বার্সেলোনার জার্সিতে লিওনেল মেসি ও ইভান রাকিতিচ।
বার্সেলোনার জার্সিতে লিওনেল মেসি ও ইভান রাকিতিচ। ফাইল ছবি: রয়টার্স

চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতেছেন ৪টি, লা লিগা ১০টি। ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপের শিরোপার স্বাদ পেয়েছেন তিনবার। সব মিলিয়ে লিওনেল মেসি বার্সেলোনাতে জিতেছেন ৩৩টি শিরোপা। লা লিগা, কোপা দেল রে, স্প্যানিশ সুপার কাপ, চ্যাম্পিয়নস লিগ, উয়েফা সুপার কাপ, ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ—একটি ক্লাবের হয়ে যা যা জেতা সম্ভব, এর সবই জিতেছেন মেসি। এরপরও একটা আক্ষেপে সব সময়ই পোড়েন আর্জেন্টিনার তারকা ফরোয়ার্ড। আর্জেন্টিনার হয়ে কোনো শিরোপা যে জেতা হয়নি তাঁর!

কোপা আমেরিকা বা বিশ্বকাপ না জেতার হতাশা মেসির দীর্ঘদিনের সঙ্গী। এ নিয়ে কখনো কখনো সমালোচনাও শুনতে হয় তাঁকে। অনেকেই বলেন, মেসি যতটা বার্সেলোনার, ততটা আর্জেন্টিনার নন। বার্সেলোনার জার্সিতে ভুবনবিহারী ফুটবল খেলা মেসি আর্জেন্টিনার জার্সিতে থাকেন নিষ্প্রভ—এমন সমালোচনাও শুনতে হতো কখনো কখনো। মেসি নিজেও বিশ্বকাপ শিরোপা না জেতা নিয়ে হতাশার কথা বলেছেন।

ক্রোয়েশিয়া ২০১৮ বিশ্বকাপের ফাইনাল খেললেও বিশ্বকাপ জেতার অভিজ্ঞতা হয়নি ইভান রাকিতিচেরও। বার্সেলোনায় মেসির সাবেক সতীর্থ ইভান রাকিতিচ এমন একটা শিরোপা জিতেছেন, যেটা জেতা হয়নি মেসির। সেটা ক্লাব ফুটবলেই। সেই শিরোপা জয় নিয়ে মাঝেমধ্যেই মেসিকে খোঁচাতেন ক্রোয়াট মিডফিল্ডার। কী সেই শিরোপা? মেসি যে ছয়টি টুর্নামেন্টে ৩৩টি শিরোপা জিতেছেন, এর মধ্যে যেটি নেই!

বিজ্ঞাপন
default-image

ইউরোপা লিগ—ক্লাব ফুটবলের এই শিরোপা মেসির মুকুটে নেই। থাকবেই-বা কী করে! মেসি যত দিন ধরে বার্সেলোনার মূল দলে খেলছেন, সেই ১৭ বছরে বার্সা যে ইউরোপা লিগে খেলেইনি। বার্সেলোনা খেলে ইউরোপের ক্লাব ফুটবলের সর্বোচ্চ প্রতিযোগিতা চ্যাম্পিয়নস লিগে। সেটি চারবার জিতেছেন মেসি। রাকিতিচও বার্সেলোনার হয়ে ইউরোপা লিগ জেতেননি। ক্রোয়াট মিডফিল্ডার ইউরোপা লিগ জিতেছেন ২০১৩-১৪ মৌসুমে সেভিয়ার হয়ে। সেভিয়ার হয়ে সেই শিরোপা জেতার পরই বার্সেলোনায় নাম লেখান।

গত বছর বার্সেলোনা থেকে আবার সেভিয়াতে নাম লিখিয়েছেন রাকিতিচ। মেসির সঙ্গে আগের মতো আর দেখা হয় না তাঁর। কিন্তু দূরে থেকেও মেসির সঙ্গে কাটানো সময়গুলো মনে পড়ে রাকিতিচের। মনে পড়ে সেই সময়ে মেসির সঙ্গে করা খুনসুটিগুলোর কথা। রাকিতিচ বলেছেন, ‘আমি মেসির সঙ্গে কথা বলার সময় বলতাম, “তুমি অনেক শিরোপা জিতেছ, অনেক গোল করেছ।”এটা বলার সঙ্গে বলতাম, “আমি এমন একটি ট্রফি জিতেছি, যা তুমি কখনোই জিততে পারবে না।”’

default-image

এরপর মেসিকে সেই শিরোপার কথা বলতেন, ‘তুমি কখনোই ইউরোপা লিগ জিততে পারবে না।’ কে জানে ভবিষ্যতে কী হয়! বার্সেলোনার সঙ্গে মেসির চুক্তির মেয়াদ শেষ হবে জুনে। নতুন চুক্তি নিয়ে বার্সেলোনার সঙ্গে এখনো কোনো আলোচনাই শুরু করেননি তিনি। ফুটবল বিশ্বে এখন আলোচনা—মেসি আর বার্সেলোনায় থাকবেন না। কে জানে তাঁর ভবিষ্যৎ ঠিকানা কী হবে। এমনও তো হতে পারে, তিনি ভবিষ্যতে যে ক্লাবে যাবেন, সেই ক্লাব ইউরোপা লিগে খেলতেও পারে! আর মেসি একদিন হয়তো ইউরোপা লিগ জিতেও যেতে পারেন!

যদি তেমন কিছু ঘটেই যায়, মেসি হয়তো রাকিতিচকে ফোন করে বলবেন—দেখো, আমি ইউরোপা লিগ জিতে গেছি!

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন