মেসিকে ‘খাটো’ বলেছিলেন নেইমারকে ‘বাঁদর’ বলা আলভারো

নেইমারের সঙ্গে উত্তপ্ত মুহূর্তে আলভারো।
নেইমারের সঙ্গে উত্তপ্ত মুহূর্তে আলভারো। ছবি: এএফপি
বিজ্ঞাপন

মাঠে বর্ণবাদী গালি হজমের অভিযোগ তুলেছেন নেইমার। অভিযোগটা মার্শেইয়ের ডিফেন্ডার আলভারো গঞ্জালেসের দিকে। পিএসজি তারকার এই অভিযোগ সত্য কি না, তা যাচাই করতে বসেছে তদন্ত কমিটি। এদিকে গঞ্জালেসের অতীত খুঁড়ে বের করছে সংবাদমাধ্যম। জানা গেছে, ৩০ বছর বয়সী এই স্প্যানিশ সেন্টারব্যাক এর আগেও মাঠে মাথা গরম করেছেন। উল্টো-পাল্টা বলেছেন প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়কে।

২০১৫-১৬ মৌসুম। আলভারো তখন এস্পানিওলের খেলোয়াড়। বার্সেলোনার সঙ্গে কাতালান ডার্বি। নেইমারও তখন কাতালান ক্লাবে ছিলেন লিওনেল মেসির সঙ্গী হয়ে। আর্জেন্টাইন তারকাকে মাঠে ফাউল করেন আলভারো। এরপরই উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয় দুজনের। পরে আলভারো নিজেই সংবাদমাধ্যম ‘আরএমসি’কে বলেছিলেন, ‘আমরা একে-অপরের পেছনে লাগতাম। তাকে বলেছিলাম “তুমি সত্যি খুব ছোট। একেবারে ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র।” সে আমার দিকে তাকিয়ে বলেছে, “তুমি ফুটবলে সত্যিই জঘন্য।” “আমরা দুজনেই সঠিক”—শেষ কথাটা ছিল আমার।’

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

শুধু মেসি নয়, জেরার্ড পিকের সঙ্গেও লেগেছে আলভারোর। নেইমার তত দিনে বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজিতে। আলভারোও ক্লাব পাল্টে ভিয়ারিয়ালে। ২০১৮-১৯ মৌসুমে ভিয়ারিয়াল-বার্সেলোনা ম্যাচে লুই সুয়ারেজকে ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন আলভারো। ড্রেসিং রুমের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় পিকের সঙ্গে লেগে গিয়েছিল তাঁর। উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয় দুজনের। এবার নেইমাররে সঙ্গে যা ঘটল তা সত্যি হলে কঠোর শাস্তিই হতে পারে ফরাসি ক্লাবটির এ খেলোয়াড়ের। বর্ণবাদ নিয়ে চলতি বছর এমনিতেই বিক্ষুব্ধ সময় কাটছে বিশ্বে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

লিগ ওয়ানে পিএসজি-মার্শেই ম্যাচে নেইমারের সঙ্গে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন আলভারো। তাঁর মাথার পেছনে চড় মেরে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছেড়েছেন নেইমার। ম্যাচ শেষে নেইমার দাবি করেছেন মাঠে আলভারো তাঁকে উদ্দেশ্য করে বর্ণবাদী গালি দিয়েছেন। প্রথমার্ধ থেকেই দুজনের মধ্যে খিটমিট লেগেই ছিল। বিরতির সময়ও নেইমারকে টিভিতে ‘বর্ণবাদ’ শব্দটি ব্যবহার করতে শোনা গেছে। তবে আসল মারামারি শুরু হয় একদম শেষ দিকে। যোগ করা সময়ের পঞ্চম মিনিটে মার্শেইয়ের একটি গোল কিকের আগে নেইমার আর গঞ্জালেজ কথা-কাটাকাটি করছিলেন। নেইমারের ওই কাণ্ড প্রথমে না দেখলেও ভিএআরের সাহায্যে পরে নেইমারকে লাল কার্ড দেখিয়ে মাঠ থেকে বের করে দেন রেফারি।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

নেইমার টুইট করে নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করেন, ‘আমার একটাই দুঃখ, এই বদমাশকে চর মারলাম না কেন।’ এরপরই সব ক্ষোভ ঢেলে দেন আরেক টুইটারে, ‘ভিএআর আমার আগ্রাসী আচরণ খুব সহজেই খুঁজে পেল... ওই বর্ণবিদ্বেষী যে আমাকে (বাঁদর) বলে গালি দিল এখন আমি সে ছবিও দেখতে চাই... আমি এখন সেটা দেখতে চাই। কী হলো? আমাকে ঠিকই শাস্তি দেওয়া হলো। আমাকে বের করে দেওয়া হলো...ওদের শাস্তি হবে না? কী ব্যাপার?’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন