ম্যান সিটির বিপক্ষে ম্যাচের আগে কথার তির ছুড়ে পাল্টা খোঁচা খেলেন জোসে মরিনিও।
ম্যান সিটির বিপক্ষে ম্যাচের আগে কথার তির ছুড়ে পাল্টা খোঁচা খেলেন জোসে মরিনিও। ছবি: রয়টার্স

জোসে মরিনিও এমনই! টটেনহামের পর্তুগিজ কোচ এমন একেকটা কথা বলবেন, যেটা নিয়ে হইচই হবে। ওই কথার রেশ ফুটবল মহলে থাকবে অনেক দিন। প্রতিপক্ষকে নানাভাবে কথার তিরে আক্রমণ করাতে জুড়ি নেই তাঁর। এমন একটি জুড়িহীন কথা সম্প্রতি বলেছেন টটেনহামের কোচ, যেটা নিয়ে এখন সংবাদমাধ্যমে চলছে আলোচনা। মরিনিওর সেই কথার আবার উত্তর দিয়েছেন ম্যানচেস্টার সিটির কোচ পেপ গার্দিওলা। মরিনিওর বলা কথাটি যে তাঁর দল নিয়েই। তাই গার্দিওলার গায়ে বিঁধছে মরিনিওর বাক্যবাণ!

মরিনিও কথাটি বলেছেন ম্যানচেস্টার সিটির ফরোয়ার্ড রাহিম স্টার্লিংকে নিয়ে। ইংল্যান্ডের হয়ে উয়েফা নেশনস লিগের ম্যাচ খেলতে গিয়েছিলেন স্টার্লিং। কিন্তু চোট পাওয়ায় তাঁকে দল থেকে ছেড়ে দিয়েছেন ইংল্যান্ডের কোচ গ্যারেথ সাউথগেট। মরিনিও অমনি দুইয়ে দুইয়ে চার হিসাব করে ফেলেছেন। তাঁর কথা, চোট-টোট কিছু নয়, স্টার্লিংকে আসলে সাউথগেট আগেভাগে ছেড়ে দিয়েছেন সিটির হয়ে টটেনহামের বিপক্ষে খেলার জন্য। সাউথগেটকে ম্যান সিটির সমর্থক বলেও উল্লেখ করেছেন মরিনিও।

বিজ্ঞাপন

টটেনহাম আজ নিজেদের মাঠে আতিথ্য দেবে ম্যান সিটিকে। সন্দেহ নেই ম্যাচটি দুই দলের জন্যই বেশ গুরুত্বপূর্ণ। টটেনহাম এই ম্যাচ জিতলে শিরোপা লড়াইয়ে তাদের অবস্থানটা আরও পোক্ত হবে। আর ম্যান সিটির জন্য এটা মৌসুমের বাজে শুরুর ধাক্কা কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর। টটেনহাম আর সিটির মধ্যে যেমন দ্বৈরথ আছে, তেমনি দ্বৈরথ আছে মরিনিও-গার্দিওলার। ডাগআউটে দুজন দুজনের প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বী। তাই কথার লড়াইয়ে কেউ কাউকে ছাড়ার কথা নয়।

মরিনিওর কথার সুর ধরেই তাই গার্দিওলা পাল্টা খোঁচা দিয়েছেন। টটেনহামের কোচের কথা নিয়ে রীতিমতো কৌতুক করেছেন গার্দিওলা। স্প্যানিশ কোচ বলেছেন, ‘মরিনিওর উচিত হবে ইংল্যান্ড দল বা ম্যানচেস্টার সিটির চিকিৎসকের কাছে যাওয়া। তাঁকে হয় চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে, আর না হলে তাঁর নিজেরই চিকিৎসক বনে যেতে হবে। আমি জানি না তিনি আসলে কী করবেন।’ মরিনিওকে খোঁচা দিয়ে আবার কিছুই না বলার ভানও করেছেন গার্দিওলা, ‘একটা কথা শুনুন আপনারা, আমি আসলে জোসের কোনো কথার পাল্টা জবাব দিতে চাই না।’

default-image

মরিনিওর কথার জবাব দিতে চান না। তাহলে তাঁর বলা একটি কথা নিয়ে এমন কৌতুক কেন করলেন? এর উত্তরে গার্দিওলা বলেছেন, ‘আমি চিকিৎসকের বিষয়টি এ কারণে বলেছি যে তিনি আমাদের নিয়ে এমন একটি বিষয় বলেছেন, যেটা মোটেই সত্য নয়। (স্টার্লিংয়ের বিষয়ে কোনটি ঠিক তা জানতে) তাহলে তাঁকে চিকিৎসকের শরণাপন্ন তো হতেই হবে।’ এরপর গার্দিওলা যোগ করেছেন, ‘দয়া করে আমাকে এর চেয়ে বেশি কিছু জিজ্ঞাসা করবেন না। কারণ, আমি সব বুঝতে পারি। আমার বয়স তো এখন প্রায় ৫০ বছর।’

ম্যান সিটির চেয়ে এগিয়ে থেকেই আজকের ম্যাচটি খেলতে নামছে টটেনহাম। এ ম্যাচের আগে ৮ খেলায় ১৭ পয়েন্ট মরিনিওর দলের। এক ম্যাচ কম খেলা গার্দিওলার ম্যান সিটির পয়েন্ট ১২। চলতি মৌসুমে লিগে একটি মাত্র ম্যাচ হেরেছে টটেনহাম। বাকি সাত ম্যাচে জয় পেয়েছে পাঁচটিতে, দুটি ম্যাচ করেছে ড্র। সিটি সাত ম্যাচের তিনটি জিতলেও ড্র করেছে তিনটিতে। আর একটি ম্যাচ হেরেছে তারা। নিজেদের মাঠে লেস্টার সিটির কাছে হারটি অবশ্য বেশ বড়ই ছিল (৫-২)।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0