এ মৌসুমটা ভালো কাটছে না রোনালদোর।
এ মৌসুমটা ভালো কাটছে না রোনালদোর।ছবি: রয়টার্স

পাছে লোকে কিছু বলবেই। তা নিয়ে পড়ে থাকলে চলে! ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো হলেন এ ঘরানার মানুষ। সমালোচনা যেমন তাঁর পিছু ছাড়ে না, তেমনি এই জুভেন্টাস তারকা নিজেও সমালোচনাকে পাত্তা দেন না।

ইতালিতে সময়টা মোটেও ভালো কাটছে না এই পর্তুগিজ তারকার। তিনি জানেন, সমালোচকেরা তাঁর পেনাল্টি মিস কিংবা গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে বাজে খেলার অপেক্ষায় থাকেন। যেকোনো খেলোয়াড়েরই এমন হতে পারে। এ মৌসুমে রোনালদোও নিষ্প্রভ ছিলেন জুভেন্টাসের প্রয়োজনের মুহূর্তে। তাই দাবি উঠেছে, জুভেন্টাসকে বাঁচাতে হলে রোনালদোকে বেচে দাও!

চ্যাম্পিয়নস লিগ শেষ ষোলো থেকে এবার জুভেন্টাসের বিদায়ের পর থেকেই সমালোচিত হচ্ছেন রোনালদো। ইউরোপসেরা হতেই তো তাঁকে নিয়ে এসেছে ইতালিয়ান ক্লাবটি। কিন্তু সেখানে এখন মুদ্রার উল্টো পিঠ দেখতে হচ্ছে ৩৬ বছর বয়সী এ ফরোয়ার্ডকে।

বিজ্ঞাপন
default-image

পোর্তোর কাছে সেই হারের পাঁচ দিন পর লিগে ক্যালিয়ারির বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করে নিন্দুকদের মুখ বন্ধ রাখার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন রোনালদো। কিন্তু তিনি যদি ভেবে থাকেন, তাতে নিন্দুকদের মুখ বন্ধ হবে, তাহলে ভুল হচ্ছে।

নিন্দুকদের দলেও আছেন ডাকাবুকো সব লোক। যেমন ধরুন, মাসিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রি। তাঁর দাবি, রোনালদোকে বেচে দেওয়াই ভালো জুভেন্টাসের জন্য। ওদিকে চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতাতে না পারলেও রোনালদো কিন্তু অন্য সব দাবি ঠিকই পূরণ করছেন তুরিনের ক্লাবটিতে।

গোল যেমন করছেন, তেমনি বাড়িয়েছেন জুভেন্টাসের ব্র্যান্ডমূল্যও। এদিকে অন্য খবর প্রকাশ করেছে সংবাদমাধ্যম। অ্যালেগ্রি নাকি জুভেন্টাসের সভাপতি আন্দ্রেয়া অ্যাগনেল্লির সঙ্গে দেখা করে তাঁকে বলেছেন, ক্লাবের একটি দল হিসেবে বেড়ে ওঠার পথে বাধা সৃষ্টি করছেন রোনালদো।

default-image

ইতালিয়ান সংবাদমাধ্যম ‘লা রিপাবলিকা’ এ নিয়ে অ্যালেগ্রির উদ্ধৃতিও প্রকাশ করেছে, ‘রোনালদোকে বেচে দাও। সে ক্লাব ও দলের বেড়ে ওঠার পথে বাধা।’ টানা নয়টি সিরি ‘আ’জয়ী জুভেন্টাসের হয়ে দুবার লিগ জিতেছেন রোনালদো। সংবাদপত্রটির প্রতিবেদনে বলা হয়, জুভেন্টাসের জন্য যেটা ছিল ‘শতাব্দীর সেরা চুক্তি’, সেটাই এখন যেন তারকার কাছে ‘বন্দী’ হয়ে থাকার নিয়তি। জুভদের সঙ্গে আগামী বছর চুক্তির মেয়াদ ফুরাবে রোনালদোর। এ মৌসুম শেষে ক্লাবের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বসার কথা রয়েছে তাঁর।

জুভেন্টাস রোনালদোকে ছেড়ে দিতে চায়, এমন কথাই জানিয়েছে লা রিপাবলিকা। তবে চাইলেই তো আর হবে না। কিছু বিষয় জুভেন্টাসের পক্ষেও থাকতে হবে। রোনালদোকে কেনার জন্য অন্য কোনো ক্লাবের পক্ষ থেকে তেমন বাস্তবসম্মত কোনো প্রস্তাব এখনো পায়নি জুভেন্টাস। এ ছাড়া করের ঝামেলাও রয়েছে। ইতালিতে রোনালদো করের ক্ষেত্রে যেসব সুবিধা পাচ্ছেন, সেটি ছেড়ে কেন অন্য কোথাও যাওয়ার কথা ভাববেন, সেটাও বড় প্রশ্ন।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন