বার্সেলোনার অনুশীলনে আসার পথে লিওনেল মেসি।
বার্সেলোনার অনুশীলনে আসার পথে লিওনেল মেসি। ছবি: টুইটার

নাটক? তা বলাই যায়। লিওনেল মেসির ওপর ক্ষোভ থাকলে সত্য হোক বা না হোক, অন্তত সেটুকু মনে করার স্বাধীনতা আছে সমর্থকদের। মেসি বার্সা ছাড়ার ঘোষণা দেওয়ার পর গত কয়েক দিন ধরে কী তুলকালামই না ঘটল! বার্সা সভাপতির পিণ্ডি চটকানো শুরু করেছিলেন সমর্থকেরা। মেসিকে তাঁরা দেখেছিলেন বার্সার বাইরেও। এমনকি নতুন ঠিকানা হিসেবে ম্যানচেস্টার সিটির নামও ঘোষণা করেছিলেন কেউ কেউ। কিন্তু মেসি নিজেই সব গুঞ্জন ও আশায় জল ঢেলে থেকে গেলেন বার্সায়। যে বার্সা প্রশাসনের ওপর তাঁর এত ক্ষোভ, তার কিছুটা উগরে দেওয়ার পর সেই ক্লাবেই থেকে যাওয়া—একটু কেমন না!

বিজ্ঞাপন

তাতে মেসির নতুন সমালোচক তৈরি হওয়া অস্বাভাবিক কিছু না। ইদানীং একটা কথা উঠছে—ক্লাব ছাড়ায় মনস্থির করে ফেলেছিলেন মেসি। এখন থেকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর তাঁর ক্লাবের প্রতি নিবেদন কি আর আগের মতো থাকবে? হোক না শৈশবের ক্লাব তবু মন-ই তো উঠে গেছে! এমন ভাবনা যাঁদের যুক্তরাষ্ট্রের বিয়ার প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান বাডওয়েজার জবাবটা তাঁদের দিয়েছে মেসির হয়ে, মেসিকে ব্যবহার করেই।

বিজ্ঞাপন

বাডওয়েজার বাজারে একটি বিজ্ঞাপন ছেড়েছে। আর্জেন্টাইন তারকার বার্সা ক্যারিয়ারের শুরু এবং কিছুদিন আগের ঘটনাকে উপজীব্য করে এই বিজ্ঞাপন বানানো হয়। মাত্র ১৩ বছর বয়সে মেসি বার্সায় যোগ দেওয়ার পর সমালোচকেরা বলেছিলেন, এত অল্প বয়সে ইউরোপিয়ান ফুটবলের ধাঁচ ও ধকল সে নিতে পারবে না। শারীরিকভাবে পোক্ত নয়...ইত্যাদি সব কথা। আর এখন কথা উঠছে ৩৩ বছর বয়সী মেসিকে নিয়ে। অনেকেরই মত, মেসি বার্সা ছাড়ার ইচ্ছা জানানোর পর ক্লাবটির উচিত ছিল তাঁকে ছেড়ে দেওয়া। কারণ ৩৩ বছর বয়সী মেসি তাঁর সেরা সময় আগেই পেরিয়ে এসেছেন। নতুন প্রকল্পের দিকে এগোনো উচিত বার্সার।

বিজ্ঞাপন

এসব নিয়েই বাডওয়েজারের বানানো বিজ্ঞাপণের কথাগুলো নিচে তুলে ধরা হলো:
—‘ওরা বলেছিল, ১৩ বছর বয়সে স্পেনে যাওয়াটা তাঁকে শেষ করে দেবে।’
—‘ওরা বলেছিল, বয়সের তুলনায় বেশি খাটো।’
—‘এখন ওরা বলে, তিনি বেশি বেড়েছেন (ক্লাবের চেয়েও বড়)।’
—‘ওরা বলে, এ শহরকে (বার্সেলোনা) আর ভালোবাসেন না।’
—‘ওরা বলে, তাঁর হৃদয় আর এখানে নেই।’
—‘ওরা বলে, রাজত্বের অবসান ঘটেছে।’
—‘ওরা বলে, তাঁর মহিমা ফুরিয়ে গেছে।’
—‘তাহলে, এখন কী জবাব দেবেন?’

এ প্রশ্নের উত্তর কী হবে, সে ইঙ্গিতটাও বিজ্ঞাপন দেখিয়ে দিয়েছে। বরাবরই যা করেন, সেটাই করছেন, মাঠেই জবাব দিচ্ছেন ফ্রি কিক থেকে দুর্দান্ত এক গোল।

বিজ্ঞাপন
default-image

বার্সার অনুশীলনে যোগ দিয়েছেন মেসি। থেকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর প্রথম দিনে নির্ধারিত সময়ের বেশ আগেই এসেছেন অনুশীলনে। এর আগে চ্যাম্পিয়নস লিগ কোয়ার্টার ফাইনালে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ৮-২ গোলে হারের পর বার্সা ছাড়ার সিদ্ধান্ত বুরোফ্যাক্সের মাধ্যমে ক্লাবকে জানান আর্জেন্টাইন তারকা। এরপরই পরিস্থিতি জটিল হতে থাকে। মেসি চুক্তির শর্ত ভেঙে ফ্রি এজেন্ট হিসেবে যেতে পারেন না এবং যেতে হলে ৭০ কোটি ইউরো দিয়ে যাওয়ার কথা জানিয়ে দেয় বার্সা। পরে ক্লাবটির সঙ্গে আলোচনায় বসার জন্য আর্জেন্টিনা থেকে স্পেনে পা রাখেন মেসির বাবা ও এজেন্ট হোর্হে মেসি। দুই পক্ষে বৈঠকে বসেও কোনো সুরাহা করতে পারেনি। নিজেদের দাবিতে অনড় থাকে বার্সা। এরপর সংবাদমাধ্যম গোল ডট কমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বার্সায় অনিচ্ছা নিয়েই থাকার কথা জানিয়ে দেন আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড।

মন্তব্য পড়ুন 0