পুরস্কারটা লেভাকেই দেওয়া হবে, এমনটা নিশ্চিত করে বলেননি ফেরে। পুরস্কারটা যে দেওয়া হবেই, এমন নিশ্চয়তাও দেননি। শুধু বলেছেন, পুরস্কার মঞ্চে মেসির কথার পর তাঁরা ২০২০ ব্যালন ডি’অর দেওয়ার কথা ভাবছেন। কিন্তু তাতেই লেভার ভক্তরা স্বপ্ন দেখতে পারেন, কারণ গত বছরে যে লেভারই পুরস্কারটা জেতা উচিত ছিল, সেটি প্রায় সবার বিশ্লেষণেই উঠে এসেছে।

লেভাকে হারিয়ে ব্যালন ডি’অর জেতার পর পরশু পুরস্কার মঞ্চে উঠে প্রতিদ্বন্দ্বীর উদ্দেশে মেসি বলেছিলেন, ‘রবার্টকে বলতে চাই, এই পুরস্কারের দৌড়ে তোমার সঙ্গে লড়তে পারা আমার জন্য সম্মানের। ব্যালন ডি’অর জেতা তোমারও প্রাপ্য। গত বছর সবাই এ ব্যাপারে একমত ছিল যে তোমারই জেতা উচিত ছিল।’

এরপর ফ্রান্স ফুটবলকে মেসি অনুরোধ করেন, ‘আমার মনে হয় ফ্রান্স ফুটবলের উচিত তোমাকে তোমার ব্যালন ডি’অর দেওয়া। কারণ, সেটা তোমার প্রাপ্য। আশা করি, ফ্রান্স ফুটবল সেটা তোমাকে দেবে, তোমার ঘরে একটা ব্যালন ডি’অর থাকবে। কারণ, (গত মৌসুমে) তুমি ছাড়া আর কেউ জিততে পারত না! এই পুরস্কারটা তোমার ঘরে থাকা উচিত।’

default-image

মেসির কথার সূত্র ধরেই আজ ফ্রান্স ফুটবলের প্রধান সম্পাদক পাসকাল ফেরে বললেন, ‘মেসি খুব সুন্দর, খুব বুদ্ধিদীপ্ত একটা কথা বলেছেন। তবে আমার মনে হয় না আমাদের এ নিয়ে দ্রুতই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। এটা (২০২০ সালের ব্যালন ডি’অর দেওয়া) নিয়ে আমরা ভাবতে পারি। পাশাপাশি আমাদের ব্যালন ডি’অরের ইতিহাসের সম্মানও ধরে রাখতে হবে।’

ইতিহাসের সম্মানের কথা কেন আসছে? পুরস্কারটা যে ভোটে নির্ধারিত হয়ে এসেছে সব সময়! গত মৌসুমে ব্যালন ডি’অরটা লেভার প্রাপ্য ছিল, এমনটা অনেকের মনে হতে পারে, কিন্তু ভোটে তো আর সেটা নির্ধারিত হয়ে যায়নি!

সে কারণেই পাসকাল ফেরে বলছেন, ‘...এই পুরস্কারটা সব সময় ভোটে নির্ধারিত হয়েছে। আমরা তো আর নিশ্চিত করে বলতে পারি না যে গত বছর লেভানডফস্কিই ব্যালন ডি’অর জিততেন। আমরা এটা নিশ্চিত করে বলতে পারি না, কারণ এটা ভোটে ঠিক হয়নি। তবে সত্যি বলতে, গত বছর লেভানডফস্কিরই জেতার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি ছিল।’

default-image

ব্যালন ডি’অর নিয়ে প্রতিবছরই অনেক বিতর্ক হয়, এবারও হয়েছে। তবে শেষ পর্যন্ত পাসকাল ফেরের কথাটা হয়তো পুরস্কারের কারণে সৃষ্ট বিতর্কের জবাব হয়ে আসবে, ‘ব্যালন ডি’অর একটা গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নির্ধারিত হয়। ১৭০ জন বিচারকের সিদ্ধান্তে মেসির দিকেই ভোটটা গেছে।’

তবে এই ১৭০ জনের মধ্যে তাঁর ‘সেরা’র ভোট যে মেসির বক্সে যায়নি, তা-ও জানিয়ে দিয়েছেন পাসকাল ফেরে, ‘আমি প্রথম পুরস্কারের ভোটটা মেসিকে দিইনি। লেভানডফস্কিকে বেছে নিয়েছিলাম। তবে আমার চোখে এবার মেসিরও ব্যালন ডি’অর জেতা প্রাপ্য ছিল।’

করোনায় অনেক লিগ-টুর্নামেন্ট স্থগিত কিংবা বাতিল হয়ে যাওয়ায় গত বছর ব্যালন ডি’অর দেওয়া হয়নি। তবে ফিফার বর্ষসেরা পুরস্কার ‘ফিফা দ্য বেস্ট’ ঠিকই দেওয়া হয়েছিল, সেখানে পুরস্কার ঠিকই লেভা জিতেছিলেন।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন