নেইমার বার্সার বিপক্ষে খেলতে পারবেন?
নেইমার বার্সার বিপক্ষে খেলতে পারবেন?ছবি: রয়টার্স

চোটের ভয় নেইমারের জন্য নতুন কিছু না। ব্রাজিল ফরোয়ার্ডের চোট–প্রবণতা কারও অজানা নয়। অন্য যেকোনো খেলোয়াড়ের তুলনায় নেইমারকে ঘিরে চোটের শঙ্কা থাকে বেশি। মাঝেমধ্যেই তাঁর চোটের কারণে মাঠের বাইরে ছিটকে পড়াই এর প্রমাণ। কাল আবারও এমন দৃশ্য দেখা গেল পিএসজির ম্যাচে। ফ্রেঞ্চ কাপে কায়েনের বিপক্ষে পিএসজির ১–০ গোলের জয়ে শেষ ৩২–এ ওঠায় নেইমারের চোটই বড় খবর। এ নিয়ে দুশ্চিন্তায়ও আছে ফরাসি ক্লাবটি।

মঙ্গলবার ক্যাম্প ন্যু–তে চ্যাম্পিয়নস লিগ শেষ ষোলোয় বার্সার মুখোমুখি হবে পিএসজি। তার আগে নেইমারের সুস্থ হয়ে ওঠা নিয়ে শঙ্কায় রয়েছে মরিসিও পচেত্তিনোর দল। চোট পাওয়ার পর সুস্থ হয়ে উঠতে যে মাত্র ছয় দিন সময় পাচ্ছেন নেইমার। ম্যাচের ৫৬ মিনিটে চোট পান তিনি। কায়েন ডিফেন্ডার স্টিভ ইয়াগোর চ্যালেঞ্জটা ছিল শক্তিশালী। বল ধরতে গিয়েছিলেন নেইমার, পেছন থেকে ইয়াগোর ট্যাকলে পড়ে যান, বাঁ ঊরু ধরে মাঠেই কাতরাচ্ছিলেন ব্যথায়। এরপর খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে মাঠ ছেড়েছেন নেইমার। তাঁর বদলি হিসেবে মাঠে নামানো হয় কিলিয়ান এমবাপ্পেকে।

default-image
বিজ্ঞাপন

নেইমার চোট পাওয়ার আগেই এগিয়ে গিয়েছিল পিএসজি। ৪৯ মিনিটে বাঁ প্রান্ত থেকে ব্রাজিল তারকার ক্রসে পা ছুঁইয়ে গোল করেন পিএসজি ফরোয়ার্ড ময়েস কিন। তবে প্রথমার্ধে মোটেও ভালো খেলতে পারেনি পিএসজি। শক্তিতে অনেক পিছিয়ে থাকা কায়েনের বিপৎসীমায় সেভাবে ত্রাস ছড়াতে পারেনি পচেত্তিনোর দল। বাঁ প্রান্তে কড়া পাহারায় নেইমারকে আলাদা করে রেখেছিলেন কায়েন ডিফেন্ডাররা। প্রতি আক্রমণ থেকে নেইমারের ক্রসে গোলটি করেন কিন।

নেইমারের চোট নিয়ে পিএসজি কোচ পচেত্তিনো সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘মাংসপেশিতে কোনো একটা সমস্যা হয়েছে। কাল (আজ) চিকিৎসকেরা দেখার পর বলতে পারবেন। এখন কিছুই বলতে পারছি না। কাল জানা যাবে। পরীক্ষার আগে কিছুই বলতে পারছি না।’ বার্সেলোনার বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ এ ম্যাচে চোটের কারণে আনহেল ডি মারিয়াকে পাচ্ছে না পিএসজি। এর মধ্যে নেইমারের চোট বড় দুশ্চিন্তায় ফেলবে পিএসজিকে।

ইউরোপের ময়দানে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে নেইমারের চোট পাওয়া নতুন কিছু না। বার্সেলোনা থেকে পিএসজিতে যোগ দেওয়ার পর ২০১৭–১৮ মৌসুমে পায়ের হাড়ে বড় চোট পেয়েছিলেন নেইমার। মৌসুমের শেষ তিন মাস তাঁকে পায়নি পিএসজি। এর মধ্যে শেষ ষোলো থেকে তারা ছিটকে পড়েছিল রিয়াল মাদ্রিদের কাছে হেরে। ২০১৯ সালেও একই সমস্যায় পড়েছিলেন নেইমার। এবারও শেষ ষোলো থেকে পিএসজি বিদায় নিয়েছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কাছে হেরে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন