পোকার খেলতে পছন্দ করেন পিএসজি তারকা নেইমার।
পোকার খেলতে পছন্দ করেন পিএসজি তারকা নেইমার।ছবি: টুইটার

সর্বনাশটা হয়েছে ২০১৪ বিশ্বকাপে। সে সময় খেলাটির প্রেমে পড়েন নেইমার। সে এমনই প্রেম যে নেইমার এখন ভাবছেন, বুট তুলে রাখার পর ওই খেলায় নিজের মনপ্রাণ সঁপে দেবেন। ভেবে বলুন তো কোন সে খেলা? ঠিক ধরেছেন। শেন ওয়ার্নও যে খেলাটির প্রেমে পড়েছেন—পোকার!

তাসের এই খেলার বড় ভক্ত বনে গেছেন পিএসজির এই ব্রাজিলিয়ান তারকা। ফুটবল ছাড়ার পর পোকারে মনোনিবেশ করতে চান তিনি। নেইমার এই খেলার কত বড় ভক্ত, তা বোঝা যায় তাঁর পোষা কুকুরের নাম ‘পোকার’ রাখায়। ব্রাজিলের ঘরে বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হওয়ার সময় খেলাটির প্রেমে পড়েছিলেন নেইমার।

এরপর বার্সেলোনায় খেলতে জেরার্ড পিকের সঙ্গে। পিএসজিতে যোগ দেওয়ার পরও জুটেছে পোকার খেলার সঙ্গী। কেইলর নাভাস ও লিয়ান্দ্রো পারেদেসকে পোকার খেলার বড় প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে দেখেন নেইমার।

বিজ্ঞাপন

ফরাসি সংবাদমাধ্যম সিনিউজের সঙ্গে আলাপচারিতায় পোকারের প্রতি ভালোবাসার কথা জানান ২৯ বছর বয়সী এ ফরোয়ার্ড, ‘হ্যাঁ, এটা সত্য। যেসব বিষয় ভালোবাসি তার মধ্যে এটা অন্যতম। খেলতে ভালো লাগে। ফুটবল ছাড়ার পর আশা করি নানা টুর্নামেন্ট খেলতে পারব। আমি তো সব সময়ই অংশ নিতে চাই। কিন্তু নিজের ক্যারিয়ার ও লক্ষ্যের কারণে পারি না। তাই ফুটবল ছাড়ার পর এই কাজটা করতে চাই। নানা জায়গায় গিয়ে টুর্নামেন্ট খেলতে চাই।’

ফুটবলের সঙ্গে পোকার খেলার একটি মিলও দেখেন পিএসজি তারকা, ‘পোকার ও ফুটবল খেলার মধ্যে মিল আছে। মনোযোগটা এখানে খুব গুরুত্বপূর্ণ। খেলায় যেভাবে প্রতিপক্ষের মন পড়তে হয়, সেটা খুব গুরুত্বপূর্ণ।’

নেইমার এরপর ব্যাখ্যা করলেন, ‘ফুটবলে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে কাজটা আমি মাঠে করি—মাঠে খেলাটা বোঝার চেষ্টা করি। প্রতিপক্ষকে বোঝার চেষ্টা করি। আক্রমণ করার জায়গা খুঁজে বের করি, যেন দলের জন্য সুযোগ সৃষ্টি হয়।’

নেইমার বলে যান, ‘পোকারই ঠিক একই রকম। খেলাটা বুঝতে হবে, প্রতিপক্ষের মন পড়ার চেষ্টা করতে হবে। আক্রমণের সঠিক সময়টা জানতে হবে।’ এ মৌসুমে ফুটবল মাঠে ব্যস্ত সময় কাটছে তাঁর। কিছুদিন আগে বায়ার্ন মিউনিখকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ সেমিফাইনালে উঠেছে পিএসজি।

সেমিফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ ম্যানচেস্টার সিটি। নেইমারের সামনে এখন ‘ট্রেবল’ জয়ের সুযোগ। লিগ ‘আঁ’তে লিলের সঙ্গে ৩ পয়েন্ট ব্যবধানে পিছিয়ে দুইয়ে রয়েছে পিএসজি। এ ছাড়া ফ্রেঞ্চ কাপের কোয়ার্টার ফাইনালেও উঠেছে ফরাসি ক্লাবটি।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন