বিজ্ঞাপন

ইংল্যান্ড থেকে স্পেন রিয়াল মাদ্রিদ ঘুরে এখন জুভেন্টাসে থাকার পথে রোনালদো নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন সর্বকালের অন্যতম সেরাদের কাতারে। ৩৬ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড ক্যারিয়ারের পড়তি সময়ে নিজ দেশে ফিরবেন বলেই আভেইরোর বিশ্বাস।

অর্থাৎ, স্পোর্টিং লিসবনে ফিরবেন রোনালদো—এমনটাই মনে করেন তাঁর মা।
২০০২ সালের পর স্পোর্টিং লিসবন এবারই প্রথম পর্তুগালের শীর্ষস্থানীয় প্রিমেরা লিগ জিতেছে। ক্লাবটির সমর্থকেরা এই সাফল্য উদ্‌যাপনের সময় লিসবনে নিজ বাসার বারান্দা থেকে সমর্থকদের সঙ্গে কথা বলেন দোলোরেস।

default-image

সমর্থকদের তিনি বলেন, ‘(স্পোর্টিং লিসবনে) ফিরিয়ে নিয়ে আসতে আমি ওর (রোনালদো) সঙ্গে কথা বলব। আগামী বছর সে আলভালাদেতে (স্পোর্টিং লিসবনের স্টেডিয়াম) খেলবে।’

কী করতে হবে, তা রোনালদোকে বলে দেওয়ার মানুষ আছে খুব কমই। যাঁরা আছেন তাঁদের মধ্যে দোলোরেস অন্যতম। রোনালদো এমনিতেও মায়ের বেশ বাধ্য। এবার সিরি ‘আ’তে গোলদাতার তালিকায় তিনি শীর্ষে এবং জুভেন্টাসের হয়ে শততম গোলের দেখাও পেয়েছেন সাসসুয়োলোর বিপক্ষে গত বুধবার—কিন্তু দল কিছু জিততে না পারায় ইউরোপের ফুটবল বাজারে গুঞ্জন চলছে, রোনালদোকে ছেড়ে দিতে পারে জুভেন্টাস।

যদিও ক্লাবটি থেকে এ নিয়ে উল্টোটা বলা হয়েছে। এদিকে দোলোরেস আভেইরো স্পোর্টিংয়ের বড় ভক্ত। রোনালদো তাই মায়ের কথা শুনে নিজের শেকড়ে ফিরতে পারেন বলে গুঞ্জন চলছে।

আগামী বছর রোনালদো ফ্রি-এজেন্ট হওয়ার আগেই তাকে বেঁচে জুভেন্টাস দু-পয়সা কামাতে চায়, এমন তথ্যও জানিয়েছে ইউরোপের সংবাদমাধ্যম। পাঁচবার ব্যালন ডি’অর জয়ী এ ফরোয়ার্ডকে ঘিরে রিয়াল মাদ্রিদ ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে ফেরার গুঞ্জন রয়েছে।

এমনকি পিএসজিতে তাঁর নেইমারের সতীর্থ হওয়ার সম্ভাবনাও দেখছে সংবাদমাধ্যম। কিন্তু জুভেন্টাসের সহসভাপতি ও সাবেক ফুটবলার পাভেল নেদভেদের যুক্তি, ‘আমি তো মনে করি, রোনালদোকে কেউ ছুঁতে পারবে না। ২০২২ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত বলবৎ রয়েছে তার চুক্তি। সে থাকবে। এরপর কী ঘটে সেটা তখন দেখা যাবে।’

সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে এ মৌসুমে ৪২ ম্যাচে ৩৫ গোল করেছেন রোনালদো। কিন্তু লিগে ইন্টার মিলানের কাছে শিরোপা হারিয়েছে জুভেন্টাস। চ্যাম্পিয়নস লিগে শেষ ষোলোয় পর্তুগালেরই ক্লাব পোর্তোর কাছে হেরে বিদায় নেয় তারা।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন