বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

যথারীতি ৪-৩-৩ ছকে মাঠে নেমেছিল রিয়াল। গোলবারে থিবো কোর্তোয়াকে রেখে লেফটব্যাক হিসেবে আজ খেলেছেন ডেভিড আলাবা। সেন্টারব্যাকে জুটি বেঁধেছেন নাচো ফার্নান্দেস ও এদের মিলিতাও। এদেন হ্যাজার্ডকে আজ বেঞ্চে বসিয়ে রেখেছিলেন কোচ কার্লো আনচেলত্তি, তাঁর জায়গায় নামানো হয়েছিল স্প্যানিশ উইঙ্গার লুকাস ভাসকেজকে।

ভাসকেজের সঙ্গে রিয়ালের আক্রমণভাগে ছিলেন করিম বেনজেমা ও ভিনিসিয়ুস জুনিয়র। ওদিকে রিয়ালের মাঝমাঠে খেলেছেন কাসেমিরো, লুকা মদরিচ ও ফেদেরিকো ভালভার্দে।

ইন্টার তাদের পরিচিত ৩-৫-২ ছকেই খেলেছে। আক্রমণভাগে ছিলেন দুই স্ট্রাইকার লাওতারো মার্তিনেজ ও এদিন জেকো। দুপাশে দুই উইংব্যাক মাত্তেও দারমিয়ান ও ইভান পেরিসিচকে রেখে মাঝমাঠ সামলেছেন ইতালির নিকোলো বারেল্লা, তুরস্কের হাকান চালহানোলু ও ক্রোয়েশিয়ান মিডফিল্ডার মার্সেলো ব্রোজোভিচ।

রক্ষণভাগে ছিলে ডাচ্‌ ডিফেন্ডার স্তেফান দে ভ্রাই, আলেসসান্দ্রো বাস্তোনি ও মিলান স্ক্রিনিয়ার, গোলবারের নিচে যথারীতি অধিনায়ক সামির হানদানোভিচ।

default-image

প্রথম থেকেই দুই দল বেশ কিছু সুযোগ পেয়েছে। জেকো, লাওতারো ও ব্রোজোভিচের কল্যাণে গোল পেয়ে যেতেই পারত ইন্টার। ওদিকে রিয়ালের হয়ে সুযোগ পেয়েছিলেন কাসেমিরো। গোল কেউই পায়নি।

শেষমেশ লুকা মদরিচের জায়গায় দলে নতুন আসা কামাভিঙ্গা আর ভাসকেজের জায়গায় রদ্রিগো নামার পরেই খেলার নিয়ন্ত্রণ চলে যেতে থাকে রিয়ালের হাতে। ৯০ মিনিটে যার প্রতিফলন দেখা যায়। ফেদেরিকো ভালভার্দের কাছ থেকে বল নিয়ে রদ্রিগোর উদ্দেশে বল বাড়ান কামাভিঙ্গা। দুর্দান্ত ভলিতে গোল করে দলকে কাঙ্ক্ষিত এক জয় এনে দেন রদ্রিগো।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন