বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংবাদমাধ্যম ‘ফ্রান্স ফুটবল’-এ দীর্ঘ সাক্ষাৎকার দিয়েছেন মেসি। সেখানেই উঠে এসেছে ব্যালন ডি’অরে ভোট দেওয়ার প্রসঙ্গ। ছয়বার এ পুরস্কারজয়ী আর্জেন্টাইন তারকা জানালেন, তিনি নিজের দুই ক্লাব সতীর্থকেই ভোট দেবেন। মেসির সে দুই সতীর্থ কে, তা না বললেও চলে। কে আবার, নেইমার ও কিলিয়ান এমবাপ্পে!

এ বছর ব্যালন ডি’অর-এ ৩০ জন প্রতিদ্বন্দ্বীর সংক্ষিপ্ত তালিকা কাল প্রকাশ করে ফ্রান্স ফুটবল। সেখানে নেইমার ও এমবাপ্পেদের নাম থাকলেও আসল লড়াইটা মেসি, লেভানডফস্কি ও জর্জিনিওর মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখছেন সবাই। এবার রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে দারুণ শুরু করা করিম বেনজেমার নামও আসছে।

default-image

একটা আন্তর্জাতিক শিরোপার জন্য আর্জেন্টিনার ২৮ বছরের হাহাকার ঘুচিয়ে কোপা আমেরিকা জেতানোর পথে টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়, সেরা গোলদাতা তো হয়েছেনই, গোলে সহায়তায়ও সেরা ছিলেন মেসি। ক্লাব ফুটবলে বার্সেলোনার হয়ে ৩৮ গোল করেছেন, আরও ১৪টি করিয়েছেন মেসি। জিতেছেন কোপা দেল রে শিরোপাও। কিন্তু বার্সা তাঁকে ধরে রাখতে পারেনি। নতুন মৌসুম শুরুর আগেই তিনি নাম লিখিয়েছেন পিএসজিতে।

মর্যাদার এ পুরস্কারে বিজয়ী বেছে নিতে ভোট দেওয়া প্রসঙ্গে মেসি বলেন, ‘আমার দলে (পিএসজি) এমন দুজন খেলোয়াড় আছেন, ভোট দেওয়ার ক্ষেত্রে যাঁদের নাম সহজেই বেছে নেওয়া যায়—নেইমার ও কিলিয়ান এমবাপ্পে।’ এর বাইরে বায়ার্ন মিউনিখে গোলের বান ছুটিয়ে চলা লেভানডফস্কি ও রিয়াল মাদ্রিদের ফরাসি তারকা করিম বেনজেমারও প্রশংসা করেছেন মেসি, ‘রবার্ট লেভানডফস্কি দারুণ একটা বছর কাটাল। করিম বেনজেমারও খুব ভালো কেটেছে।’

কয়েক বছর ধরে ব্যালন ডি’অরজয়ী নির্ধারণে দলীয় শিরোপাকেও আগের চেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। সেটি মনে করিয়ে দিয়ে মেসি বলেন, ‘পুরস্কারটা কে জিতবে, তা বলা কঠিন। কারণ, দল হিসেবে পাওয়া সাফল্য ব্যালন ডি’অর জয়ে খুব গুরুত্বপূর্ণ। আগে বছরজুড়ে সবচেয়ে ভালো খেলা ফুটবলাররা এ পুরস্কার জিতেছেন, কিন্তু এখন যে সবচেয়ে বেশি শিরোপা জেতে, তাকেই প্রাধান্য দেওয়া হয়। এই পুরস্কারে শিরোপা জয়ের গুরুত্ব আছে।’

default-image

২৯ নভেম্বর প্যারিসে এবার ব্যালন ডি’র দেওয়া হবে। করোনা মহামারির কারণে গত বছর ব্যালন ডি’অর দেওয়া হয়নি। সেবার পুরস্কারটি জয়ের দারুণ সম্ভাবনা ছিল বায়ার্ন মিউনিখের পোলিশ স্ট্রাইকার রবার্ট লেভানডফস্কির। তবে বর্ষসেরা ফুটবলারের আরেক পুরস্কার ফিফা দ্য বেস্টে গত বছরের ট্রফিটা গেছে লেভারই হাতে। এবারও দারুণ ফর্ম ধরে রেখে ৫০ গোল করেছেন লেভা। চেলসির ইতালিয়ান মিডফিল্ডার জর্জিনিও চ্যাম্পিয়নস লিগ ও ইউরো জিতে উঠে এসেছেন সম্ভাব্য বিজয়ীদের কাতারে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন