বিশ্বকাপের 'টুইটারম্যান' নেইমার-এমবাপ্পে

বিজ্ঞাপন
default-image
>এমবাপ্পের ফাইনালের গোল আর নেইমার এবার বিশ্বকাপে ঝড় তুলেছিলেন টুইটারে

কিলিয়ান এমবাপ্পে যখন বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনালে গোল করে কিংবদন্তি পেলের পাশে বসলেন, তখন রীতিমতো ঝড় উঠেছিল টুইটারে। ১৯৫৮ বিশ্বকাপের ফাইনালে সুইডেনের বিপক্ষে ব্রাজিলীয় তারকা পেলে নবীনতম ফুটবলার হিসেবে গোল করেছিলেন। ৬০ বছর পর ফ্রান্সের ১৯ বছর বয়সী এমবাপ্পে আরেক বিশ্বকাপের ফাইনালে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে গোল করে ইতিহাসে নাম তুললেন। টুইটারের হিসাব অনুযায়ী গোলটির পর সবচেয়ে বেশি সংখ্যক টুইট এসেছে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে।

এমবাপ্পের গোল টুইটারে আলোড়ন তুললেও এবারের বিশ্বকাপে ব্রাজিলীয় তারকা নেইমারই নাকি ছিলেন টুইটার ব্যবহারকারীদের টুইটার ব্যবহারকারীদের সবচেয়ে উল্লিখিত বিষয়। পুরো বিশ্বকাপে নেইমারের পারফরম্যান্সের পাশাপাশি তাঁর মাটিতে গড়াগড়ি খাওয়া ছিল টুইটারেব ব্যবহারকারীদের লক্ষ্যবস্তু।

বিশ্বকাপে ব্রাজিল দলের নাম সবচেয়ে বেশিবার উল্লেখ করা হয়েছে টুইটারে। এরপরই ছিল আর্জেন্টিনা ও ফ্রান্সের নাম। বিশ্বকাপের ৬৪টি ম্যাচে মোট যত টুইট হয়েছে, সেগুলো দেখা হয়েছে মোট ১১ হাজার ৫০০ কোটিবার।

ফ্রান্স ও ক্রোয়েশিয়ার ফাইনালটি নিয়ে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক ব্যবহারকারী মন্তব্য করেছেন। এর পরপরই আছে ৬ জুলাই অনুষ্ঠিত ব্রাজিল ও বেলজিয়ামের কোয়ার্টার ফাইনাল। তৃতীয় স্থানে আছে ব্রাজিল ও মেক্সিকোর মধ্যকার দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচটি।

টুইটারে কেবল খেলাই নয়, বিভিন্ন ব্র্যান্ড নিয়েও আলোচনা হয়েছে বিশ্বকাপের সময়। টুর্নামেন্টের এই এক মাসে সবচেয়ে বেশিবার যে ব্র্যান্ডের নাম টুইটারে উল্লেখ করা হয়েছে, সেটি বাডওয়াইজার নামের বিয়ারের।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন