোগ মেলে না, সেই বয়সে ফাতি মূল দলেই সুযোগ করে নেন। কম বয়সে গোল করার সব রেকর্ডই তাঁর। সরাসরি সুযোগ পেয়েছেন স্পেনের অনূর্ধ্ব-২১ দলে। গত মৌসুমে এই ফাতিকে বিক্রি করার প্রস্তাব পেয়েছিল বার্সা। কিন্তু ১০ কোটি ইউরোও নাকি এমন প্রতিভার জন্য কম মনে হয়েছিল তাদের।

default-image

বলা হয় বার্সেলোনার একাডেমি লা মাসিয়ায় মেসির পর সবচেয়ে দারুণ প্রতিভা নাকি এই ফাতি। সেটির প্রমাণ তিনি রেখেছেনও। ফাতির সেই প্রতিভারই কদর করেছে বার্সেলোনা। আগস্টে মেসি বার্সা ছাড়তে বাধ্য হওয়ার পর এই ফাতিকেই তারা বানিয়েছে ১০ নম্বরের উত্তরসূরি। আজ নিজেদের এই ১০ নম্বর জার্সিই আবার মাঠে দেখবেন বার্সেলোনার সমর্থকেরা।

১৮ বছর বয়সেই অবশ্য ফাতিকে অনেক ভারী বোঝা বইতে হচ্ছে। যে জার্সি মেসি পরেছেন, সেটি একসময় ছিল রোনালদিনিও, রিভালদো, কিংবদন্তি স্ট্রাইকার ইয়ারি লিতমানেন, হুয়ান রোমান রিকেলমে, জিওভান্নি, আনহেলার কেলারদের গায়ে। মেসি তো এ জার্সিতে দিয়ে গেছেন অনন্য মহিমা। ফাতির সামনে কঠিন পরীক্ষাই।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন