মেসিকে পিএসজিতে চান তাঁর আর্জেন্টিনা দলের সতীর্থ।
মেসিকে পিএসজিতে চান তাঁর আর্জেন্টিনা দলের সতীর্থ।ছবি: রয়টার্স

পিএসজির এ স্বপ্ন বহু দিনেরই। মালিকানা বদলের পর থেকেই ফরাসি ক্লাবটি স্বপ্ন দেখে এসেছে দলে লিওনেল মেসি কিংবা কিংবা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর মতো তারকাকে খেলানোর। আর্থিক কারণে হোক কিংবা নিজ নিজ ক্লাবের প্রতি দায়বদ্ধতার কারণে, মেসি-রোনালদো কখনোই পিএসজির নীল জার্সি গায়ে চাপানোর কথা মাথাতেও আনেননি।

কিন্তু এখন পরিস্থিতি ভিন্ন। মেসি নিজেই মৌসুম শুরুর আগে ঘোষণা দিয়ে বার্সেলোনা ছাড়ার ইচ্ছার কথা জানিয়েছেন। চুক্তির ফাঁকফোকর দেখিয়ে আপাতত মেসিকে আটকে রাখতে পারলেও আগামী মৌসুমে চুক্তি নবায়ন না হলে তাঁকে আর রেখে দেওয়া যাবে না—ব্যাপারটি মোটামুটি সবারই জানা। মেসির প্রতি আগ্রহী ক্লাবগুলোও খুব ভালোভাবেই মাথায় এটি রেখে এগোচ্ছে। পিএসজিও বোঝে, সুবর্ণ সুযোগ এটিই। কিছুদিন পরপরই তো প্যারিস থেকে মেসিকে সেখানে যাওয়ার অনুরোধ জানানো হচ্ছে।

default-image

মেসির জাতীয় দলের সতীর্থ লিয়ান্দ্রো পারেদেস বহুদিন ধরেই আর্জেন্টিনার অধিনায়ককে পিএসজিতে দেখতে চাইছেন। এবার আবারও এই আশার কথা জানিয়েছেন তিনি। পারেদেসের বক্তব্য, এখন পিএসজির কোচ হিসেবে যেহেতু একজন আর্জেন্টাইন এসেছেন, সে কারণে হলেও মেসি পিএসজিতে আসার ব্যাপারে আরও আগ্রহী হতে পারেন, ‘এখানে এলে মেসি স্বদেশি একজন কোচের অধীনে কাজ করতে পারবেন। আর মেসির সঙ্গে একই দলে খেলতে পারাটাও অনেক বড় একটা ব্যাপার।’

বিজ্ঞাপন

পারেদেস জানিয়েছেন, মেসিকে দলে আনার ব্যাপারে যথেষ্ট চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে পিএসজি। ইতালিয়ান সংবাদমাধ্যম কোরিয়েরে দেল্লো স্পোর্তকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পারেদেস বলেছেন, ‘ব্যাপারটা এখন সম্পূর্ণ লিওর ওপর, ও পিএসজিতে আসতে চায় কি না। তবে পিএসজি তাকে রাজি করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।’

default-image

শুধু এবারই নয়, পারেদেস কয়েক মাস আগেও মেসিকে দলে আসার আহ্বান জানিয়ে রেখেছিলেন এভাবেই। তাঁর কথা, ‘মেসি পিএসজিতে আসুক, সেটা আমরা সবাই চাই।’ ওদিকে বার্সা যে মেসিকে ধরে রাখার চেষ্টা করবে, সেটা সবাই জানে। কিন্তু মৌসুম শেষে ফ্রি এজেন্ট হতে বসা মেসি জানুয়ারিতেই অন্য যেকোনো ক্লাবে যোগ দেওয়ার বিষয়ে কথা বলতে পারবেন। ছয়বারের বর্ষসেরা এ ফুটবলারকে চাইলে যেকোনো ক্লাবই তো কিনতে পারবে না। তাঁর বেতন দিতেই অনেক ক্লাবের ঘাম ছুটে যাবে। পেট্রো ডলারসমৃদ্ধ পিএসজি কিংবা সিটি তো আর তেমন নয়। ৩৩ বছর বয়সী মেসিকে কেনার সামর্থ্য আছে তাদের।

পারেদেস সম্ভবত এ আশাতেই ইএসপিএনকে তখন বলেছিলেন, ‘পিএসজিতে মেসি? আমরা সবাই চাই সে আসুক। কিন্তু সিদ্ধান্তটা তাকে নিতে হবে। আমাদের স্কোয়াডটা অবিশ্বাস্য। মানুষগুলোও ভালো। আমরা এসবের সুবিধা পেয়ে থাকি। আগেও বলেছি, আমার আশা লিও নিজের বিষয়ে সেরা সিদ্ধান্তই নেবে। তবে আমরা তাকে দুই হাত বাড়িয়ে স্বাগত জানাব।’

শুধু পারেদেসই নন, কিছুদিন আগে নেইমারও জানিয়েছিলেন, মেসিকে দেখতে চান পিএসজিতে। আর্জেন্টাইনের প্যারিসে আসা নিয়ে সরাসরি কিছু বলেননি সেবার নেইমার, ‘আমার সবচেয়ে বড় চাওয়া হলো মেসির সঙ্গে আবার খেলা, আবার মাঠে তার খেলাটা উপভোগ করা। সে আমার জায়গায় খেলতে পারে, এ ব্যাপারে আমার কোনো সমস্যা নেই! তবে এটা নিশ্চিত, আগামী বছরই আমি তার সঙ্গে খেলতে চাই। আগামী মৌসুমে আমরা একসঙ্গে খেলব।’

শুধু পারেদেস কিংবা নেইমারের মতো মাঠের খেলোয়াড়েরাই নন, মাঠের বাইরের কর্তাব্যক্তিরাও চাইছেন মেসি যেন পিএসজিতে আসেন। আর্জেন্টাইন মরিসিও পচেত্তিনো পিএসজির কোচ হওয়ার পর থেকেই কীভাবে কার্যকর খেলোয়াড় দলে এনে শিরোপা জেতা যায়, সে নিয়ে পরিকল্পনা করা শুরু করে দিয়েছে ফরাসি চ্যাম্পিয়নরা। আর সে লক্ষ্যে যে মেসিও আছেন বেশ ভালোভাবে, সেটাই বোঝা গিয়েছিল কিছুদিন আগে। পিএসজির ব্রাজিলিয়ান ক্রীড়া পরিচালক লিওনার্দো জানিয়েছিলেন, মেসিকে দলে চান তাঁরা।

লিওনার্দো বলেছিলেন, ‘মেসির মতো শ্রেষ্ঠ খেলোয়াড় সব সময়েই পিএসজির সম্ভাব্য খেলোয়াড়ের তালিকায় থাকবেন। কিন্তু এ নিয়ে স্বপ্ন দেখার বা কথা বলার সময় নয়। তবে আমরা ব্যাপারটা পর্যবেক্ষণ করছি। মেসির চুক্তিতেও আর চার মাস আছে। ফুটবল বিশ্বে চার মাসে অনেক কিছু হয়ে যেতে পারে। কিন্তু আপাতত আমরা শুধু পর্যবেক্ষণ করছি।’

পিএসজির নতুন কোচ মরিসিও পচেত্তিনোও দায়িত্ব নেওয়ার কিছুদিন পর মেসিকে প্রকাশ্য দলে আসার আহ্বান জানিয়ে রেখেছিলেন।

দেখা যাক, এত ডাকাডাকির ফল পাওয়া যায় নাকি কোনো!

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন