রিয়ালকে জিতিয়েছেন ভিনিসিয়ুস
রিয়ালকে জিতিয়েছেন ভিনিসিয়ুসছবি: রয়টার্স

থিবো কোর্তোয়াকে ধন্যবাদ দিতেই পারেন জিনেদিন জিদান। বেলজিয়ান গোলরক্ষক কাল রিয়াল ভায়াদোলিদের বিপক্ষে কী দুর্দান্ত-ই না খেললেন! তাঁর দল রিয়াল মাদ্রিদ জিতলেও খেলাটা জিদানের মনমতো হয়নি। কোর্তোয়া দেয়াল হয়ে না দাঁড়ালে রিয়াল হারতেও পারত!

ম্যাচে মোট ৫টি সেভ করেছেন কোর্তোয়া। তাঁর ম্যাচসেরা হওয়ার দিনে রিয়ালের জয়ের নায়ক ভিনিসিয়ুস জুনিয়র। বেঞ্চ থেকে মাঠে নেমে দলের জয়সূচক গোলটি ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডেরই। ৬৫ মিনিটে ভায়াদোলিদ ডিফেন্ডার ব্রুনো গঞ্জালেসের ভুলের সুযোগ কাজে লাগান ভিনিসিয়ুস।

বিজ্ঞাপন

ব্রাজিল তারকাকে এ নিয়ে টানা দ্বিতীয় ম্যাচে বেঞ্চে বসিয়ে রেখেছিলেন রিয়াল কোচ জিদান। লুকা ইয়োভিচকে টানা দ্বিতীয় ম্যাচে মূল একাদশে খেলালেন ফরাসি তারকা-কোচ। সার্বিয়ান স্ট্রাইকার ইয়োভিচ দুটি গোলের সুযোগ নষ্ট করেছেন। প্রথমার্ধে নিশ্চিত সুযোগ নষ্টের পর দ্বিতীয়ার্ধে তাঁর হেড রুখে দেন ভায়াদোলিদ গোলরক্ষক রবার্তো হিমিনেজ। গোলের খোঁজে হন্যে জিদান ৫৮ মিনিটে পরিবর্তন আনেন। ইয়োভিচকে তুলে মাঠে নামান ভিনিসিয়ুসকে। পরিবর্তন করেন আরও দুটি জায়গায়। আলভারো ওদ্রিওজোলার বদলি হয়ে নামেন দানি কারবাহল ও ইসকোর বদলে মার্কো এসেনসিও।

default-image

খেলার ধাঁচ এরপর যে পাল্টে গেছে তা নয়। প্রথমার্ধে সন্তোষজনক ফুটবল খেলতে না পারা রিয়াল দ্বিতীয়ার্ধেও ম্যাড়ম্যাড়ে খেলা উপহার দিয়েছে। আর গোলটাও হয়েছে ভায়াদোলিদ ডিফেন্ডারের ভুলে। করিম বেনজেমার বাড়ানো পাস ব্রুনো ‘ক্লিয়ার’ করতে পারেননি। তাঁর পায়ে লেগে বল চলে যায় ফাঁকায় দাঁড়ানো ভিনিসিয়ুসের কাছে। এ সুযোগ থেকে গোল করেন তিনি। বল শট নেওয়ার সময় তিনি অফসাইড পজিশনে দাঁড়িয়ে থাকলেও গোলটি বৈধ ছিল। স্প্যানিশ রেফারি হুয়ান আন্দুজার অলিভার ‘মার্কা’কে ব্যাখ্যা করেন, ‘ব্রাজিলিয়ান খেলোয়াড় অফসাইড পজিশনে থাকলেও বলে শেষ টাচ এসেছে প্রতিপক্ষের কাছ থেকে, এতেই গোলটা হয়েছে।’

বিজ্ঞাপন

টানা দ্বিতীয় ম্যাচে জয় তুলে নিল রিয়াল। ম্যাচ শেষে জিদানের খেলোয়াড় বদল নীতির প্রশংসা করেন ভিনিসিয়ুস, ‘প্রথমার্ধ কঠিন ছিল। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে জিদান পরিস্থিতি পাল্টে দেন। তিনি এসেনসিও এবং আমাকে নামান আর আমরা খেলাটা পাল্টে দিই। আমরা জানতাম গোল হজম না করলে জিতব, কারণ আক্রমণের পর্যাপ্ত রসদ আছে। আক্রমণভাগ ভালো করতে আমরা জিদানের সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছি। এটা খেলোয়াড় ও প্রতিপক্ষের ওপর নির্ভর করে।’

৩ ম্যাচে ৭ পয়েন্ট নিয়ে যৌথভাবে লিগ টেবিলের শীর্ষে রয়েছে রিয়াল। হেতাফে, ভিয়ারিয়াল ও ভ্যালেন্সিয়ার সংগ্রহও ৭ পয়েন্ট। এর মধ্যে ভ্যালেন্সিয়া ও ভিয়ারিয়াল ৪টি করে ম্যাচ খেলেছে।

মন্তব্য পড়ুন 0