জোসে মরিনিওর সঙ্গে দূরত্ব বাড়ছে গ্যারেথ বেলের?
জোসে মরিনিওর সঙ্গে দূরত্ব বাড়ছে গ্যারেথ বেলের?ছবি: রয়টার্স

জিনেদিন জিদানের অধীনে মাদ্রিদে ব্রাত্য হয়ে উঠেছিলেন বেল। গত মৌসুমে ধীরে ধীরে জিদানের পরিকল্পনার বাইরে চলে গেছেন। সেটা আরও নিশ্চিত হয় করোনা–বিরতির পর। লিগে আট ম্যাচ বাকি ছিল। এর মধ্যে টানা সাত ম্যাচ ছিলেন বেঞ্চে। সব মিলিয়ে ১০০ মিনিট খেলেছেন। শেষ ম্যাচে তো নিজেই স্কোয়াড থেকে নাম কাটিয়ে নিয়েছিলেন। বেলকে না খেলানোয় অনেক সমালোচনাও সহ্য করতে হয়েছে জিদানকে। বেলও যেন জিদানের হাত থেকে মুক্তি পেলেই তখন বাঁচেন!

স্পেন ছেড়ে ইংল্যান্ডে তাঁর পুরোনো ক্লাব টটেনহামে ফেরার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত গত বছর সেপ্টেম্বরে ফেরাও হয় তাঁর। কিন্তু স্পার্সদের জার্সিতেও বেলের জায়গা হয়েছে বেঞ্চে। জোসে মরিনিওর মনও জয় করতে পারছেন না ওয়েলশ তারকা। টটেনহামের সমর্থকেরাও বুঝতে পারছেন বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ফুরিয়ে যাওয়ার পথে তাঁদের পুরোনো সেই বেল।

জিদানের অপছন্দের তালিকায় চলে যাওয়া বেলকে পুনর্জন্ম দেওয়ার কথা ছিল মরিনিওর। কিন্তু এর আগে বেলকে বহুবার নিজের দলে চাওয়া মরিনিও সম্ভবত হাল ছেড়ে দিচ্ছেন। চোট আর মানসিকতা মিলিয়ে বেলের আচরণ গ্রহণযোগ্য মনে হচ্ছে না মরিনিওর।

default-image
বিজ্ঞাপন

২০২০–২১ মৌসুমে সব মিলিয়ে টটেনহাম ম্যাচ খেলেছে ৩৮টি। এর মধ্যে বেল মাঠে নামতে পেরেছেন ১৫টিতে। এর মধ্যে প্রিমিয়ার লিগ ও ইউরোপা লিগে ছয়টি করে। বাকি তিনটির দুটি এফএ কাপে ও একটি কারাবা কাপে। পরিসংখ্যানই বলছে জিদানের মতো জোসে মরিনিওর মনও জয় করতে ব্যর্থ বেল।

এর মধ্যে এফএ কাপের সর্বশেষ ম্যাচকে কেন্দ্র করে মরিনহো ও বেলের মধ্যকার শুরু হয়েছে স্নায়ুযুদ্ধ। কাল ৯ গোলের উত্তেজনাকর ম্যাচে এভারটনের বিপক্ষে ৫–৪ গোলে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছে টটেনহাম। সাধারণত লিগের নিয়মিত খেলোয়াড়দের বিশ্রামে রেখে এফএ কাপে রিজার্ভ দলের ওপর আস্থা রাখেন কোচরা। লিগের ম্যাচে বেলকে একাদশে রাখেননি। এফএ কাপের এই ম্যাচে বেলকে খেলানোর ইচ্ছে থাকলেও মরিনিও পারেননি। কারণ, চোটের কথা বলে আগেই সরে দাঁড়িয়েছেন বেল। কিন্তু বেলের আদৌ চোট আছে কি না, সে ব্যাপারেই সন্দিহান মরিনহো।

এভারটনের বিপক্ষে ম্যাচের আগে বেল প্রসঙ্গে মরিনিও বলেন, ‘আমি আগে বলে নিলেই ভালো হবে সবার জন্য: আমরা রোববার ওয়েস্ট ব্রমের বিপক্ষে খেলেছি। সে (বেল) খেলেনি, বেঞ্চে ছিল। কিন্তু সোমবার সে যখন চোট অনুভব করায় স্ক্যান করানোর আগ্রহ প্রকাশ করল, আমি কিছুটা অবাক হয়েছি। সে সোমবার অনুশীলন করেনি।’

default-image
আমি মনে করি, এটি কোনো স্পষ্ট আঘাত নয়। আমি বলব যে সে (বেল) অস্বস্তি বোধ করছে এবং অনুশীলনের (না করা) কারণে সে শতভাগ ফিট হতে পারবে না।
জোসে মরিনিও, টটেনহাম কোচ

বেল পরদিন দলের সঙ্গে অনুশীলন করেছেন। কিন্তু মরিনিওর সন্তুষ্টি অর্জন করতে পারেননি, ‘মঙ্গলবার দলের সঙ্গে অনুশীলনে যোগ দেয়। কিন্তু আমাকে জানানো হয়েছে যে জায়গায় সে অস্বস্তিবোধ করছে সে জায়গার শক্তি বাড়ানোর জন্য কয়েক দিন ক্রীড়াবিজ্ঞান দলের সঙ্গে কাজ করতে চায়। এ কারণেই খেলেনি সে।’

বেলের চোট নিয়ে যে সন্দিহান তিনি, সেটিও ফুটে উঠেছে মরিনিওর কথায়, ‘আমি মনে করি, এটি কোনো স্পষ্ট আঘাত নয়। আমি বলব যে সে অস্বস্তি বোধ করছে এবং অনুশীলনের (না করা) কারণে সে শতভাগ ফিট হতে পারবে না।’

লিওনেল মেসি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর বয়সের সঙ্গে তুলনা করা হলে বেলেও এখনো অনেক কিছু দেওয়ার বাকি ছিল। কিন্তু পড়তি ফর্মের জন্য তাঁর খামখেয়ালিপনাও অনেকাংশে দায়ী মনে করেন অনেকে। রিয়ালের হয়ে শেষ দিকে তাঁর মধ্যে ফুটবল নিয়ে কোনো আগ্রহ দেখা যায়নি। টটেনহামে ফেরা পর প্রথম কিছু দিন বেশ আলোচনা হলেও ধীরে ধীরে বেলকে নিয়ে মোহ কেটে যাচ্ছে সবার। আর কখনো তাঁর সেরাটা দেখা যাবে কি না, এ নিয়েও সন্দিহান বিশেষজ্ঞরা।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন