৩৩ ম্যাচে ৭৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আনচেলত্তির দল। সমান ম্যাচে ৬১ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে আতলেতিকো মাদ্রিদ। ৩১ ম্যাচে ৬০ পয়েন্ট নিয়ে তিনে বার্সেলোনা। ১৭ পয়েন্ট ব্যবধান ঘুচিয়ে রিয়ালকে ধরার সুযোগ নেই আতলেতিকোর।

বার্সার সুযোগটা কাগজে কলমে। নিজেদের বাকি ৭ ম্যাচ তো জিততে হবেই, রিয়ালও বাকি পাঁচ ম্যাচের ফলও নিজেদের পক্ষে যাওয়ার প্রার্থনা করতে হবে কাতালান ক্লাবটিকে। বাস্তবতা বলছে, লিগ জয়ের সুবাস পাচ্ছে আনচেলত্তির দল।

default-image

অথচ, ওসাসুনার মাঠে আজ প্রায় অবাস্তব এক ঘটনারই সাক্ষী হয়ে রইলেন দর্শকেরা। মৌসুমজুড়ে ফর্মে থাকা, এবার লিগে ২৫ গোল নিয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতা করিম বেনজেমা সাত মিনিটের ব্যবধানে দুবার পেনাল্টি থেকে গোল করতে পারনেনি! ডেভিড আলাবা, মার্কো আসেনসিও ও লুকাস ভাসকেজ গোল করায় জিততে অবশ্য বেগ পায়নি মাদ্রিদের ক্লাবটি। তবে বেনজেমাও স্বস্তি নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারেননি।

ওসাসুনা প্রথমার্ধে তুলনামূলক ভালো খেললেও আলাবা এবং আসেনসিওর গোলে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে বিরতিতে যায় রিয়াল। ৫১ সিনিটে রদ্রিগোকে ঠেকাতে গিয়ে বক্সের ভেতর হ্যান্ডবল এর অপরাধ করেন ওসাসুনা ডিফেন্ডার আভিলা। পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। স্পটকিক থেকে বাঁ দিকে বেনজেমার শট রুখে দেন ওসাসুনা গোলকিপার সের্হিও এরেরা।

ছয় মিনিট পর সেই রদ্রিগোকেই বক্সে অবৈধভাবে ফেলে দেন ভিদাল। আবারও পেনাল্টি। এবার ডান প্রান্ত দিয়ে শট নিয়েও বেনজেমা এরেরাকে ফাঁকি দিতে পারলেন না! গত ১৬ বছরের মধ্যে লা লিগায় এক ম্যাচে দুটি পেনাল্টি মিস করা প্রথম খেলোয়াড় বেনজেমা। সর্বশেষ ২০০৬ সালে রিয়াল বেতিসের বিপক্ষে এই অনাকাক্ষিত নজির গড়েছিলেন স্প্যানিশ স্ট্রাইকার রাউল তামুদো।

default-image

ওসাসুনা বিরতির পর আর গোল করতে পারেনি। উল্টো যোগ করা সময়ের ছয় মিনিটে গোল করে রিয়ালের জয়ের ব্যবধান বাড়ান ভাসকেজ। বদলি হয়ে নামা ভিনিসিয়ুস ম্যাচের শেষ মুভে প্রতি আক্রমণে নেতৃত্ব দিয়ে তাঁকে দিয়ে গোল করান।

এর আগে প্রথমার্ধের ১২ মিনিটে আলাবা এগিয়ে দেন রিয়ালকে। ফ্রি কিক থেকে ফিরতি বলে নেওয়া শটে গোল করেন। কিন্তু দুই মিনিট পরই প্রতি আক্রমণ থেকে সমতাসূচক গোল করে আনচেলত্তির কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ ফেলেন ওসাসুনার ক্রোয়াট ফরোয়ার্ড আন্দে বুদিমির। প্রথমার্ধে নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে দানি সেবায়োসের নেওয়া শট ফিরে এলে পাল্টা সুযোগে গোল করেন আসেনসিও।

ম্যাচে ১০ মিনিট বাকি থাকতে অনাকাক্ষিত এক ঘটনায় খেলা থামান রেফারি রিকার্ডো ডি বুর্হোস। রিয়াল গোলকিপার থিবো কোর্তোয়াকে তাক করে কিছু একটা ছুঁড়ে মারেন ওসাসুনা সমর্থকেরা। এই আচরণ বেলজিয়ান গোলকিপারকে অবশ্য খুব একটা বিচলিত করতে পারেনি। শেষ দিকে কোর্তোয়ার কোনো পরীক্ষা নিতে পারেনি ওসাসুনা।

সেভিয়ার বিপক্ষে খেলানো একাদশে চারটি পরিবর্তন এনে দল সাজান রিয়াল কোচ আনচেলত্তি। নাচো ফার্নান্দেজ ও দানি সেবায়োসকে এ মৌসুমে প্রথমবারের মতো মূল একাদশে খেলান ইতালিয়ান এই কোচ। মঙ্গলবার চ্যাম্পিয়নস লিগ সেমিফাইনালে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে ম্যাচ সামনে রেখে লুকা মদরিচ ও কাসেমিরোকে বিশ্রাম দেন আনচেলত্তি।

ম্যাচ শেষে আনচেলত্তি জানালেন, বেনজেমার পেনাল্টি মিস করা নিয়ে ভাবছেন না, ‘কোনো চিন্তা নেই। আমি জানি সে পরের ম্যাচে গোল করবে।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন