বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

কাল নেশনস লিগে শুরুতে দাপট দেখিয়েছে স্পেন। দ্বিতীয়ার্ধে এগিয়েও গিয়েছিল তারা। কিন্তু এক মিনিট পরই স্পেনের হাসি মুছে দিয়েছেন বেনজেমা। একক প্রচেষ্টায় দুর্দান্ত এক গোলে দলকে ম্যাচে ফিরিয়েছেন। পরে কিলিয়ান এমবাপ্পেকে দিয়ে আরও বেশ কয়েকটি গোলের সুযোগও সৃষ্টি করেছিলেন। সেগুলো কাজে লাগাতে না পারলেও পরে বিতর্ক জন্ম দেওয়া এক গোলে ঠিকই দলকে জিতিয়েছেন এমবাপ্পে। কিন্তু ফাইনালসেরা হয়েছেন বেনজেমাই।

default-image

এর আগে সেমিফাইনালেও বেলজিয়ামের বিপক্ষে ২-০ গোলে পিছিয়ে পড়া ফ্রান্সের হয়ে প্রত্যাবর্তনের শুরুটা হয়েছিল বেনজেমার আরেকটি দুর্দান্ত গোলে। দেশের হয়ে বেনজেমার প্রথম ট্রফির সে মুহূর্ত উদ্‌যাপন করেছে তাঁর ক্লাব রিয়াল। তবে প্রথমে নিজের দেশ স্পেনের খেলোয়াড়দের সান্ত্বনা দিয়েছে রিয়াল। এক টুইট বার্তায় লিখেছে, ‘দারুণ এক টুর্নামেন্ট খেলায় এবং ফাইনালে ওঠায় স্পেন দলকে অভিনন্দন। কোচ ও স্পেন দলের সব খেলোয়াড়কে অভিনন্দন। গর্বিত।’

এরপর ফ্রান্স দলকে অভিনন্দন জানিয়েছে রিয়াল। সে টুইটেই বেনজেমার হয়ে ‘ওকালতি’ করেছে ক্লাবটি, ‘অসাধারণ নেশনস লিগ শিরোপা জেতায় ফ্রান্স দল ও ফ্রেঞ্চ–সমর্থকদের অভিনন্দন। আর বিশেষ করে অভিনন্দন জানাচ্ছি আমাদের দুর্দান্ত খেলোয়াড় বেনজেমাকে, ব্যালন ডি’অর।’

default-image

২০২১ সাল দুর্দান্ত কাটছে বেনজেমার। গতকাল পর্যন্ত ৪৮ ম্যাচ খেলে ৪৮টি গোলে অবদান রেখেছেন তিনি। ব্যালন ডি’অরের ৩০ জনের তালিকায় ঢুকে পড়েছেন। কিন্তু ক্লাবের হয়ে কোনো শিরোপা না জেতায় তাঁর হয়ে জোর গলায় কিছু বলার উপায় ছিল না। নেশনস লিগের সুবাদে বেনজেমার পক্ষে কথা বলার লোকের সংখ্যা বাড়ল।
বেনজেমা অবশ্য ব্যক্তিগত অর্জন ভুলে আপাতত ফ্রান্সের হয়ে কিছু জেতার আনন্দই উপভোগ করতে ব্যস্ত, ‘আমার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ শিরোপা এটা। জাতীয় দলে ফিরতে পেরে আমি গর্বিত এবং এ জয় আমাকে খুবই আনন্দ দিয়েছে। বহু পরিশ্রমের ফল এটি এবং এখন আমি দলের সঙ্গে ট্রফি জয় উদ্‌যাপন করতে পারছি।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন