প্রতিবাদে নেমেছেন লিভারপুলের সমর্থকেরা। প্রতিবাদের অংশ হিসেবে আগামী রোববার নিউক্যাসলের বিপক্ষে অ্যানফিল্ডের 'কপ এন্ডে' ক্লাবের সমর্থকগোষ্ঠীর কোনো ব্যানারও না রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে।
প্রতিবাদে নেমেছেন লিভারপুলের সমর্থকেরা। প্রতিবাদের অংশ হিসেবে আগামী রোববার নিউক্যাসলের বিপক্ষে অ্যানফিল্ডের 'কপ এন্ডে' ক্লাবের সমর্থকগোষ্ঠীর কোনো ব্যানারও না রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ছবি: রয়টার্স

ইউরোপের ফুটবলে ঝড় আসছে, সেটা আগেই টের পেয়েছিলেন অনেকে। সবাই তো আর আর্সেন ওয়েঙ্গার নন যে ১২ বছর আগেই বলে বসবেন ‘সুপার লিগ আসছে’, কিন্তু এমন এক পরিকল্পনা যে হচ্ছে, সেটা বোঝা যাচ্ছিল গত কয়েক বছরে। করোনা সংক্রমণের ধাক্কা হয়তো সেটার দেখা মিলিয়ে দিল একটু আগেভাগেই। গতকাল আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দিয়ে ইউরোপের ১২টি বড় ক্লাব জানিয়ে দিয়েছে, আর চ্যাম্পিয়নস লিগ নয়, আর্থিক দিকটা সুসংহত করতে তারা এবার ইউরোপিয়ান সুপার লিগ খেলবে।

default-image

ওদিকে ইউরোপের ফুটবলসংশ্লিষ্টরা যেমন জানত রিয়াল মাদ্রিদ ও জুভেন্টাসের ক্লাব সভাপতিরা সুপার লিগ নামের এক বিদ্রোহ লিগ আয়োজন করতে চাইছে, উয়েফাও জানত সেটা। তাই তারাও বসে ছিল না। বর্তমান চ্যাম্পিয়নস লিগ ও টুর্নামেন্ট থেকে প্রাপ্ত আয় নিয়ে ক্লাবগুলো যে অসন্তুষ্ট, সেটা জানা আছে নিয়ন্ত্রক সংস্থারও। তাই বর্তমান চ্যাম্পিয়নস লিগের খোলনলচে একদম পাল্টে তারাও আরেক সুপার টুর্নামেন্টের প্রস্তাব দিয়েছিল ক্লাবগুলোকে। সুপার চ্যাম্পিয়নস লিগ নামেই ডাকা হচ্ছে একে।

কাল রাতে রিয়াল ও অন্য ক্লাবের বোমা ফেলার পর আর দেরি করেনি উয়েফা। আজই জরুরি মিটিংয়ে বসেছে উয়েফার নির্বাহী কমিটি। সেখানেই ২০২৪ সালের পর থেকে নতুন চ্যাম্পিয়নস লিগ নিয়ে আলোচনা করা হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

সম্প্রচারের স্বত্ব নিয়ে বিরোধ থেকে ইন্ডিয়ান ক্রিকেট লিগ বা আইসিএল নামের টি-টোয়েন্টি লিগের জন্ম হয়েছিল। আর্থিক প্রলোভনের অমোঘ সে টান থেকে ক্রিকেটারদের আটকে রাখতে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) বাধ্য হয় ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ বা আইপিএলের জন্ম দিতে। ইউরোপের পরাশক্তিগুলো ইউরোপিয়ান সুপার লিগে যেন যোগ না দেয়, সে আশায় উয়েফাও তাই নিজেদের বর্তমান চ্যাম্পিয়নস লিগ নিয়ে নতুন করে ভাবছে। টুর্নামেন্টের খোলনলচে পাল্টে সেটাকে ফুটবলের আইপিএলই হয়তো বানাতে চাইছে উয়েফা।

default-image

সুইজারল্যান্ডের মত্রে শহরে চলছে সে মিটিং। এই মিটিংয়ের ফল বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ছয়টার আগে জানার সুযোগ নেই। কিন্তু জার্মান সংবাদমাধ্যম ডয়েচ ভেলে আগেভাগেই নতুন টুর্নামেন্টের বিস্তারিত জানিয়ে দিয়েছে। ডয়েচ ভেলের প্রকাশিত তথ্যগুলো যদি সত্যি হয়ে থাকে, তাহলে এটা পরিষ্কার যে পরাশক্তিদের কথা ভেবেই নতুন টুর্নামেন্ট চালু করতে চাইছে উয়েফা।

প্রথমে এই টুর্নামেন্ট নিয়ে যেসব কথা শোনা গিয়েছিল, তার প্রায় সবই ডয়েচ ভেলের করা টুইট অনুযায়ী সত্যি মনে হচ্ছে। শোনা গিয়েছিল, ২০২৪ সাল থেকে শুরু হবে এই টুর্নামেন্ট। এটা উয়েফার ওয়েবসাইটেই স্বীকার করে নেওয়া হয়েছে। আগে জানা গিয়েছিল, এই টুর্নামেন্টের ম্যাচ বাড়ানো হবে। এতে ঘরোয়া লিগের ম্যাচে প্রভাব পড়বে, লিগের সর্বোচ্চ স্তরগুলোতে তাই দল কমানো হবে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন