ফ্রান্সের জার্সিতে অভিষেকেই উজ্জল কামাভিঙ্গা।
ফ্রান্সের জার্সিতে অভিষেকেই উজ্জল কামাভিঙ্গা।ছবি: এএফপি

কেউ তাঁকে বলেন নতুন পল পগবা। কারওর চোখে অবশ্য পগবার মতো অত শৈল্পিক নন তিনি। তাঁদের মতে শিল্পিত খেলার পাশাপাশি কাসেমিরোর মতো শারীরিক শক্তির প্রদর্শনও করতে পারেন বেশ। রিয়াল মাদ্রিদ দ্বিতীয় দলেই পড়ে। পড়ে দেখেই গত এক বছর ধরে এই এদুয়ার্দো কামাভিঙ্গাকে চলে আনার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তাঁরা, মূল রক্ষণাত্মক মিডফিল্ডার কাসেমিরোর বিকল্প হিসেবে। সেই কামাভিঙ্গাই গত রাতে ফ্রান্সের হয়ে পেয়েছেন আন্তর্জাতিক ফুটবলের প্রথম স্বাদ। নেমেই গড়েছেন রেকর্ড।

ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে নেশনস লিগের ম্যাচে প্রথম থেকে ছিলেন না কামাভিঙ্গা। নেমেছেন ৬৩ মিনিটে, চেলসির তারকা মিডফিল্ডার এনগোলো কান্তের বদলে। নামার সময় কামাভিঙ্গার বয়স ছিল মাত্র ১৭ বছর ৩০৩ দিন। ফ্রেঞ্চ ফুটবল ফেডারেশনের মতে, ১৯৪৫ সালের পর এত কম বয়সে ফ্রান্স দলে কারওর অভিষেক হয়নি। ক্লাব রেনেঁ ও জাতীয় দল মিলিয়ে সিনিয়র ক্যারিয়ারে এর আগে মাত্র ৪৪টা ম্যাচ খেলেছিলেন কামাভিঙ্গা। তাতেই জাত চিনিয়েছেন নিজের। কামাভিঙ্গার রেকর্ড গড়ার ম্যাচে ক্রোয়েশিয়াকে ৪-২ গোলে হারিয়েছে ফ্রান্স। ২০১৮ বিশ্বকাপ ফাইনালেও এই দুই দল মুখোমুখি হয়েছিল। কাকতালীয়ভাবে সেবারও স্কোরলাইন ছিল ৪-২, বিজয়ী দল ছিল ফ্রান্স। এবারও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি।

default-image
বিজ্ঞাপন

এত কম বয়সে দেশকে প্রতিনিধিত্ব করতে পেরে কামাভিঙ্গাও গর্বিত, 'সবার প্রথমে আমি আমার পরিবার ও সকল ফরাসি মানুষের জন্য গর্বিত। আমি জানি না আমার খেলার আত্মবিশ্বাস কোথা থেকে আসে, আমি আজীবন বয়স্ক খেলোয়াড়দের সঙ্গেই খেলেছি। যা আমাকে আরও পাকা খেলোয়াড় হতে সাহায্য করেছে। আমার এখন লক্ষ্য বারবার জাতীয় দলের হয়ে খেলতে আসা। ক্লাবের হয়েও আমাকে ভালো খেলতে হবে। সেদিকে আমাকে মনোযোগ দিতে হবে।'

ফ্রান্সের হয়ে গোল করেছেন বার্সেলোনার ফরোয়ার্ড আতোয়াঁ ফ্রিজমান, চেলসির স্ট্রাইকার অলিভিয়ের জিরু, লাইপজিগের সেন্টারব্যাক দায়োত উপামেকানো। বাকি গোলটা ক্রোয়েশিয়ার গোলরক্ষক লিভাকোভিচের আত্মঘাতী। ক্রোয়েশিয়ার হয়ে গোল করেছেন সেন্টারব্যাক দেয়ান লভরেন ও উইঙ্গার জোসিপ ব্রেকালো। গোল করার ফলে জাতীয় দলের জার্সি গায়ে গ্রিজমানের গোল হয়ে গেল ৩১টা, জিরুর ৪০। জিরুর চেয়ে ফ্রান্সের জার্সি গায়ে বেশি গোল আছে শুধু মিশেল প্লাতিনি (৪১) ও থিয়েরি অঁরির (৫১)। ওদিকে জিরু ও গ্রিজমানের মধ্যে সর্বোচ্চ গোলদফাতার তালিকায় আছেন সাবেক স্ট্রাইকার ডেভিড ত্রেজেগে (৩৪)। ওদিকে উপামেকানোর গোলে সহায়তা করার কারণে এই শতকে ফ্রান্সের জার্সি গায়ে গ্রিজমানের অ্যাসিস্টসংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২১-এ। সবার ওপরে থাকা অঁরির অ্যাসিস্ট-সংখ্যা ২৫টা।

মন্তব্য পড়ুন 0