জেরোম বোয়াটেং ও কাসিয়া লেনহার্ট। এ ছবি এখন শুধুই স্মৃতি
জেরোম বোয়াটেং ও কাসিয়া লেনহার্ট। এ ছবি এখন শুধুই স্মৃতিছবি: টুইটার

বিচ্ছেদ ঘটলেও খবরটা নিশ্চয়ই শেলের মতো বিঁধেছে জেরোম বোয়াটেংয়ের বুকে। কাতারে ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ ফাইনালে কাল মাঠে নামবে বায়ার্ন মিউনিখ। এ ম্যাচেরই প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন জার্মানির ডিফেন্ডার বোয়াটেং। সাবেক প্রেমিকার মৃত্যুর খবর শুনেই বায়ার্ন শিবির ছেড়ে ছুটে গেছেন তিনি। খবরটি নিশ্চিত করেছেন বায়ার্নের কোচ হান্সি ফ্লিক।

সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে বার্লিনে বোয়াটেংয়ের সাবেক প্রেমিকা ও পোলিশ বংশোদ্ভূত মডেল কাসিয়া লেনহার্টকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। এক সপ্তাহ আগে বোয়াটেংয়ের সঙ্গে বিচ্ছেদ ঘটে লেনহার্টের।

ইউরোপের কিছু সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, জার্মানির 'নেক্সট টপ মডেল' প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া লেনহার্ট আত্মহত্যা করেছেন। যদিও অন্য কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে সরাসরি আত্মহত্যার কথা বলা না হলেও পুলিশ সন্দেহজনক কিছু দেখছে না বলে জানিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বার্লিনের শার্লটেনব্রো অঞ্চলে বোয়াটেংয়ের বাসভবনে ২৫ বছর বয়সী এ মডেলের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। লেনহার্টের এক বন্ধু ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম মেইল অনলাইনকে জানান, মঙ্গলবার ছিল তাঁর ছেলে নোয়ার ষষ্ঠ জন্মদিন।

মৃত্যুর সময় লেনহার্ট নাকি বাসায় একাই ছিলেন। লেনহার্টের একমাত্র সন্তান নোয়া। বোয়াটেংয়ের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ানোর আগে আরও নাম অপ্রকাশিত একজনের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল লেনহাটের।

লেনহার্টের বন্ধু মেইল অনলাইনকে বলেন, ‘গতকাল (মঙ্গলবার) ছিল তার সন্তান নোয়ার জন্মদিন। কাসিয়া (লেনহার্ট) বাসায় একাই ছিল। তার পরিবার থেকেই পুলিশে খবর দেওয়া হয়। কারণ যোগাযোগ করে পাচ্ছিল না। তারা দুশ্চিন্তায় ছিল। জেরোম বোয়াটেং এক সাক্ষাৎকারে সম্পর্ক চুকে গেছে জানানোর এক সপ্তাহ পর সে মারা গেল। কাসিয়াকে নিয়ে সে জঘন্য কিছু কথা বলেছে। এতে সে (লেনহার্ট) ভেঙে পড়েছিল।’

পোলিশ মডেল সারা কুলকা লেনহার্টের মৃত্যু নিয়ে ইনস্টাগ্রামে লিখেছেন, ‘আশা করি সত্য উদ্‌ঘাটিত হবে। আমি জানি তুমি কতটা চেয়েছিলে।’

৩২ বছর বয়সী বোয়াটেং ১৫ মাস চুটিয়ে প্রেম করেছেন লেনহার্টের সঙ্গে। ২ ফেব্রুয়ারি তাঁর সঙ্গে সম্পর্কের সমাপ্তি টানার কথা জানান জার্মানির হয়ে ৭৬ ম্যাচ খেলা এ ডিফেন্ডার।

সম্পর্ক চুকিয়ে দেওয়ার আগে দুজনের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা ও হাতাহাতি হয়েছে। লেনহার্টের বিরুদ্ধে ব্ল্যাকমেলের অভিযোগ তুলেছিলেন বোয়াটেং। সাবেক প্রেমিকা রেবেকাকে ঘিরে লেনহার্ট নাকি ব্ল্যাকমেল করছিলেন তাঁকে।

দুজনের সম্পর্ক ভালো থাকতে বোয়াটেংয়ের নাম বুকের পাঁজরে ট্যাটু করিয়েছিলেন লেনহার্ট। কিন্তু সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পর তিনি বলেছিলেন, ‘শয়তানটার ব্যাপারে একদিন মুখ খুলবেন এবং একটু ধাতস্থ হয়ে ওঠার পর ঘুরে দাঁড়াবেন।’

default-image

কিন্তু সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার কষ্ট থেকে আর ঘুরে দাঁড়ানো হলো না লেনহার্টের। মৃত্যুর কয়েক ঘণ্টা আগে ইনস্টাগ্রামে জীবনের ‘নতুন পর্ব’ শুরু করা নিয়েও পোস্ট করেছিলেন লেনহার্ট।

বায়ার্ন কোচ ফ্লিক বোয়াটেংয়ের প্রস্থান নিয়ে বলেন, ‘জেরোম আমার কামরায় এসে বলল, সে বাসায় যাওয়ার অনুমতি পেতে পারে কি না। তাকে আমরা অনির্দিষ্টকালের জন্য পাচ্ছি না।’

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন