বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পিএসজির জার্সি গায়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে মেসির অভিষেক হয়েছে কাল। ক্লাব ব্রুগাকে শক্তিশালী পিএসজি উড়িয়ে দেবে, এমন প্রত্যাশাই ছিল। কিন্তু নিজেদের মাঠে ব্রুগা খেলেছে দুর্দান্ত। উল্টো পিএসজির তারকাখচিত দলকে তাদের সামনে ম্যাচে অনেক সময়ই বর্ণহীন, নির্বিষ মনে হয়েছে। অনেকেই তো বলছেন, ম্যাচটা যে পিএসজি হারেনি, এটাই ঢের। ১-১ গোলে ম্যাচটি ড্র হওয়ার পর ফরাসি ক্লাবটি বরং নিজেদের ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের তুলনায় নিজেদের ভাগ্যবান মনে করতে পারে। পরশু সুইস ক্লাব ইয়ং বয়েজের কাছে ২-১ গোলের হারে চ্যাম্পিয়নস লিগে শুরুটা বাজেই করেছে ম্যান ইউনাইটেড।

default-image

ব্রুগার বিপক্ষে পিএসজির একাদশে মেসি, নেইমার আর এমবাপ্পেকে একসঙ্গে দেখে নড়েচড়েই বসেছিলেন ফুটবলপ্রেমীরা। কিন্তু তিনজনের রসায়নটা জমেনি। মেসি নিজের সেরা পারফরম্যান্স থেকে অনেক দূরে ছিলেন। চ্যাম্পিয়নস লিগে নিজের ১৫০তম ম্যাচে যদিও গোল একটা প্রায় পেয়েই গিয়েছিলেন। ব্রুগার বক্সের মুখ থেকে তাঁর বাঁ পায়ে নেওয়া শটটি ক্রসবারে লেগে প্রতিহত হয়। এর বাইরে মেসি ম্রিয়মাণই ছিলেন। নেইমার, এমবাপ্পে দুজনের জন্যই কালকের রাতটা ছিল ভুলে যাওয়ার। ৫১ মিনিটের মাথায় এমবাপ্পেকে তুলে নেন পিএসজি কোচ মরিসিও পচেত্তিনো। সে হিসাবে পিএসজির এই ‘ত্রিফলা’ আক্রমণভাগ একসঙ্গে খেলেছেন মাত্র ৫১ মিনিট।

default-image

গোলে শট নেওয়ার পরিসংখ্যানও বলছে, এই ‘ত্রয়ী’ হতাশ করেছেন। ব্রুগার গোল লক্ষ্য করে পিএসজির বিশ্ববিখ্যাত আক্রমণভাগ শট নিয়েছে মাত্র ৯টি—যার ৪টি ছিল লক্ষ্যে। অন্যদিকে, ব্রুগা পিএসজির গোলে ১৫টি শট নিয়ে বুঝিয়ে দিয়েছে কতটা বিপদে ছিল তারকাখচিত দলটি। মজার ব্যাপার, যে ম্যাচে মেসি-নেইমার-এমবাপ্পে একসঙ্গে, এক দলে খেলেছেন, সে ম্যাচে ম্যাচসেরা ব্রুগার ‘অল্প পরিচিত’ ডাচ্‌ উইঙ্গার নোয়া লাং।

default-image

কোচ মাঠে নিজে খেলে দেন না। কিন্তু যেকোনো ফুটবল ম্যাচের পরপরই সংবাদমাধ্যমের প্রশ্নবাণে বেশির ভাগ সময় কোচকেই জর্জরিত হতে হয়। কালও ব্যতিক্রম হয়নি পিএসজি কোচ পচেত্তিনোর বেলায়। মেসি-নেইমার-এমবাপ্পেত্রয়ীর ব্যর্থতায় জবাবদিহিটা করতে হয়েছে তাঁকেই, ‘এই তিন তারকার একসঙ্গে ভালো খেলতে সময় দিতে হবে। অনেক পরিশ্রম করতে হবে। আমি তো আগেই ব্যাপারটা পরিষ্কার করে দিয়েছি—আমাদের অনেক বড় বড় তারকা থাকলেও আমরা এখনো সত্যিকারের একটি দল হয়ে উঠতে পারিনি। এ জন্য আমাদের অনেক কাজ করতে হবে। অনেক পরিশ্রম করতে হবে।’

default-image

দলে আরও অনেক বেশি ধারাবাহিকতা আর গতির প্রয়োজন বলে মনে করেন পচেত্তিনো, ‘আমাদের দলে গতি দরকার, দরকার খেলোয়াড়দের ধারাবাহিকতা। আমরা অনেক বেশি ভুল করছি। এসব করা যাবে না। তবে এত কিছুর পরও দলের খেলোয়াড়দের ওপর আমার পূর্ণ আস্থা আছে। আমাদের এখন নীরবে নিজেদের কাজটা সঠিকভাবে করে যেতে হবে।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন