বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ঢাকা ছাড়ার আগে কোচ থেকে খেলোয়াড় সবাই বলেছিলেন, ম্যাচ ধরে ধরে এগোতে চায় বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১-০ গোলের জয়ের ম্যাচটি এখন অতীত। এখন সব ভাবনা ভারত ম্যাচকে কেন্দ্র করে। আজ অনুশীলন শেষে সহকারী কোচ মাহবুবুর রক্সি বলেন, ‘পরবতী ম্যাচ ভারতের বিপক্ষে। আমরা বলেছি ম্যাচ ধরে ধরে এগোবো। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের জন্য যে পরিকল্পনার প্রয়োজন, সেটা নিয়ে এরই মধ্যে কাজ শুরু হয়ে গেছে। এখন আমাদের গোল বাড়াতে হবে। গোল করার জন্য যে পরিস্থিতি সৃষ্টি করা প্রয়োজন, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আমরা তা করেছিলাম। গোলের জন্য ভাগ্যেরও প্রয়োজন হয়।’

default-image

বাংলাদেশ (১৮৯) ও ভারতের (১০৭) র‍্যাঙ্কিংয়ের ব্যবধান অনেক হলেও দুটি দল মাঠে নামলে সেই পার্থক্যটা সাধারণত আর অতটা প্রকট থাকে না। প্রতিবেশী দেশটির বিপক্ষে মাঠে নামার জন্য মুখিয়ে আছেন বাংলাদেশের ফুটবলাররা। মোহাম্মদ ইব্রাহিম বলেন, ‘ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচ মানেই হাইভোল্টেজ ম্যাচ। আমাদের সব খেলোয়াড়েরা এই ম্যাচ খেলার জন্য অধীর অপেক্ষায় আছে। আমি ব্যক্তিগতভাবেও খুব আগ্রহী। এর আগে সল্টলেকে ভালো খেলেও আমরা জিততে পারেনি। এবার জয়টা পেলে ভালো হয়।’

এর আগে কাতার বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের প্রথম ম্যাচে সল্টলেকে ১ গোলে এগিয়ে গিয়েও শেষ পর্যন্ত ১-১ গোলে ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ। যদিও এই বছর দ্বিতীয় পর্বে ২-০ গোলে হেরেছে বাংলাদেশ। চলতি সাফে বাংলাদেশ ম্যাচ খেললেও এখনো মাঠে নামেনি ভারত। বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়েই টুর্নামেন্ট শুরু করবেন সুনীল ছেত্রীরা।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন