default-image

সেপ ব্ল্যাটার ‘ফুটবল মসনদে’ বসেছিলেন সেই ১৯৯৮ সালে। সেই থেকে আজ পর্যন্ত তিনি সেই মসনদেই আসীন—এ তথ্যে কেমন যেন একটা একনায়কতন্ত্রের ছোঁয়া আছে। এমন মনে হওয়াটা খুবই স্বাভাবিক যে, ব্ল্যাটার ফিফার সভাপতির পদটা ১৬ বছর ধরে এক প্রকার ‘দখল’ই করে আছেন। কিন্তু ব্যাপারটা তা নয়, তাঁর সভাপতিত্বে কোনো ‘অগণতান্ত্রিক’ ও ‘নিয়মবহির্ভূত’ বিষয় নেই। বেশ গণতান্ত্রিকভাবেই তিনি আসীন ফুটবল অভিভাবকদের শীর্ষ পদে।

এবার বোধ হয় বেশ বড় পরীক্ষাই দিতে হবে ব্ল্যাটারকে। তাঁর সামনে তিন প্রতিদ্বন্দ্বী—সাবেক পর্তুগিজ ফুটবল মহাতারকা লুইস ফিগো, ডাচ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান মিশেল ফন প্রাগ ও এফসি সহসভাপতি জর্ডানের আলি বিন আল হুসেইন।
মনোনয়ন দাখিল করেছিলেন সাবেক ফিফা নির্বাহী জেরোম শ্যাম্পেন এবং সাবেক ফরাসি ফুটবলার ডেভিড জিনোলাও। তবে প্রয়োজনীয় সমর্থনের অভাবে চূড়ান্ত লড়াইয়ে বাদ পড়েছেন এ দুজন। সোমবার ব্ল্যাটার, ফিগো, প্রাগ ও বিন আল হুসেইনের নাম অনুমোদন করেছে ফিফার নির্বাচনী কমিটি। ব্ল্যাটার এবার লড়ছেন পঞ্চম মেয়াদে। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বীদের মধ্যে সবচেয়ে বড় নাম বলা হচ্ছে ফিগোকে।
ফিফা সভাপতি পদে নির্বাচন হবে আগামী ২৯ মে। সভাপতি পদে জিততে হলে প্রার্থীকে পেতে হবে ফিফার ২০৫ সদস্যের সংখ্যাগরিষ্ঠতা। ব্ল্যাটারের ‘ভোটব্যাংক’ ধরা হচ্ছে আফ্রিকা ও এশিয়া মহাদেশ। আগের নির্বাচনগুলোয় এ দুটি মহাদেশের ফেডারেশনগুলোর দারুণ সমর্থন পেয়েছেন তিনি। তথ্যসূত্র: এএফপি।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন