এএফসি কাপে প্রথম ম্যাচেই আলো কেড়েছিলেন বার্কোস (বাঁ থেকে তৃতীয়)।
এএফসি কাপে প্রথম ম্যাচেই আলো কেড়েছিলেন বার্কোস (বাঁ থেকে তৃতীয়)। প্রথম আলো ফাইল ছবি

ভেন্যু জটিলতায় বাতিল হয়ে যেতে পারে এএফসি কাপ, এমন একটা গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল বেশ কিছুদিন ধরেই। সেটাই সত্যি হয়ে গেল, শেষ পর্যন্ত বাতিলই হয়ে গেল টুর্নামেন্টটি। আজ অনলাইনে এএফসির নির্বাহী কমিটির সভায় এএফসি কাপ বাতিল করেছে এশিয়ান ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থাটি।

এবারের এএফসি কাপে দুর্দান্ত শুরু করেছিল বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস। নিজেদের প্রথম ম্যাচে ঢাকায় মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টসকে ৫-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল কিংসরা। সে ম্যাচ হার্নান বার্কোস, আনিসুর রহমানদের দাপট দেখে অনেকেই ধরে নিয়েছিলেন ‘ই’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে পরবর্তী রাউন্ডে যেতে পারে বাংলাদেশের প্রতিনিধিরা। কিন্তু এরপরই করোনা ভাইরাসের কারণে টুর্নামেন্ট স্থগিত ঘোষণা করা হয়।

বিজ্ঞাপন

পরিস্থিতি উন্নতি হওয়ার পর হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে পদ্ধতি বাদ দিয়ে ২৩ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বরে শুধু মালদ্বীপে দক্ষিণ এশিয়ান অঞ্চলের খেলাগুলো অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আজ বাতিল করে দেওয়া হয়েছে টুর্নামেন্টটি।
এই খবরে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার কথা বসুন্ধরার। এরই মধ্যে এএফসি কাপকে সামনে রেখে অনুশীলন শুরু করেছে তারা। শুধু এএফসি কাপের জন্য প্রায় ২০ হাজার ডলার মাসিক বেতনে দলে নেওয়া হয়েছে আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের সাবেক স্ট্রাইকার হার্নান বার্কোসকে। প্রথম ম্যাচে ৪ গোল করে জাত চিনিয়ে গিয়েছিলেন ছুটিতে। আজই ফিরেছেন ঢাকায়।

বিজ্ঞাপন

আর্জেন্টাইন এই স্ট্রাইকারের সঙ্গে প্রথমবারের মতো ঢাকায় এসেছেন নতুন ব্রাজিলিয়ান দুই ফুটবলার রবসন রবিনহো ও জোনাথন ফার্নান্দেজ। মূলত এএফসি কাপকে সামনে রেখেই রবিনহো ও ফার্নান্দেজকে নিয়েছিল বসুন্ধরা। ক্লাবটির জন্য হতাশার ব্যাপার, তাঁদের ঢাকায় পা রাখার দিনেই  বাতিল হয়ে গেল টুর্নামেন্টটি।
এবারই প্রথম এএফসি কাপ মিশনে নেমেছিল কিংসরা। তাদের সান্ত্বনা বলতে এক ম্যাচ খেলেই ৫-১ গোলের বড় জয় পেয়েছিল তারা। এই জয়েই শেষ হলো বসুন্ধরার প্রথম এএফসি কাপ। আগামী মৌসুমেও ফেডারেশন কাপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে এএফসি কাপে খেলার কথা  তাদের।

মন্তব্য পড়ুন 0