বিজ্ঞাপন

আগামী জুনের ৩, ৭ ও ১৫ তারিখ বাংলাদেশের তিনটি ম্যাচ। তিনটি ম্যাচই বাংলাদেশের ‘হোম ম্যাচ’। করোনা না এলে এই তিন ম্যাচ হয়ে যাওয়ার কথা ছিল ২০২০ সালের জুনের মধ্যেই। ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে আফগানিস্তানের বিপক্ষে তাজিকিস্তানের দুশানবেতে (নিরপেক্ষ ভেন্যু) অ্যাওয়ে ম্যাচটি বাংলাদেশ হেরেছিল ১-০ গোলে। ভারতের বিপক্ষে কলকাতায় জিততে জিততে ১-১ গোলে ড্র করা ম্যাচটি হয়েছিল অক্টোবরে। নভেম্বরে ওমানের বিপক্ষে মাসকাটে বাংলাদেশ হেরেছিল ৪-১ গোলে।

বাংলাদেশের দুর্ভাগ্যই বলতে হবে, এ তিনটি ম্যাচ ঘরের মাটিতে খেলতে পারা। গত বছর মার্চে সিলেটে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ আয়োজনের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হলেও করোনা বেড়ে যাওয়ার কারণে তা স্থগিত হয়ে যায়। এবার তিনটি ম্যাচ হবে কাতারের দোহায়।

default-image

ঘরের মাঠে খেলা না হলেও ভারত ও আফগানিস্তানকে হারাতে চায় বাংলাদেশ। জামাল ভূঁইয়ার এমন প্রত্যাশা আগের দুটি অ্যাওয়ে ম্যাচের কথা হিসাব করেই। ভারতকে কলকাতার যুব ভারতীয় ক্রীড়াঙ্গনে ৬৫ হাজার দর্শকের সামনে প্রায় হারিয়েই দিয়ে আসছিল বাংলাদেশ। সাদউদ্দিনের গোলে ৮৮ মিনিট পর্যন্ত এগিয়ে ছিল দল। মাঠের পারফরম্যান্সও হয়েছিল দুর্দান্ত। এগিয়ে থাকা অবস্থায় গোটা তিনেক নিশ্চিত গোলের সুযোগ হাতছাড়ার পাশাপাশি ক্রসবারে বল লাগার দুর্ভাগ্যের মধ্যেও পড়তে হয়েছে বাংলাদেশকে। শেষ পর্যন্ত লিডটা আর ধরে রাখা যায়নি। দুশানবেতে আফগানদের বিপক্ষেও বাংলাদেশ ভালো খেলেছিল। সুযোগ কাজে লাগাতে না পারার ব্যর্থতার কারণে হেরেই ফিরতে হয়েছে সেখান থেকে।

এবার ভারত আর আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয় নিয়েই দোহা থেকে ফিরতে চান জামাল। তিনি মনে করেন আফগানিস্তান, ভারত ও বাংলাদেশের মান প্রায় একই, ‘আফগানিস্তান, ভারত ও বাংলাদেশের খেলোয়াড়েরা একই মানের। ভারতের সঙ্গে কী হয়েছে, সবাই দেখেছে। আফগানিস্তানের সঙ্গে ভালো খেলেও গোল মিসের জন্য জিততে পারিনি। আমি এখনো মনে করি, পরবর্তী ম্যাচে তাদের হারানো সম্ভব।’

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে জেরবার ভারত। সে কারণে জুনে দোহায় গিয়ে এসব ম্যাচ খেলতে রাজি ছিল না তারা। ম্যাচ পেছাতে এএফসিকে চিঠিও দিয়েছিল তারা। কিন্তু এশীয় ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা তাতে রাজি হয়নি। এখন ২০ মে কাতারে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারত। বাংলাদেশ যাবে ২১ অথবা ২২ মে। কাতারে পৌঁছে আবারও করোনা পরীক্ষা করাতে হবে দলকে। সেখানে নেগেটিভ হলে দুই দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন