বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কারণটা বেতন নিয়ে মতের অমিল। বার্সায় মরিবার চুক্তি শেষ হয়ে যাবে আগামী মৌসুমে। দারুণ প্রতিভাবান এই মিডফিল্ডারকে নতুন চুক্তির প্রস্তাব করেছিল বার্সা। কিন্তু মরিবা সে বেতনে খুশি তো ননই, উল্টো যে দাবির প্রত্যাশা জানিয়েছেন, সেটা বার্সার চোখে অবিশ্বাস্য!

মৌসুমে ৩০ লাখ ইউরো বেতন চান মরিবা। অথচ মরিবা এখনো বার্সেলোনার মূল দলে নিয়মিতই হননি। বার্সার মূল দলে এরই মধ্যে প্রতিষ্ঠিত তরুণদের মধ্যে ডিফেন্ডার রোনাল্ড আরাউহো (মৌসুমে ২২ লাখ ইউরো), মিডফিল্ডার পেদ্রিওর (মৌসুমে ২০ লাখ) চেয়ে কম বেতন পান!

একে তো বার্সা এই মুহূর্তে আর্থিকভাবে বেশ নাজুক অবস্থায় আছে, যে কারণে লিওনেল মেসির চুক্তি নবায়নই সম্ভব হয়নি, তার ওপর এখনো মূল দলে প্রতিষ্ঠিত না হয়ে প্রতিষ্ঠিত তারকার মতোই বেতন চেয়ে বসেছেন মরিবা! এ কারণেই বেশ খেপেছে বার্সা।

চুক্তি নবায়ন এখন আর সম্ভব নয় বলেই মনে করছে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম। ক্লাবের পক্ষ থেকে মরিবাকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, যথোপযুক্ত প্রস্তাব পেলে মরিবাকে বিক্রি করে দেওয়া হবে। আর বিক্রি করা না গেলে আগামী মৌসুম মরিবাকে কোনো ম্যাচে রাখবে না বলেও জানিয়ে দিয়েছে বার্সা।

default-image

বার্সা থেকে মরিবার বিদায় তাই নিশ্চিত বলেই ধরে নেওয়া যায়। কিন্তু বার্সা ছাড়লেও মরিবা যে রিয়াল মাদ্রিদে যেতে পারছেন না, সেটি নিশ্চিত করে জানাচ্ছে স্পোর্ত। এর পেছনে সুতোটা টানা বিতর্ক ছড়ানো প্রস্তাবিত টুর্নামেন্ট ইউরোপিয়ান সুপার লিগে।

বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্রিদ ও জুভেন্টাস এখনো সুপার লিগ আয়োজনের চেষ্টায় এক হয়ে আছে। সে লক্ষ্যে নিজেদের মধ্যে সম্পর্কটা ভালো রাখতে চায় তিন ক্লাব। সে কারণে তিন ক্লাবের মধ্যে ‘একে অন্যের খেলোয়াড় কেনায় আগ্রাসনের নীতি নয়’ মর্মে সমঝোতাও হয়েছে—এমনটাই লিখেছে স্পোর্ত।

এক দল আরেক দলের খেলোয়াড় কিনবে না বলে সমঝোতা তো আছেই, শুধু দুই ক্লাবের লাভ হলেই নিজেদের মধ্যে খেলোয়াড় কেনাবেচা করবে বলে সমঝোতা করেছে ক্লাবগুলো। আর্থুর মেলো ও মিরালেম পিয়ানিচকে ঘিরে যে রকম চুক্তি বার্সেলোনা ও জুভেন্টাস করেছিল আরও মৌসুম দুয়েক আগে, অনেকটা সে রকম চুক্তিই নিজেদের মধ্যে করার সমঝোতা করেছে তিন ক্লাব।

তবে নিজেদের বাইরের কোনো খেলোয়াড়ের পেছনে ছোটার ক্ষেত্রে কেউ কাউকে ছাড় দেবে না বলেও সমঝোতা হয়েছে, স্পোর্তের প্রতিবেদনে তা-ই লেখা।

default-image

সমঝোতার কারণে আটকে যাচ্ছে রিয়ালই। মরিবাকে পেতে রিয়াল যে আগ্রহী ছিল, সেটা স্পেনে অজানা নয়। রিয়াল সভাপতি পেরেজকে পাঠানো লস ব্লাঙ্কোদের ‘স্কাউট’দের প্রতিবেদনেও বার্সার তরুণ মিডফিল্ডারকে নিয়ে উচ্ছ্বাসই নাকি লেখা। আরও অন্তত ১০-১২ বছর মরিবা ফুটবল মাতিয়ে রাখবেন, রিয়ালের আগ্রহ সে কারণে আরও বেশি।

এমনকি স্পোর্ত জানাচ্ছে, মরিবা যে বার্সার প্রস্তাবে রাজি না হয়ে এত বেশি বেতনের দাবি জানিয়েছেন, এর পেছনে রিয়ালের হাত আছে বলেও প্রথমে ভেবেছিল বার্সা। কিন্তু লাপোর্তার সঙ্গে ওই সমঝোতার চুক্তির কারণে পেরেজ আর ওমুখো হচ্ছেন না।

এদিকে মরিবা পড়েছেন জটিল পরিস্থিতিতে। এমন তরুণ, এখনো মূল দলে অনিয়মিত একজন খেলোয়াড়ের এত বেশি বেতনের দাবিতে বিরক্ত বার্সা তাঁকে এখন আর চুক্তি নবায়নের প্রস্তাব দিচ্ছে না, এদিকে দামাদামিতেও মিলছে না। বার্সার চোখে মরিবার দাম ১৫-২০ মিলিয়ন হওয়া উচিত। কিন্তু মরিবাকে পেতে এখন পর্যন্ত আগ্রহী যে দুই ক্লাবের নাম শোনা যাচ্ছে, সেই লাইপজিগ ও চেলসি এখনো ৬-৮ মিলিয়নের বেশি দর হাঁকায়নি।

বেতনে অবশ্য বার্সার কাছে মরিবার চাওয়াও ছাপিয়ে যেতে রাজি। ইংল্যান্ডে গুঞ্জন, মরিবাকে মৌসুমে ৬০ লাখ ইউরো বেতন দেওয়ার প্রস্তাব করেছে চেলসি।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন